চট্টগ্রাম শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪

বন্ধ হয়ে গেল গাজার সবচেয়ে বড় ২ হাসপাতাল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৩ নভেম্বর, ২০২৩ | ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ

দিন যত যাচ্ছে ততই চরম খারাপ পরিস্থিতির দিকে যাচ্ছে হামাস ও ইসরায়েলের যুদ্ধ পরিস্থিতি। আর এই যুদ্ধের জেরে অবর্ণনীয় দুর্ভোগে অবরুদ্ধ ভূখণ্ডের বাসিন্দারা।

ভেঙে পড়া চিকিৎসা ব্যবস্থার মধ্যেই অবরুদ্ধ গাজা ভূখণ্ডের সবচেয়ে বড় দুটি হাসপাতাল বন্ধ হয়ে গেছে। হাসপাতাল দুটি হচ্ছে আল শিফা ও আল কুদস হাসপাতাল। এছাড়া আল শিফা হাসপাতালে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় ৩ জন নার্স নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

অন্যদিকে জ্বালানি ফুরিয়ে যাওয়ায় গাজার কামাল আদওয়ান হাসপাতালও বন্ধ হয়ে গেছে। খবর আল জাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গাজার সবচেয়ে বড় দুটি হাসপাতাল- আল-শিফা এবং আল-কুদস উভয়ই বন্ধ হয়ে গেছে। এমনকি আল-শিফা হাসপাতালের আশেপাশে কাউকে দেখলেই তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালাচ্ছে ইসরায়েলি স্নাইপাররা।

এছাড়া আল শিফা হাসপাতালে এখনও অন্তত ২৩০০ লোক রয়েছে বলে জানিয়েছে হামাস পরিচালিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এদের মধ্যে ৬০০ এর বেশি রোগী, ২০০-৫০০ স্বাস্থ্যকর্মী এবং প্রায় দেড় হাজারের মত বাস্তুচ্যুত মানুষ রয়েছে।

বিদ্যুৎ ও পানিবিহীন হাসপাতালটিতে খাবারে সংকট থাকায় তাৎক্ষণিকভাবে জীবনকে ঝুঁকিতে রয়েছে এ মানুষগুলো।

আল জাজিরা জানায়, গত ১১ নভেম্বর বিদ্যুৎ বিভ্রাট শুরু হওয়ার পর থেকে অকালে জন্ম নেওয়া প্রিম্যাচিওর দুটি শিশুসহ ১২ জন রোগীও হাসপাতালে মারা গেছেন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

এদিকে গাজার হাসপাতালগুলোতে ‘ভয়াবহ এবং বিপজ্জনক’ পরিস্থিতি সম্পর্কে সতর্কবার্তা দিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রেইয়েসুস। তিনি বলেন, হাসপাতালে হামলার ঘটনায় অপরিণত অবস্থায় জন্ম নেওয়া শিশুসহ আরও বহু রোগী ‘দুঃখজনকভাবে’ মারা যাচ্ছে।

 

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন