চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

চিলিতে ভয়াবহ দাবানলে নিহত বেড়ে ১১২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ চিলিতে ভয়াবহ দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১২ জনে পৌঁছেছে। এছাড়া এখনও শত শত মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন। বিপর্যয়কর পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশটির প্রেসিডেন্ট গ্যাব্রিয়েল বোরিক জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন।

সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) পৃথক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স এবং সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চিলির ভালপারাইসো অঞ্চলে বনের দাবানলে অন্তত ১১২ জন নিহত হয়েছেন বলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট গ্যাব্রিয়েল বোরিক জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেছেন, পরিস্থিতি মোকাবিলায় ‘প্রয়োজনীয় সবকিছুর’ ব্যবস্থা করবেন তিনি।

এদিকে রেকর্ড রাখা শুরুর পর থেকে এটিকে চিলির সবচেয়ে মারাত্মক দাবানল বলে মনে করা হচ্ছে। দাবানলে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে অনেকেই গ্রীষ্মের ছুটি কাটাতে উপকূলীয় অঞ্চলে বেড়াতে এসেছিলেন। এছাড়া চিলির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ভালপারাইসোতে স্বাস্থ্য সতর্কতাও জারি করেছে।

বিবিসি বলছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ইলেকটিভ সার্জারি স্থগিত করার এবং অস্থায়ী ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপনের অনুমোদনও দিয়েছে। মন্ত্রণালয় একই বিবৃতিতে জানিয়েছে, বিপর্যয়কর পরিস্থিতি মোকাবিলায় স্বাস্থ্য পরিষেবার ওপর চাপ কমাতে সাহায্য করার জন্য পড়াশোনার শেষের দিকে থাকা মেডিকেল শিক্ষার্থীদেরও কাজে লাগানো হবে।

এদিকে দাবানল ছড়িয়ে পড়ার পর উদ্ধার পরিষেবাগুলো সবচেয়ে খারাপভাবে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় পৌঁছানোর জন্য লড়াই করছে এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যারোলিনা তোহা বলেছেন, আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মৃতের সংখ্যা ‘অনেক বেশি বাড়বে’।

এই পরিস্থিতিতে চিলির সরকার জনগণকে দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ভ্রমণ না করার আহ্বান জানিয়েছে। এল অলিভারের ৬১ বছর বয়সী এক বাসিন্দা এই দাবানলকে ‘নরক’ বলে বর্ণনা করেছেন।

বার্তাসংস্থা এএফপির সাথে কথা বলার সময় রদ্রিগো পুলগার নামের ওই ব্যক্তি বলেন, তিনি তার প্রতিবেশীকে সাহায্য করার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু পরে বুঝতে পারেন, দাবানলে তার নিজের বাড়িটিও জ্বলতে শুরু করেছে।

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের ওপর ছাই বৃষ্টি হচ্ছিল।’

তিনি বলেন, এল অলিভারের বেশিরভাগ বাসিন্দা বয়স্ক মানুষ। তার প্রতিবেশীও এই আগুনে মারা গেছে কারণ তারা তাকে বের করতে পারেননি।

চিলির আবাসন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আগুনে ৩ হাজার থেকে ৬ হাজার বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া দাবানল ছড়িয়ে পড়ার পর গত শনিবার ভিনা ডেল মার, লিমাচে, কুইলপু এবং ভিলা আলেমনায় কারফিউও জারি করা হয়।

প্রেসিডেন্ট গ্যাব্রিয়েল বোরিক বলেছেন, জারিকৃত কারফিউ চলাচলের রুট মুক্ত রাখতে সাহায্য করবে এবং জরুরি যানবাহনগুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় দ্রুত পৌঁছানোর সুযোগ দেবে।

এদিকে রোববার প্রায় ১৪০০ অগ্নিনির্বাপক কর্মী মোতায়েন করা হয়েছে বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া এক ভাষণে বলেছেন। তিনি বলেছেন, জরুরি পরিষেবার পাশাপাশি সামরিক কর্মীদেরও মোতায়েন করা হয়েছে এবং দাবানলের কারণ অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

পৃথক প্রতিবেদনে বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, দাবানলের কারণে কয়েকশ লোক নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে বলেও জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এছাড়া এক হাজারের বেশি ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

 

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন