চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

আদা কাঁচা মরিচের ঝাঁজে অস্থিতিশীল কাঁচাবাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৪ মে, ২০২৪ | ১১:২০ পূর্বাহ্ণ

বন্দরনগরীর বাজারে গেল এক সপ্তাহের ব্যবধানে শসা, পটল, বরবটি, ঢেঁড়স, চিচিঙ্গাসহ কিছু সবজির দাম কমলেও দাম বেড়েছে আদা-কাঁচা মরিচের। এতে সবজির দাম কমার সুফল মলিন হয়েছে আদা-কাঁচা মরিচের ঝাঁজে। এরমধ্যে আসন্ন কোরবানির ঈদকে ঘিরে উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ছে মসলার বাজারে। সপ্তাহের ব্যবধানে এলাচ, গোলমরিচ ও লবঙ্গসহ নানা মসলা পণ্যের দাম বেড়েছে ২০ থেকে দেশ টাকা পর্যন্ত। তবে স্থিতিশীল রয়েছে পেঁয়াজ, তেল, ডালসহ নানা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। প্রায় অপরিবর্তিত রয়েছে মাছ-মাংসের দামও।

 

 

গতকাল নগরীর অক্সিজেন, চকবাজার, বহদ্দারহাট, আতুরার ডিপো, কাজীর দেউড়ি, কর্ণফুলী কমপ্লেক্স, খাতুনগঞ্জ, রিয়াজউদ্দিন বাজারসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে এই চিত্র।

 

 

সপ্তাহের ব্যবধানে দাম কমেছে শসা, পটল, বরবটি, ঢেঁড়স, চিচিঙ্গা ও বেগুনের। এরমধ্যে ১০ টাকা দাম কমে শসা ৫০, ২০ টাকা দাম কমে পটল এবং বরবটি ৪০, কাকরলের দাম ২০ টাকা কমে ৮০, ১০-১৫ টাকা দাম কমে চিচিঙ্গা ও ঢেঁড়স ৫০ এবং বেগুন ২০ টাকা কমে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে ৬০-৮০ টাকা বেড়েছে আদা ও কাঁচা মরিচের দাম। গতকাল নগরীর বাজারে আদা ২৮০ এবং কাঁচা মরিচ ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। গাজরের দামও বেড়েছে ৪০ টাকা, বর্তমানে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে সবজিটি। প্রায় অপরিবর্তিত রয়েছে অন্যান্য সবজির দাম। বর্তমানে টমেটো ৫০, লাউ ৪০, মিষ্টি কুমড়া ৪০, আলু ৬০, পেঁপে ৮০, করলা ৬০, ফুলকপি ৬০, ধুন্দল ৫০, কচুরমুখী ৮০, ঝিঙে ৬০ এবং লতি ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

 

 

এদিকে কোরবানির ঈদ ঘিরে উত্তাপ বেড়েছে মসলার বাজারে। নগরে খুচরায় সাড়ে তিন থেকে চার হাজার টাকা এলাচ, দারুচিনি ৬০০, গোলমরিচ ১ হাজার, লবঙ্গ ২ হাজার টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

 

 

তবে স্থিতিশীল রয়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। বর্তমানে আকার ও জাত ভেদে দেশি পেঁয়াজ ৭৫-৮০, সয়াবিন তেল ১৫০, পাম তেল ১৩৪, ৫ লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেল ৮০০, চিনি ১৩০ এবং মসুর ডাল ১১০ থেকে ১৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে নগরে।

 

 

প্রায় অপরিবর্তিত রয়েছে মাছ-মাংসের দাম। গতকাল ব্রয়লার মুরগি ২১০, সোনালি ৩৪০ এবং দেশি মুরগি ৫৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। এর বাইরে গরুর মাংস ৮০০ থেকে সাড়ে ৯শ এবং ছাগলের মাংস ১ হাজার ৫০ থেকে ১১’শ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। অন্যদিকে আকার ভেদে রুই ২৬০ থেকে ৩৬০, কাতলা ৩২০ থেকে ৩৬০, মৃগেল ২০০-২৫০, আকার ভেদে পাঙ্গাস ১৮০-২০০, তেলাপিয়া ২০০-২২০, স্যালমন ফিশ ৪৫০, বাগদা চিংড়ি ৮০০, রূপচাঁদা জাত ও আকার ভেদে ৫৫০ থেকে ৬০০, পোয়া মাছ ২৫০, পাবদা ৩৫০ থেকে ৪০০, সুরমা ৩৫০ থেকে ৬৫০, টেংরা ৩৭০ এবং নারকেলি মাছ ২৫০, পোয়া মাছ ২৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

পূর্বকোণ/এসএ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট