চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

ফাইল ফটো

কাউন্সিলর বিপ্লবের বিরুদ্ধে নারী পুলিশের সঙ্গে অশোভন আচরণের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ মে, ২০১৯ | ১১:০৬ অপরাহ্ণ

নগরীর কোতোয়ালি থানায় শিক্ষানবীশ একজন (পিএসআই) নারী পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে মারমুখী আচরণের অভিযোগ উঠেছে নগরীর ফিরিঙ্গি বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লবের বিরুদ্ধে। বিএনপি সমর্থিত রকিবুল আলম নামে একজন প্রাইভেটকার চালককে ছাড়িয়ে আনতে থানায় গেলে ওই নারী পুলিশ কর্মকর্তার সাথে কাউন্সিলরের বাকবিতন্ডা হয়। পরে অবশ্য ঘটনার জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন সরকার দলীয় এ কাউন্সিলর। এ ঘটনায় বিপ্লবের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভ্যন্তরীণ সাধারন ডায়েরী (জিডি) করেছে পুলিশ। কাউন্সিলর বিপ্লব সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারি।
থানায় দায়ের করা সাধারন ডায়েরীতে বলা হয়, শনিবার বিকালে কোতোয়ালী থানার জিপিও মোড়ে ট্রাফিক আইন না মেনে গাড়ি চালানোর কারণে প্রাইভেট কার চালক রকিবুলের সঙ্গে এক ট্রাফিক কনস্টেবলের কথা কাটাকাটি হয়। রকিবুল ওই কনস্টেবলের সঙ্গে মারমুখী আচরণ করায় থানা পুলিশের সহায়তা চায়। এ সময় কোতোয়ালী থানা পুলিশের একটি দল গিয়ে রকিবুলকে থানায় ধরে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে দলবল নিয়ে কাউন্সিলর বিপ্লব সন্ধ্যায় থানায় গিয়ে রকিবুলকে ছেড়ে দিতে তদবির করেন।
তখন বিপ্লব থানায় ডিউটি অফিসারের দায়িত্বে থাকা এসআই নেলী দাশের সঙ্গে মারমুখী আচরণ করেন বলে অভিযোগ আনা হয়।
সাধারন ডায়েরীতে উল্লেখ করা হয়েছে “বিষয়টি নিয়ে পরে কাউন্সিলর বিপ্লব ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির পুলিশের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন,। পত্রিকায় নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতক্ষদর্শী কয়েকজন পুলিশ সদস্য জানান, রকিবুল নামে ওই প্রাইভেট কার চালককে থামার জন্য সংকেত দিয়েছিলো ট্রাফিক কনস্টেবল আবুল কালাম। তিনি সংকেত না মেনে গাড়ি চালিয়ে গেলে ট্রাফিক কনস্টেবল গাড়িটি গতিরোধ করেন। এতে রকিবুল গাড়ি থেকে নেমে ক্ষিপ্ত হয় ট্রাফিক কনস্টেবলের সাথে মারমুখী আচরন করেন। খবর পেয়ে কোতোয়ালি থানা থেকে পুলিশের একটি টিম গিয়ে রকিবুলকে থানায় নিয়ে আসে।
সন্ধ্যার দিকে ১০/১২ জন অনুসারি নিয়ে থানায় আসেন কাউন্সিলর বিপ্লব। রকিবুলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ না করার অনুরোধ করেন কনস্টেবল কালামকে। এ সময় কালামতে চলে যেতে বলেন এসআই নেলী দাশ। এতে বিপ্লব উত্তেজিত হয়ে পিএসআই নেলী তাকে চেনেন কি না জানতে চান এবং তার চাকরি কেড়ে নেওয়ার হুমকির পাশাপাশি মারমুখী আচরণ করেন।
জানতে চাইলে কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন জানান,“নারী পুলিশ কর্মকর্তার সাথে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছিল তার। তবে বিষয়টি নিয়ে থানায় ওই কর্মকর্তার কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন কাউন্সিলর।”নগরীর ফিরিঙ্গী বাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব যুবলীগের চট্টগ্রাম মহানগরের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী হিসেবে পরিচিতি রয়েছে তার। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) বোর্ড সদস্যও তিনি।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট