চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪

চট্টগ্রামে এক ল্যাবের কার্যক্রম বন্ধ, শাস্তির মুখে ৭ ল্যাব-হাসপাতাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ৯:৪৪ অপরাহ্ণ

লাইসেন্স ছাড়াই দীর্ঘদিন সেবা দিয়ে আসছিল নগরীর পাঁচলাইশ এলাকার ‘সিপিআরএল’ ল্যাব নামে একটি প্রতিষ্ঠান।

 

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) অভিযানে গিয়ে এর সত্যতা পাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন। চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরীর নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

 

একই দিনে বিভিন্ন ল্যাব পরিদর্শন শেষে আরও সাতটি ল্যাব ও হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়। তাদের বিভিন্ন অনিয়ম চোখে পড়ায় কৈফিয়ত তলব করা হয়।

 

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য মতে, অ্যান্ডোসকপি ও ইসিজি বিভাগে চিকিৎসক না থাকার কারণে পাঁচলাইশের জেনেটিক ল্যাবের কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ল্যাবটির বিরুদ্ধে এর আগেও বিভিন্ন অভিযোগে ব্যবস্থা নেয়া হয়। একই এলাকায় মেডি হেলথ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের এক্সরে বিভাগ ও আলট্রাসনোগ্রাফি বিভাগে চিকিৎসক ছিলেন না। ওই বিভাগগুলোর কার্যক্রম বন্ধের পাশাপাশি পাঁচলাইশের এ দুইটি প্রতিষ্ঠানকে কৈফিয়ত তলব করা হয়েছে। তাছাড়া ইসিজি বিভাগে চিকিৎক না থাকায় পাঁচলাইশের ঈগল্স আই ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ইসিজি কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

 

অন্যদিকে স্বাস্থ্য বিভাগের লাইসেন্স না থাকা, দৃশ্যমান স্থানে মূল্য তালিকা না রাখা, কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কোন নিয়োগ সংক্রান্ত তথ্য না রাখা, ডিপ্লোমাবিহীন টেকনিশিয়ান দ্বারা ব্লাড কালেকশনসহ বিভিন্ন ত্রুটি-বিচ্যুতি ও অনিয়ম পাওয়ায় জামালখান এলাকার ল্যাব এক্সপার্ট, সেনসিভ (প্রাইভেট) লিমিটেড, ইনোভা হসপিটাল লিমিটেড এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারসহ মোট চারটি প্রতিষ্ঠানকে কৈফিয়ত তলব করা হয়েছে।

 

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী বলেন, সম্প্রতি দেশে যেহেতু কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। তাই এ অভিযান শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগ এর আগেও এ ধরনের অভিযান পরিচালনা করেছে। অভিযানে যাদের বিরুদ্ধে অনিয়ম পাওয়া গেছে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

 

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট