চট্টগ্রাম শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪

হিরোজম দেখাতে গিয়ে তারা জড়িয়ে পড়ছে নানা অপরাধে

‘কিশোররা কেউ কাউকে সম্মান করে না, সামাজিক অবক্ষয়ই দায়ী’

অনলাইন ডেস্ক

১০ জুন, ২০২৪ | ৯:২৭ অপরাহ্ণ

কিশোর বা তরুণদের ছোট খাটো বিষয়কে ধৈর্যের সাথে মোকাবিলা না করার প্রবণতাও আমাদের সমাজে কমে গেছে। কেউ কাউকে সম্মান না করা বা সহ্য না করার প্রবণতা কিশোরদের মধ্যে বাড়ছে। যার কারণে হিরোজম দেখাতে গিয়ে জড়িয়ে পড়ছে নানা অপরাধে। এসব ঘটনার জন্য সামাজিক অবক্ষয়ই দায়ী।

 

পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত এলাকায় মোটরসাইকেলের সাইলেন্সার পাইপের শব্দকে কেন্দ্র করে মারামারিতে পোশাককর্মী রাফি হত্যাকাণ্ডে ৭ আসামি গ্রেপ্তারের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলনে নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাকিলা সোলতানা এসব কথা বলেন। সোমবার (১০ জুন) বন্দর জোনের উপ-কমিশনারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

 

এসময় শাকিলা সোলতানা বলেন, রাফির ঘটনার নেপথ্যেও কিশোর গ্যাংয়ের সম্পৃক্ততা আছে কিনা খতিয়ে দেখা হবে। কারণ যারা ঘটনাস্থলে ছিল তারা বয়সে বেশিরভাগ কিশোর। তাদের যে বয়স এই বয়সে এত রাতে বিচে থাকার উপযুক্ত ছিলো না। তারা বিচে গিয়েছিলো আনন্দ করতে। পূর্বপরিকল্পিত না হলেও যারা সেখানে গিয়েছিলো আমার মনে হয় তারা ভালো পরিবারের সন্তান না। আমার মনে হয় তারা কিশোর গ্যাং সদস্য হতে পারে। কোনো রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় আছে কিনা খতিয়ে দেখতে হবে।

 

এর আগে রবিবার ভোর ৪টা ২০ মিনিটের দিকে মোটরসাইকেলের সাইলেন্সার পাইপের উচ্চ শব্দ নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে বাকবিতণ্ডা থেকে সংঘর্ষে মনিরুজ্জামান রাফি নামের এক যুবক নিহত হয়। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় রায়হান নামের আরও একজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। 

 

 

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট