চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪

সর্বশেষ:

৮০ ভাগ কিডনি বিকল ৩ কারণে

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ মার্চ, ২০২৪ | ১১:২২ পূর্বাহ্ণ

তিন কারণে প্রায় ৮০ ভাগ মানুষের কিডনি বিকল বা নষ্ট হচ্ছে উল্লেখ করে চিকিৎসকরা বলেছেন, শুধুমাত্র সচেতন হলেই ৫০ থেকে ৬০ ভাগ ক্ষেত্রে কিডনি বিকল হওয়া থেকে প্রতিরোধ করা সম্ভব।

 

চিকিৎসকরা জানান, কিডনি রোগের প্রধান ঝুঁকির কারণ ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ। এরমধ্যে ৮০ ভাগ মানুষের ক্ষেত্রে কিডনি নষ্টের জন্য দায়ী এ ডায়াবেটিক, উচ্চ রক্তচাপ ও নেফ্রাইটিস (কিডনির বিভিন্ন সমস্যা)।

 

গতকাল চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে আয়োজিত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে এসব কথা বলেন চিকিৎসকরা। কিডনি দিবস উপলক্ষে সেমিনারটির আয়োজন করে হাসপাতালের কিডনি রোগ বিভাগ। বিভাগটির বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. নুরুল হুদার সভাপতিত্বে সেমিনারে অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সাহেনা আক্তার ও চমেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. শামীম আহসান। জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. মেরিনা আরজুমান্দ’র সঞ্চালনায় সেমিনারে কিডনি রোগ ও রমজান বিষয়ক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সহকারী অধ্যাপক ডা. রোসান্না বিনতে কামাল।

 

সেমিনের বলা হয়, প্রায় ১০-৩০ শতাংশ বা আরও বেশি নেফ্রাইটিসের কারণে (কিডনির বিভিন্ন সমস্যা), ২০-৩০ শতাংশ ডায়াবেটিসের কারণে এবং ১০-২০ শতাংশ কিডনি বিকল হয় উচ্চ রক্তচাপের কারণে। এছাড়া বংশগত কারণে, ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাল সংক্রমণে, কিডনিতে পাথর হলে, অস্বাস্থ্যকর ডায়েটে এবং ওষুধের প্রভাবেও কিডনিজনিত রোগ হতে পারে।

কিডনি রোগ বিভাগের প্রধান ডা. মো. নুরুল হুদা বলেন, দীর্ঘমেয়াদি কিডনি রোগের প্রধান কারণই হচ্ছে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ। স্থূলতার সঙ্গেও এ রোগের সম্পর্ক আছে। কিডনিতে পাথর, ক্যানসার ও দীর্ঘমেয়াদি কিডনি রোগের সঙ্গে স্থূলতা জড়িত। ধূমপান কিডনিতে রক্ত চলাচল ব্যাহত করে, এমনকি কিডনি ক্যানসারেরও ঝুঁকি বাড়ায়। তাই এ রোগ থেকে বাঁচতে সচেতনতা বাড়ানোর বিকল্প নেই।

 

এদিকে, সেমিনার শেষে রোগী ও সাধারণ জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে বেলুন উড়িয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার উদ্বোধন করা হয়। এ শোভাযাত্রা শাহ আলম বীর উত্তম মিলনায়তনের সামনে থেকে গোলচত্বরে গিয়ে শেষ হয়। অন্যদিকে, কিডনি দিবস উপলক্ষে চমেক হাসপাতালে কর্মরত নার্সদের প্রাথমিক কিডনি রোগ শনাক্তকরণ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। তিনদিনব্যাপী এ কর্মসূচিতে ছয় শতাধিক নার্স অংশ নেন।

 

উল্লেখ্য, প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী কিডনি রোগ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মার্চ মাসের দ্বিতীয় বৃহস্পতিবার বিশ্ব কিডনি দিবস পালিত হয়ে থাকে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য- ‘সুস্থ কিডনি সবার জন্য’।

পূর্বকোণ/পিআর 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট