চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ:

সংসার-সন্তান সামলে বাংলাদেশ ব্যাংকের এডি হলেন জান্নাত

চন্দনাইশ সংবাদদাতা

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ | ১১:৩৮ অপরাহ্ণ

মাস্টার্সে পড়ার সময়ই বসতে হয় বিয়ের পিঁড়িতে। এরপর সংসারের কাজ সামলাতে সামলাতে হয়ে পড়েন পুরোদস্তুর গৃহিণী। এর বাইরেও ছিল নানা বাধা। কিন্তু এর মধ্যেই একটু সময় পেলে চোখ বুলিয়ে গেছেন বইয়ের পাতায়। সেই সংগ্রাম আর কষ্টের দিনগুলো বৃথা যায়নি। প্রথমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে পরীক্ষা দিয়েই তিনি মনোনীত হয়েছেন।

 

অদম্য এই তরুণীর নাম জান্নাতুল ফেরদৌস। বাংলাদেশ ব্যাংকে সহকারী পরিচালক (গবেষণা) পদে ২৫ হাজার পরীক্ষার্থীর মধ্যে এডি নির্বাচিত হয়েছেন ১৯ জন। তৎমধ্যে তিনি ১২তম স্থানে রয়েছেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে স্নাতক-স্নাতকোত্তর পাস করেন এই নারী।

 

জান্নাতুল ফেরদৌস চট্টগ্রামের চন্দনাইশের দোহাজারী চাগাচরের অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা আমির হোসেনের মেয়ে।

 

এর আগে, স্নাতক শ্রেণির ফলাফলের উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কর্তৃক ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ ১৯ এর জন্যও মনোনীত হয়েছেন জান্নাতুল ফেরদৌস। অর্থনীতি বিভাগ থেকে ৩.৭২ সিজিপিএ পেয়ে তিনি এ কৃতিত্ব অর্জন করেন।

 

জান্নাতুল ফেরদৌস তার সফলতা সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেছেন, ভালো ফলাফলের জন্য পরিশ্রমের বিকল্প নেই। তিনি পরিশ্রম আর কৌশল দুটোকে বিকল্প না ভেবে পরিপূরক বিবেচনা করেছিলেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদে ৭ম স্থান অধিকার করেছিলেন। সে উৎসাহ থেকে ১ম বর্ষে ভালো ফলাফলের ইচ্ছাপোষণ করে সফল হয়েছেন। প্রতিদিন নোট করতেন, নিয়মিত ক্লাসে উপস্থিত থাকতেন। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান শহর থেকে কিছুটা দূরে হওয়ায় সমস্যা পোহাতে হয়েছিল তার। ভালো ফলাফলের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ অনুকূলে ছিল। বিভাগীয় শিক্ষকদের সহযোগিতামূলক মনোভাব তার কাজে লেগেছে বলে স্বীকার করেন।

 

এক্ষেত্রে তিনি তার শিক্ষক প্রফেসর আলাউদ্দিনের জীবনাদর্শ অনুসরণীয় বলে মনে করেন। তিনি অর্থনীতি নিয়ে যেহেতু পড়াশোনা করেছেন এ বিষয়ে পেশাগত কাজে জড়িত থাকার ইচ্ছাপোষণ করেছিলেন এবং তা বাংলাদেশ ব্যাংকে সহকারী পরিচালক হিসেবে উত্তীর্ণ হওয়ায় তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হতে চলেছে। অর্থনীতিতে সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহারের মাধ্যমে উৎপাদন নিশ্চিত করার বিষয়টি নিয়ে পড়ালেখা করেছেন। তার ভালো ফলাফলের জন্য পিতা-মাতাসহ পরিবারের সহযোগিতার জন্য সকলের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

 

বর্তমানে তিনি দোহাজারী আফজল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। তার স্বামী আ.ক.ম সাদেক হোসেন পরিসংখ্যান কর্মকর্তা হিসেবে ঢাকায় কর্মরত আছেন। বর্তমানে সে এক সন্তানের মা। জান্নাতুল ফেরদৌস ২০১১ সালে দোহাজারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে জিপিএ ৪.৯৪, ২০১৩ সালে হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ থেকে এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়ে কৃতী শিক্ষার্থী হিসেবে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন।

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট