চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪

মালদ্বীপের সংসদ নির্বাচনেও বিপুল ভোটে বিজয়ী চীনপন্থী মুইজ্জুর দল

অনলাইন ডেস্ক

২২ এপ্রিল, ২০২৪ | ৭:০৮ অপরাহ্ণ

মালদ্বীপের পার্লামেন্ট নির্বাচনে বিপুল ভোটে জিতে ক্ষমতায় নিজেদের অবস্থান আরও সুদৃঢ় করেছে প্রেসিডেন্ট মোহামেদ মুইজ্জুর দল পিপলস ন্যাশনাল কংগ্রেস (পিএনসি)।

সাময়িক ফলাফল অনুযায়ী, ৯৩ সদস্যের প্রতিনিধি পরিষদে মি. মুইজের দল পিপলস ন্যাশনাল কংগ্রেস (পিএনসি) পেয়েছে ৬৬টা আসন।

বিশ্লেষকদের মতে পিএনসি-র জয় চীনের সঙ্গে সুসম্পর্ক স্থাপনে প্রেসিডেন্ট মুইজ্জুর নীতির প্রতিই জোরালো সমর্থন বলে মনে করা হচ্ছে। চীনপন্থী হিসেবে পরিচিত মোহামেদ মুইজ্জু মালদ্বীপে দীর্ঘদিন ধরে থাকা ভারতের প্রভাব কমাতে চান।

তার দলের এই জয়কে ‘সুপার মেজরিটি’ হিসেবে বর্ণনা করেছে স্থানীয় গণমাধ্যম। সংবিধান সংশোধনের জন্য সংসদে যে দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকা দরকার, এই নির্বাচনের মাধ্যমে তার দল পিএনসি সেটি অর্জন করেছে।

প্রধান বিরোধী দল মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টি (এমডিপি) পেয়েছে মাত্র ১৫টা আসন। আগে পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন ছিল তাদের দখলে। সেই চিত্র বদলে গেছে রোববারের ভোটের পর। মালদ্বীপের বিশ্লেষক ও ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার লেকচারার আজিম জহির বলেছেন, “মুইজ্জুর জন্য এটা একটা উল্লেখযোগ্য প্রাপ্তি।”এই জয়ের ফলে “রাজনৈতিক প্রাতিষ্ঠানিক দৃষ্টিকোণ থেকে এবার মি. মুইজ্জু সব কিছু নিয়ন্ত্রণ করবেন। তাত্ত্বিক দিক থেকে বিচার বিভাগকেও নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন তিনি। কারণ সংসদে পর্যাপ্ত আসন তাদের।”

মোহামেদ মুইজ্জু ক্ষমতায় এসেছিলেন গত বছর শেষের দিকে। নির্বাচনে তার প্রধান প্রচারণা ছিল পূর্ববর্তী সরকারের নেওয়া “ভারত প্রথম” নীতির অবসান ঘটানো। প্রেসিডেন্ট পদে আসীন হওয়ার পর এখনও তিনি দিল্লি সফরে যাননি।

মালদ্বীপে থাকা ভারতীয় সেনাদের দেশে ফেরত পাঠানোর প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন তিনি। সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ভারতীয় সেনাদের মালদ্বীপ থেকে চলে যাওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। ওই দেশে দিল্লির প্রভাব কমানোই এর কারণ হিসাবে মনে করা হয়। সূত্র:বিবিসি বাংলা

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন