চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪

ফিলিস্তিনকে জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য করার পক্ষে ১৪৩ দেশের ভোট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১১ মে, ২০২৪ | ৭:৫২ পূর্বাহ্ণ

ফিলিস্তিনকে সংস্থাটির পূর্ণাঙ্গ সদস্য করার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ (ইউএনজিএ)। শুক্রবার (১০ মে) এই বিষয়ে এক ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হয়। ফিলিস্তিনকে পূর্ণাঙ্গ সদস্য করার বিষয়টি নিরাপত্তা পরিষদে পুনরায় বিবেচনার আহ্বানের প্রস্তাবটির পক্ষে পড়েছে ১৪৩ ভোট, বিপক্ষে ৯টি দেশ এবং ২৫ টি দেশ ভোটদানে বিরত ছিল। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এ খবর জানিয়েছে।

সাধারণ পরিষদের প্রস্তাবে নিরাপত্তা পরিষদে বিষয়টি ইতিবাচকভাবে বিবেচনার আহ্বান জানানো হয়েছে। এতে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষকে জাতিসংঘের সদস্যপদ দেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। বলা হয়েছে ফিলিস্তিনি জাতিসংঘের সদস্য হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে।

প্রস্তাবটি পাসের ফলে ফিলিস্তিন জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হয়নি। কিন্তু এতে দেশটি সদস্য হতে যোগ্য বলে স্বীকৃতি পেয়েছে।

সাধারণ পরিষদ কোনও দেশকে পূর্ণাঙ্গ সদস্যপদ দিতে পারে না। কিন্তু শুক্রবারের প্রস্তাবটি পাস হওয়ার ফলে ২০২৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে কিছু অতিরিক্ত সুবিধা ও অধিকার পাবে ফিলিস্তিন। যেমন- জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে অ্যাসেম্বলি হলে বসতে পারবেন দেশটির প্রতিনিধি। কিন্তু ভোট দিতে পারবেন না।

ভোটাভুটির আগে জাতিসংঘের মার্কিন মিশন ইঙ্গিত দিয়েছে, ফিলিস্তিনিদের সদস্য পদের আবেদন নিরাপত্তা পরিষদে পাঠানো হলে যুক্তরাষ্ট্র আবারও ভেটো দেবে। এর আগে এপ্রিলে নিরাপত্তা পরিষদে ভেটো দিয়েছিল দেশটি।

মার্কিন মিশন দাবি করছে, ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ জাতিসংঘের সদস্যপদ পাওয়ার যোগ্যতা পূরণ করেনি। এই প্রস্তাবে ফিলিস্তিনের সদস্যপদ নিয়ে যে উদ্বেগ ছিল তা সমাধান হয়নি।

এপ্রিলে জাতিসংঘের পূর্ণাঙ্গ সদস্য হওয়ার জন্য পুনরায় আবেদন করে ফিলিস্তিন। ওই মাসেই নিরাপত্তা পরিষদে আবেদনের ওপর ভোটাভুটি হয়েছিল। ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদের ১২টি দেশ পক্ষে ভোট দেয়। একমাত্র যুক্তরাষ্ট্র তাতে ভেটো দিয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের ভেটোর প্রশংসা করেছিল ইসরায়েল। দেশটি ফিলিস্তিনের আবেদনকে লজ্জাজনক প্রস্তাব বলে আখ্যায়িত করেছিল।

২০১১ সালে জাতিসংঘের পূর্ণাঙ্গ সদস্য হতে ব্যর্থ হয় ফিলিস্তিন। কিন্তু এক বছর পর ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ অ-সদস্য পর্যবেক্ষক হিসেবে মর্যাদা দেয় জাতিসংঘ।

ভোটাভুটির পর ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস বলেছেন, জাতিসংঘের পূর্ণাঙ্গ সদস্য হওয়ার উদ্যোগ চালিয়ে যাবে ফিলিস্তিন।

জাতিসংঘে নিযুক্ত ইসরায়েলি রাষ্ট্রদূত গিলাদ এরদান এই ভোটের নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, জাতিসংঘ এখন সন্ত্রাসী রাষ্ট্রগুলোকে নিজের সদস্য করতে স্বাগত জানাচ্ছে।

পূর্বকোণ/এএইচ

শেয়ার করুন