চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

চিন্তার সঙ্গে কম্পিউটারকে সংযোগ

অনলাইন ডেস্ক

১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ৮:৩৯ অপরাহ্ণ

মানুষের মস্তিষ্কে প্রথমবারের মতো চিপ স্থাপন করেছে বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান নিউরালিংক। রবিবার এ চিপ স্থাপনের কাজটি করা হয়। ইলন মাস্ক নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করলেও তার প্রতিষ্ঠান নিউরালিংক এ বিষয়ে এখনো বিস্তারিত কোনো তথ্য দেয়নি। রয়টার্স।

সোমবার তার নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফরম এক্সে শেয়ার করা এক পোস্টে মানুষের মস্তিষ্কে চিপ স্থাপনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। রোগী কে বা তার নাম-পরিচয় কিছুই প্রকাশ করেননি ইলন মাস্ক। তবে রোগী সুস্থ হয়ে উঠছেন বলে জানান এ টেক-বিলিওনিয়ার। এক্স পোস্টে মাস্ক আরও জানান, প্রাথমিক ফল খুবই আশাব্যঞ্জক, নিউরনগুলোর স্পাইক বা স্নায়বিক সক্রিয়তা শনাক্ত করা হয়েছে। স্পাইক হচ্ছে নিউরনের সক্রিয়তা, যা বৈদ্যুতিক ও রাসায়নিক সংকেত ব্যবহার করে মস্তিষ্ক ও দেহের অন্যান্য অংশে তথ্য সরবরাহ করে।

যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) গত বছর নিউরালিংকে মানুষের মস্তিষ্কে চিপ বসানোর বিষয়টি পরীক্ষা করার জন্য ছাড়পত্র দিয়েছিল। মূলত পক্ষাঘাতগ্রস্ত ও স্নায়বিক সমস্যায় ভোগা রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে এটি একটি মাইলফলক। এরপর, গত বছরের সেপ্টেম্বরে মানুষের মস্তিষ্কে চিপ বসানোর আনুষ্ঠানিক অনুমতি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে নিউরালিংক। এ ডিভাইসের প্রথম লক্ষ হলো, মানুষের মস্তিষ্ককে কম্পিউটারের সঙ্গে সংযুক্ত করা, দ্বিতীয়টি হচ্ছে, মানুষের দেহের স্নায়বিক জটিলতা বা রোগের মোকাবিলা করতে সহায়তা করা।

মাস্ক তার কোম্পানির এ ডিভাইসকে ‘টেলিপ্যাথি’ নামে আখ্যা দিয়েছেন। আগের এক এক্স পোস্টে মাস্ক বলেছেন, ব্রেইন চিপ মানুষের চিন্তার সঙ্গে কম্পিউটারকে সংযোগ ঘটাবে। চিপটি মস্তিষ্কে স্থাপনের ফলে কোনো স্পর্শ ছাড়াই মানুষ শুধু চিন্তার মাধ্যমে কম্পিউটারের কার্সার বা কি-বোর্ড নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে। তাছাড়া মস্তিষ্কের কোন অংশে কী ঘটছে বা মানুষ কী চিন্তা করছে, এমনকি কোনো স্নায়ুর সমস্যা দেখা দিলে সেটিও শনাক্ত ও তথ্য রেকর্ড করতে পারবে এ ব্রেইন চিপ। তথ্যসূত্র: যুগান্তর

পূর্বকোণ/সাফা

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট