চট্টগ্রাম রবিবার, ২৩ জুন, ২০২৪

কঙ্গনাকে চড় মারা কনস্টেবল সাময়িক বরখাস্ত

অনলাইন ডেস্ক

৭ জুন, ২০২৪ | ২:৪৪ অপরাহ্ণ

লোকসভায় বিজেপির নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ও বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌতকে চড় মারার অভিযোগে সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সের (সিআইএসএফ) কনস্টেবল কুলবিন্দর কৌরকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। কুলবিন্দর দাবি করেন, কৃষক আন্দোলন নিয়ে কঙ্গনার পুরনো এক মন্তব্যের জেরে তিনি এই কাজ করেছেন।

আজ শুক্রবার এই তথ্য জানিয়েছে এনডিটিভি।

কুলবিন্দর বলেন, কৃষক আন্দোলন চলাকালীন সময় ‘তিনি (কঙ্গনা) একটি বিবৃতি দিয়েছিলেন—তিনি বলেন, ১০০ রুপির লোভে কৃষকরা বসে আছে। তিনি নিজে কি সেখানে যেয়ে বসবেন? তিনি যখন এই বিবৃতি দেন, তখন আমার মা সেখানে বসে বিক্ষোভ করছিলেন।’

কৃষক পরিবারের সন্তান কুলবিন্দরকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে আটক করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে পুলিশি মামলা দায়ের করা হয়েছে। কুলবিন্দর দাবি করেন, তিনি ‘কৃষকদের অসম্মান’ করার দায়ে কঙ্গনা রনৌতের প্রতি এই প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার ভারতের চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে মান্ডি আসনে বিজেপির সংসদ সদস্য নির্বাচিত কঙ্গনাকে সিআইএসএফ কনস্টেবল কুলবিন্দর কষে চড় মারেন বলে অভিযোগ।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। কঙ্গনা দিল্লির উদ্দেশে ফ্লাইটে উঠতে এয়ারপোর্টে এসেছিলেন।

দিল্লি পৌঁছে কঙ্গনা অভিযোগ করেন, ‘পাঞ্জাবে জঙ্গিবাদ বেড়ে যাচ্ছে।’

‘নিরাপত্তা চেকইনে এই ঘটনা ঘটে। নারী নিরাপত্তা কর্মী (কুলবিন্দর) অপেক্ষা করছিলেন কখন আমি লাইন পার হব। তারপর কাছে এসে তিনি আমার মুখে আঘাত করেন এবং গালিগালাজ করতে থাকেন। আমি তাকে জিজ্ঞাসা করলাম, কেন তিনি আমাকে আঘাত করলেন। তিনি বললেন, “আমি কৃষকদের সমর্থন করি”। এখন আমি নিরাপদে আছি। কিন্তু আমি পাঞ্জাবে জঙ্গিবাদের উত্থানে উদ্বিগ্ন। আমরা কীভাবে এর মোকাবিলা করছি?’, যোগ করেন কঙ্গনা।

ভাইরাল হওয়া মোবাইল ভিডিওতে দেখা গেছে কঙ্গনা চেক-ইন কাউন্টারে পৌঁছানোর পর তার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েছেন উল্লেখিত নিরাপত্তা কর্মী। এই ভিডিওতে কঙ্গনাকে থাপ্পড় মারার মুহূর্তটি দেখা যায়নি।

তবে ভিডিওতে কনস্টেবল কুলবিন্দরকে বলতে শোনা যায়, তার মাও বিক্ষোভকারীদের একজন ছিলেন।

হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী নায়াব সিং সাইনি জানান, ‘এ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এটা দুঃখজনক যে একজন নিরাপত্তা কর্মী এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত। যা হয়েছে, তা ভুল হয়েছে।’

ভারতে ২০২০-২১ সালের কৃষক বিক্ষোভের সময় আন্দোলনে অংশ নেওয়া পাঞ্জাবের নারীদের নিয়ে এক্সে (তৎকালীন টূইটার) বিতর্কিত পোস্ট করেছিলেন কঙ্গনা। এ কারণে তাঁর ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন পাঞ্জাবের অধিবাসী কুলবিন্দর। এই ক্ষোভ থেকেই তিনি কঙ্গনাকে চড় মেরেছে বলে দাবি করেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, কুলবিন্দর পাঞ্জাবের সুলতানপুর লোধির বাসিন্দা। তিনি দুই বছর ধরে চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

কুলবিন্দরের স্বামীও সিআইএসএফের একজন সদস্য। এই দম্পতির দুইটি সন্তান রয়েছে।

কুলবিন্দরের ভাই শের সিং একজন কৃষক নেতা। তিনি কিষান মজদুর সংগ্রাম কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক।

পূর্বকোণ/এএইচ

শেয়ার করুন