চট্টগ্রাম রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪

শিক্ষকের সম্মানী দিতে ফুলের চাষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৯ জুন, ২০১৯ | ৪:০০ অপরাহ্ণ

পড়াশোনা থামলে চলবে না, শিক্ষকদের বেতন দিতে তাই স্কুলেই জুঁই ফুলের চাষ করছে শিক্ষার্থীরা। গাছের ফুল বিক্রি করেই তোলা হয় সরকারি বেতন না নেয়া শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সম্মানী।

ফুল বিক্রি করে শিক্ষকদের বেতন দেয়ার এই অভাবনীয় উপায় চালু করা হয় প্রায় ৮ বছর আগে।

ভারতের ম্যাঙ্গালোর থেকে প্রায় ৪০ কিমি দূরে বান্তওয়ালের ওজালা গ্রামের সরকারি লোয়ার প্রাইমারি স্কুলের পথ চলা শুরু ১৯৬৮ সালে। স্কুলের চৌহদ্দিতে পা রাখলেই নাকে ভেসে আসবে জুঁই ফুলের সুবাস। কিন্তু শুধুমাত্র মন ভালো করা অথবা স্কুলের সৌন্দর্যবৃদ্ধির জন্যই লাগানো হয়নি এই জুঁই ফুলের গাছ।

গাছের ফুল বিক্রি করেই তোলা হয় সরকারি বেতন না নেয়া শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সাম্মানিক বেতন। দুই সাম্মানিক শিক্ষকের হাতে যত্‍সামান্য বেতন তুলে দেয়ার জন্যেই এই পন্থা নিতে হয়েছিল স্কুল কর্তৃপক্ষকে। আর এই ভাবনা এসেছিল গ্রামবাসীদের থেকেই। শিক্ষকের অভাবে যাতে গ্রামের ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা বন্ধ হয়ে না যায়, তা সুনিশ্চিত করতেই স্কুল ডেভলপমেন্ট এন্ড মনিটরিং কমিটির (এসডিএমসি) কাছে জুঁই ফুলের চাষ করার প্রস্তাব দেন গ্রামবাসীরা। এসডিএমসি-র সভাপতি হোনাপ্পা গৌড়া জানিয়েছেন, ‘আমরা এই পথ চলা শুরু করেছিলাম ২৫টি জুঁই ফুলের গাছ দিয়ে। দু’বছরের মধ্যে বাগানে আরো ১০টি জুঁই ফুলের গাছ লাগাই। এই ফুল বিক্রি করেই বছরে ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা রোজগার হয় স্কুলের।’

 

পূর্বকোণ/ময়মী

শেয়ার করুন