চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

নগরীতে আবারো বিলবোর্ড !

ইফতেখারুল ইসলাম

১৩ মে, ২০১৯ | ২:৪১ পূর্বাহ্ণ

নগরীতে আবারো ফিরে আসছে বিলবোর্ড? নগরীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট জিইসি মোড়ের ফুটপাতের উপর ইতিমধ্যে লোহার খুঁটি স্থাপন করে বিলবোর্ডের ফ্রেম বসানো হয়েছে। এছাড়া মোড়ের বিভিন্ন ভবনের গায়ে অনেকটা বিলবোর্ডের মত করে বিভিন্ন পণ্যের বড় বড় ব্যানার লাগানো হয়েছে। অপরদিকে, আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের নিচে লাগানো হয়েছে অসংখ্য বেল সাইন। তবে সিটি মেয়র বলেছেন এসব বিলবোর্ড অবৈধ। সব অপসারণ করা হবে।
সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে, নগরীর জিইসি মোড়ের গৃহায়ণ ও গণপূর্তের দেয়াল ঘেঁষে ফুটপাতের উপর একটি বিলবোর্ডের অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন আইনানুযায়ী ফুটপাতের উপর কোন স্থাপনা নির্মাণের সুযোগ নেই। এছাড়া মোড়ের কয়েকটি ভবনের গায়ে লাগানো হয়েছে বড় আকারের বিজ্ঞাপনী ব্যানার। এছাড়া আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের নিচে বেল সাইনেও লাগানো হয়েছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাপড়ের বিজ্ঞাপন। যার অনুমোদন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন দেয়নি। নগরীর মুরাদপুরেও দেখা গেছে একটি ভবনের সাথে একটি কোম্পানির বিশাল সাইনবোর্ড। মুরাদপুর মোড়ে নির্মাণাধীন ফুটওভার ব্রিজের পাশে এই বিশাল সাইন বোর্ডটি লাগানো হয়েছে। এভাবে নগরীর আরো বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ মোড় এবং সড়কের পাশে বড় বড় সাইন বোর্ড লাগানো হয়েছে।
সচেতন মহলের অভিমত, সিটি মেয়র অনেক রাজনৈতিক এবং প্রশাসনিক অনুরোধ উপেক্ষা করে অত্যন্ত দৃঢ়তার সাথে বন্দর নগরী থেকে সাইনবোর্ড-বিলবোর্ডের জঞ্জাল পরিষ্কার করেছেন। এটি তাঁর একটি বড় সাফল্য। এখন ধীরে ধীরে এই বিলবোর্ড এবং সাইনবোর্ড আবার ফিরে আসছে। প্রথমে তারা একটু ছোট আকারের করছে। প্রথমদিকে তা অপসারণ না করলে আবারো সেই বিলবোর্ডের জঞ্জালের শহরে পরিণত হবে প্রাচ্যের রাণী।
জানতে চাইলে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন পূর্বকোণকে বলেন, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে একাজ করছে। যারা করছে, তারা অত্যন্ত নীতি গর্হিত কাজ করছে। এসব বিলবোর্ড অবৈধ উল্লেখ করে বলেন, সব বিলবোর্ড অপসারণ করা হবে। তিনি বলেন, নগরবাসীর দাবি ছিল এই শহরের দৃশ্যদূষণ বন্ধ করা। এই শহরের আকাশকে মুক্ত করা। তাদের দাবি অনুযায়ী শহরের বিলবোর্ডকে চিরতরে মুক্ত করেছি। কোন সুযোগ সন্ধানী নগরীর সৌন্দর্য বিনষ্ট করার অপচেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোথাও বিলবোর্ড দেখলে তা অপসারণ করা হবে।
উল্লেখ্য, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের আগে নির্বাচনী ইশতেহারে নগরী থেকে বিলবোর্ডের জঞ্জাল অপসারণের ঘোষণা দিয়েছিলেন। নির্বাচিত হয়েই তিনি প্রথমেই বিলবোর্ড অপসারণের কাজ শুরু করেন। দিনে অপসারণ কাজ চালানোর পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটের সাহায্যে রাতেও বিলবোর্ড অপসারণ করা হয়। সিটি মেয়রের এই কাজকে নগরবাসী স্বাগত জানায়।

শেয়ার করুন