চট্টগ্রাম বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪

মস্কোর সামরিক নেতাদের ক্ষমতাচ্যুত করার হুমকি ওয়াগনার প্রধানের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৪ জুন, ২০২৩ | ১১:৩৬ পূর্বাহ্ণ

রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর বর্তমান নেতৃত্বকে ‘ক্ষমতাচ্যুত’ করার হুমকি দিয়েছেন ভাড়াটে সেনাবাহিনী ওয়াগনার প্রধান ইয়েভগিনি প্রিগোজিন। তিনি জানিয়েছেন, এর জন্য শেষ পর্যন্ত যাবেন এবং যদি কেউ পথে বাধা দেয় তাহলে তাদের ধ্বংস করে দেবেন।

 

এক অডিও বার্তায় বাহিনীর শীর্ষ কমান্ডার ইয়েভগেনি প্রিগোঝিন বলেন, ‘আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি এবং এর শেষ দেখে ছাড়ব। আমাদের এ চলার পথে যা কিছু বাধা হয়ে দাঁড়াবে, তার সবকিছুকে ধ্বংস করে দেব।’

 

তার বাহিনী রাশিয়ার একটি সামরিক হেলিকপ্টারকে গুলি করে ভূপাতিত করেছে বলেও দাবি করেছেন প্রিগোশিন। তার ভাষায়, ‘এইমাত্র বেসামরিক একটি স্তম্ভের ওপর হেলিকপ্টার থেকে গুলি ছোড়া হয়েছে। পিএমসি ভাগনারের সেনাদলগুলো হেলিকপ্টারটিকে ভূপাতিত করেছে।’

 

অডিও বক্তব্যে বেশ কয়েকবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং দেশটির সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ ভ্যালেরি গেরাসিমোভের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ জানিয়েছেন পিএমসি ওয়াগনারের শীর্ষ কমান্ডার। তাদেরকে ‘নোংরা বিশ্বাসঘাতক’ উল্লেখ করে প্রিগোঝিন বলেন, ‘আমরা তাদের নোংরামোর শেষ দেখতে চাই। আমরা কোনো সেনা অভ্যুত্থান করছি না, বরং ন্যায়বিচারের জন্য (মস্কো অভিমুখে) এগিয়ে চলছি।’

 

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একটি সূত্রের বরাতে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা তাসের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, মস্কো কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করেছে। গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোর সুরক্ষা বাড়ানো হয়েছে।

 

প্রিগোশিনকে আটকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য রাশিয়ার নিরাপত্তা সংস্থা এফএসবি ভাগনারের যোদ্ধাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

 

ক্রেমলিন বলেছে, ভাগনার ও রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মধ্যকার উত্তেজনা নিয়ে নিয়মিতভাবে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে জানানো হচ্ছে।

 

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভের ভাষ্য, সশস্ত্র বিদ্রোহের প্রচেষ্টার অভিযোগে প্রিগোশিনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা হয়েছে বলে পুতিনকে জানিয়েছেন প্রসিকিউটর জেনারেল ইগর ক্রাসনভ।

 

ইউক্রেন যুদ্ধে ভাগনার বাহিনী রাশিয়ার হয়ে লড়াই করছে। কিন্তু ইয়েভজেনি প্রিগোশিন কয়েক মাস ধরে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু এবং সামরিক প্রধান ভ্যালেরি গেরাসিমভের সঙ্গে প্রকাশ্য বিরোধে জড়িয়ে পড়েন। তিনি বারবার এই দুজনের অযোগ্যতা ও ইউক্রেনের বিরুদ্ধে ভাগনারকে কম অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ করতে থাকেন। এ নিয়ে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাঁর টানাপোড়েন শুরু হয়।

 

প্রিগোশিনের অভিযোগ, রাশিয়ার সামরিক কর্মকর্তারা ইউক্রেনে তার বাহিনীর অর্জনকে নিজেদের বিজয় হিসেবে দেখাতে চাইছে।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন