চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪

পুতিনের পারমাণবিক অস্ত্রের হুমকি বাস্তব : বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২০ জুন, ২০২৩ | ২:৪২ অপরাহ্ণ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের হুমকি বাস্তব বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

মঙ্গলবার (২০ জুন) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট পুতিনের হুমকি বাস্তব বলে জানিয়েছেন বাইডেন। এর আগে বেলারুশে রাশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েনকে গত শনিবার ‘একদম দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে আখ্যায়িত করেছিলেন তিনি।

স্থানীয় সময় সোমবার ক্যালিফোর্নিয়ায় দাতাদের একটি দলকে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, ‘যখন আমি প্রায় দুই বছর আগে এখানে বলেছিলাম, কলোরাডো নদী শুকিয়ে যাওয়ার বিষয়ে আমি উদ্বিগ্ন, তখন সবাই আমাকে পাগলের মতো দেখেছিল। তারা আমার দিকে এমনভাবে তাকিয়েছিল যখন আমি বলেছিলাম কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়ে পুতিনের হুমকি সম্পর্কে আমি উদ্বিগ্ন। তবে এটা বাস্তব।’

গত সপ্তাহে বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো বলেন, তার দেশে রাশিয়ার কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র সরবরাহ করা শুরু হয়েছে। যার মধ্যে কিছু অস্ত্রকে তিনি ১৯৪৫ সালে হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিক্ষেপ করা পারমাণবিক বোমার চেয়ে তিনগুণ বেশি শক্তিশালী বলে দাবি করেন।

এর মাধ্যমে ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভাঙার পর এই প্রথম রাশিয়া তার সীমানার বাইরে পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েন করলো। রাশিয়ার বাইরে মোতায়েন করা এ ধরনের ওয়ারহেডগুলো স্বল্প-পাল্লার এবং কম শক্তিশালী পারমাণবিক অস্ত্র যা যুদ্ধক্ষেত্রে ব্যবহার করা যেতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, রাশিয়ার এই পদক্ষেপের প্রতিক্রিয়ায় কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্রের বিষয়ে ওয়াশিংটনের নিজের অবস্থান পরিবর্তন করার কোন ইচ্ছা নেই এবং রাশিয়া পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করার প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন কোন লক্ষণও যুক্তরাষ্ট্র পায়নি।

এর আগে গত মে মাসে বেলারুশে কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েনের পরিকল্পনা নিয়ে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সমালোচনাকে প্রত্যাখ্যান করে রাশিয়া বলেছিল, যুক্তরাষ্ট্র কয়েক দশক ধরে ইউরোপে এই জাতীয় পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েন করে এসেছে।

অবশ্য বেলারুশে রুশ পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েনের এ ঘটনাটি যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র দেশগুলোর পাশাপাশি চীনও ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। এছাড়া ইউক্রেনের যুদ্ধে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের বিরুদ্ধে বারবার সতর্ক করে এসেছে বেইজিং।

 

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন