চট্টগ্রাম সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪

নির্বাচন ১৩ জুন, ২৪ পরিচালক পদের বিপরীতে প্রার্থী ২৬

এবার বনেদি ব্যবসায়ী পরিবারের প্রতিনিধিত্ব

কামরুল ইসলাম

৬ মে, ২০১৯ | ২:৪৭ পূর্বাহ্ণ

ব্যবসায়ী-শিল্পপতিদের পার্লামেন্ট খ্যাত চিটাগাং চেম্বারের নেতৃত্বে এবারে আসছে এ কে খান শিল্পগোষ্ঠিসহ বনেদি ব্যবসায়ী-শিল্পপতি পরিবারের প্রতিনিধিত্ব। চেম্বার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য গতকাল রবিবার ব্যবসায়ী-শিল্পপতিরা বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে মনোনয়নপত্র পেশ করেছেন। এ উপলক্ষে গতকাল দিনভর জমজমাট ছিল আগ্রাবাদে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার।
নির্বাচন আগামী ১৩ জুন। মনোনয়নপত্র পেশের শেষ সময় অতিক্রান্ত হওয়ার পর বৈধ প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন। ২৪ পরিচালক পদের বিপরীতে প্রার্থিতা পেশ করেছেন ২৬ জন। এদের মধ্যে বর্তমান পর্ষদের রয়েছেন ১৩ জন। অপর ১১ জন এবারে প্রার্থী হননি। এবারে সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হলো এ কে খান শিল্পগোষ্ঠির চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন কাসেম খান-এর প্রার্থী হওয়া। তাঁর প্রার্থী হওয়ার সংবাদ সর্বস্তরের ব্যবসায়ীদের মধ্যে নতুন করে আগ্রহ তৈরি করেছে চিটাগাং চেম্বারকে নিয়ে। এ কে খান শিল্পগোষ্ঠি ছাড়াও চট্টগ্রামের বৃহৎ ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাউসগুলোর এ প্রজন্মের ব্যবসায়ীরা প্রার্থী হয়েছেন। টি কে গ্রুপ, কবির গ্রুপ ( কেএসআরএম ), হাবিব গ্রুপ, প্যাসিফিক জিন্স, এশিয়া গ্রুপ, ক্লিফটন গ্রুপ, আরামিট গ্রুপ, সাইফপাওয়ারটেক লিমিটেড ইত্যাদি থেকে প্রার্থী রয়েছেন। রত্নগর্ভা চিটাগাং চেম্বারে আসুক সব শ্রেণির ব্যবসায়ী, শিল্পপতিদের প্রতিনিধিত্ব এবং এমন প্রতিনিধিত্ব আসুক যাদের জবাবদিহিতা থাকবে ব্যবসায়ী শিল্পপতিদের কাছে-এই প্রত্যাশা সাধারণ ব্যবসায়ীদের বহুদিনের। এবারে সেটাই হতে যাচ্ছে বলে মনে করছেন তারা।
ঐতিহ্যবাহী চিটাগাং চেম্বারের নির্বাচনে হারজিতের নিয়ন্ত্রক ছিলেন অনেকে। সেটা এখন অতীত ইতিহাস। সরকার দলীয় সাংসদ এম আবদুল লতিফ একচেটিয়া নিয়ন্ত্রক গত এক যুগ ধরে। তিনি ইতিপূর্বে চেম্বারের সভাপতি ছিলেন। তাঁর সমর্থিতরা ক্ষমতায় কয়েক মেয়াদ ধরে। বিগত নির্বাচনে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। এবারও সেই সম্ভাবনা প্রবল তাই এম এ লতিফ সমর্থিত প্যানেলে স্থান পাওয়ার জন্য অনেক আগে থেকে চলে বিভিন্ন পর্যায়ে নানা চেষ্টা। নির্বাচনী শিডিউল ঘোষণার পর থেকে প্রচুর তদবির সাংসদ লতিফের কাছে। প্রভাবশালী বিভিন্ন মহল, রাজনৈতিক দল, ব্যবসায়ী, শিল্পপতি গ্রুপ থেকে বিপুল সুপারিশে তিনি অতিষ্ঠ হয়ে উঠেন বলে জানান তাঁর ঘনিষ্ঠরা। অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছে যে গত কয়েকদিন ধরে তিনি মোবাইল ফোন বন্ধ রাখেন। যোগাযোগ করা হলে এম এ লতিফ দৈনিক পূর্বকোণ প্রতিনিধিকে বলেন, ‘রাতভর অনেক যাচাই করার পর সকালেও হাতে ছিল ৫০/৬০ জনের বিশাল তালিকা। সেখান থেকে ২৪ জনকে বাছাই করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয়েছে। নবীন প্রবীণের সমন্বয়ে সব শ্রেণির প্রতিনিধিত্ব নিয়ে মাহবুব-কাসেম খান প্যানেল সাজানো হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।’
নির্বাচন কমিশন সূত্রে পাওয়া প্রার্থী তালিকা বিশ্লেষণে ধারণা পাওয়া যায় যে এসোসিয়েট ক্লাসের ৬, টাউন এসোসিয়েশনের ৩ এবং ট্রেড গ্রুপের ৩ পরিচালক পদে অধিক প্রার্থী না থাকায় নির্বাচন হবে না। অর্থাৎ এই ১২ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন। অর্ডিনারি ক্লাসে ১২ পরিচালক পদের বিপরীতে সাংসদ লতিফ সমর্থিত ১২ জনের বাইরে আরও দু’জন অর্থাৎ মোট ১৪ জন মনোনয়নপত্র পেশ করেছেন। অতিরিক্ত দু’জন প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে এখানে নির্বাচন হবে। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষদিন আগামী ১৯ মে। ২৪ পরিচালকের মধ্যে থেকে আগামী ১৫ জুন নির্বাচিত হবেন সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং সহ-সভাপতি।
২০১৯-২০২০ এবং ২০২০-২০২১ মেয়াদের এই নির্বাচনের কমিশনার আলহাজ আবদুল মান্নান মজুমদার এবং মোহাম্মদ আলী চৌধুরী গতকাল বিকেলে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেন। প্রার্থীরা হলেন:
অর্ডিনারি ক্লাস-আনিসুজ্জামান চৌধুরী ( জাবেদ স্টিল মিলস লি.), অঞ্জন শেখর দাস ( আরএসবি ইন্ডাস্ট্রিয়াল লি), হাসনাত মোহাম্মদ আবু ওবায়দা ( টি কে গ্রুপ ), এম মহিউদ্দিন চৌধুরী ( ক্লিফটন গ্রুপ ), রকিবুর রহমান টুটুল ( সভাপতি, বাংলাদেশ পোল্ট্রি বিডার এসোসিয়েশন), শাহরিয়ার জাহান (কবির গ্রুপ, কেএসআরএম স্টিল), মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন ( নাদের জাহান কর্পোরেশন), মুজিবুর রহমান (স্মার্ট জিন্স) , নাজমুল করিম চৌধুরী ( পাওয়ারবাংলা কর্পোরেশন ), ওমর হাজ্জাজ ( ব্লু এনার্জি লি.), এসএম আবু তৈয়ব ( ইন্ডেপেন্ডেন্ট এপারেলস ), সালমান হাবিব ( হাবিব গ্রুপ ), শাহজাদা মো. ফৌজুল আলেফ খান ( সাজেদা এন্টারপ্রাইজ ) এবং সৈয়দ মোহাম্মদ তানভির ( প্যাসিফিক জিন্স )।
এসোসিয়েট ক্লাস- এ কে এম আকতার হোসেন (সভাপতি: চিটগাং সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশন ), মাহবুবুল আলম ( বর্তমান সভাপতি-চিটাগাং চেম্বার ), মো. অহিদ সিরাজ চৌধুরী (মেসার্স চৌধুরী ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল ), সাকিফ আহমেদ ছালাম ( এশিয়া গ্রুপ ), সৈয়দ সগীর আহমদ ( সাব্বির ট্রেডিং ) এবং তাজমিম মোস্তফা চৌধুরী ( পরিচালক স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট )।
টাউন এসোসিয়েশন- তরফদার মো. রুহুল আমিন ( ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফপাওয়ারটেক লিমিটেড ), আবদুল মান্নান সোহেল ( কবির এন্টারপ্রাইজ ) এবং মোহাম্মদ জহুরুল আলম ( শাফায়েৎ এন্টারপ্রাইজ )।
ট্রেড গ্রুপ- সালাহউদ্দিন কাসেম খান ( চেয়ারম্যান: এ কে খান গ্রুপ), বেনজির চৌধুরী ( গোল্ডেন কন্টেইনারস লি.) এবং সৈয়দ জামাল আহমেদ ( বর্তমান সহ সভাপতি চিটাগাং চেম্বার )।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট