চট্টগ্রাম সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

খসড়া প্রকাশ

সর্বনিম্ন সাড়ে ১২ হাজার, সর্বোচ্চ ১৪,৭৫০ টাকা পাবেন পোশাক শ্রমিকরা

অনলাইন ডেস্ক

১২ নভেম্বর, ২০২৩ | ১০:৪২ অপরাহ্ণ

পোশাক খাতে ঘোষিত মজুরির খসড়া সুপারিশের গেজেট প্রকাশ করেছে সরকার। এতে শ্রমিক-কর্মচারীদের গ্রেডভিত্তিক মজুরি কাঠামো প্রকাশ করা হয়েছে। প্রকাশিত খসড়ায় দেখা যায়, গ্রেড–১ বা সিনিয়র অপারেটর পদের শ্রমিকদের মোট মজুরি ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ৭৫০ টাকা। এরমধ্যে মূল মজুরি ৮ হাজার ২০০ টাকা, মূল মজুরির ৫০ শতাংশ হিসেবে ৪ হাজার ১০০ টাকা বাড়িভাড়া,৭৫০ টাকা চিকিৎসা ভাতা, ১ হাজার ২৫০ খাদ্যভাতা ও যাতায়াত ভাতা ৪৫০ টাকা। এই গ্রেডে ১০ ধরনের কাজ করা শ্রমিকরা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। নিম্নতম মজুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী মোল্লার সই করা গেজটটি রোববার প্রকাশ করা হয়।

 

সব ধরনের মেশিনের অপারেটররা গ্রেড–২ ভুক্ত। এই পদে মোট মজুরি ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ১৫০ টাকা। এর মধ্যে মূল মজুরি ৭ হাজার ৮০০ টাকা। জুনিয়র অপারেটররা গ্রেড–৩ ভুক্ত। এই পদে মোট মজুরি ১৩ হাজার ৫৫০ টাকা। এরমধ্যে মূল মজুরি ৭ হাজার ৪০০ টাকা। গ্রেড–৪ ভুক্ত সাধারণ অপারেটর পদে মোট মজুরি ১৩ হাজার ২৫ টাকা। এর মধ্যে মূল মজুরি ৭ হাজার ৫০ টাকা। এছাড়া গ্রেড–৫ ভুক্ত সহকারী অপারেটর পদের মজুরি ধরা হয়েছে ১২ হাজার ৫০০ টাকা, যার মধ্যে মূল মজুরি ৬ হাজার ৭০০ টাকা। গ্রেডভুক্ত শ্রমিকের বাইরে শিক্ষানবিস শ্রমিকদের মোট মজুরি ধরা হয়েছে ৯ হাজার ৮৭৫ টাকা। তিন মাসের শিক্ষানবিসকাল শেষ হওয়ার পর স্থায়ী গ্রেডে উন্নীত হওয়ার সুযোগ রয়েছে।

 

গেজেটে প্রকাশিত সুপারিশের ওপর মালিক, শ্রমিক কিংবা যেকোন সাধারণ মানুষের পক্ষে আপত্তি কিংবা প্রস্তাব দেওয়ার সুযোগ রয়েছে। গেজেট প্রকাশের ১৪ দিনের মধ্যে মজুরি বোর্ড বরাবর তা পাঠানো যাবে। এ মাসেই চূড়ান্ত গেজেট প্রকাশ করা হবে। আগামী মাস থেকে কার্যকর হবে নতুন মজুরি কাঠামো। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে বর্ধিত মজুরি হাতে পাবেন শ্রমিক–কর্মচারীরা।

 

গত মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় নিম্নতম মজুরি বোর্ডের বৈঠকে পোশাক খাতের শ্রমিক–কর্মচারীদের মজুরি নির্ধারণ করা হয়। পরে সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে নতুন মজুরি কাঠামো ঘোষণা করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মৌখিক নির্দেশেই মজুরি নির্ধারণের কথা জানান তিনি।

 

শ্রমিকদের পাশাপাশি আলাদা গ্রেড রয়েছে পোশাক কারখানার কর্মচারীদের। খসড়া প্রস্তাবের গেজেট অনুযায়ী, গ্রেড–১ পর্যায়ের কর্মচারীদের মজুরি ধরা হয়েছে ১৮ হাজার ৮০০ টাকা। যার মধ্যে মূল মজুরি ১০ হাজার ৯০০ টাকা। এক্ষেত্রেও মূল মজুরির ৫০ শতাংশ বাড়ি ভাড়া ধরা হয়েছে। গ্রেড–২ ভুক্ত কর্মচারীদের মজুরি ধরা হয়েছে ১৫ হাজার ৯৫০ টাকা। গ্রেড–৩ ভুক্ত কর্মচারীদের ১৫ হাজার ২০০ এবং গ্রেড–৪ ভুক্তদের মজুরি ধরা হয়েছে ১২ হাজার ৮০০ টাকা। কর্মচারীদের মজুরি কাঠামোয় পঞ্চম গ্রেড নেই। শিক্ষানবিস কর্মচারীদের মোট মজুরি ধরা হয়েছে ৯ হাজার ৯৫০ টাকা। কর্মচারীদের ক্ষেত্রে ৬ মাসের শিক্ষানবিসকাল পর স্থায়ী হওয়ার সুযোগ রয়েছে।

 

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট