চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

চার ভাগ হচ্ছে রেলওয়ে

প্রশাসনিক কাজে গতি বাড়াতে এবং সুষ্ঠুভাবে ট্রেন পরিচালনায় এ সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

১১ ডিসেম্বর, ২০২৩ | ১২:২০ অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুশাসনের ১০ বছর পর বাংলাদেশ রেলওয়েকে চার অঞ্চলে ভাগ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রশাসনিক কাজে গতি বাড়াতে এবং সুষ্ঠুভাবে ট্রেন পরিচালনার জন্য এখন দুই অঞ্চল নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ রেলওয়েকে চার অঞ্চলে বিভক্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

সম্প্রতি রেলভবনে অনুষ্ঠিত বিভাজন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন রেলেওয়ের মহাপরিচালক মো. কামরুল আহসান। তিনি সভায় প্রস্তাবিত বিভাগগুলোর অধিক্ষেত্র, জনবলসহ পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাব পার্সোনাল শাখার মাধ্যমে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে দ্রুত পাঠানোর নির্দেশ দেন।

 

সংশ্লিষ্টরা জানান- সুষ্ঠুভাবে ট্রেন পরিচালনার লক্ষ্যে ২০১৪ সালের ২৩ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অঞ্চল ও বিভাগ বাড়ানোর অনুশাসন দিয়েছিলেন। পরে ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে রেলওয়েকে চারটি অঞ্চল ও আটটি পরিচালন বিভাগে বিভক্তির সুপারিশ করেছিল রেলওয়ে। বর্তমানে বাংলাদেশ রেলওয়েতে দুটি অঞ্চল অর্থাৎ পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলে বিভক্ত। প্রতি অঞ্চলে দুটি করে মোট চারটি পরিচালন বিভাগ রয়েছে।

 

বিভাজন সভার কার্যবিবরণীতে বলা হয়েছে, বর্তমানে রেলের পশ্চিমাঞ্চলে রয়েছে রাজশাহী, রংপুর, খুলনা ও বৃহত্তর ফরিদপুর। পশ্চিমাঞ্চলকে ভেঙে খুলনা ও ফরিদপুর নিয়ে নতুন ‘দক্ষিণাঞ্চল’ করার এবং এ অঞ্চলের অধীনে যশোর ও ফরিদপুরকে পরিচালন বিভাগ করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

 

বর্তমানে রেলের পূর্বাঞ্চলে রয়েছে চট্টগ্রাম, সিলেট, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ। এরমধ্যে ঢাকা ও ময়মনসিংহ নিয়ে রেলওয়ের নতুন অঞ্চল ‘মধ্যাঞ্চল’ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এর সদর দপ্তর হবে ময়মনসিংহ। ‘মধ্যাঞ্চল’-এর অধীনে পরিচালন বিভাগ হবে ময়মনসিংহ ও ঢাকা।  পূর্বাঞ্চল থেকে ঢাকা বিভাগ বাদ পড়লে সিলেট হবে নতুন পরিচালন বিভাগ। রাজশাহী ও রংপুর নিয়ে গঠিত পশ্চিমাঞ্চলের পরিচালন পরিধি কমলেও বিদ্যমান পরিচালন বিভাগ পাকশী ও লালমনিরহাট অপরিবর্তিত থাকবে।

 

এ বিষয়ে রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এসব পরিকল্পনা অনেক আগেই নেওয়া হয়েছিল। যেহেতু রেলওয়ে বর্ধিত হচ্ছে, তাই অঞ্চল ভাগ করার চিন্তাভাবনাও রয়েছে। ধীরে ধীরে তা করা হবে।

 

বর্তমানে ৪৮টি জেলা রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত। রেলওয়েতে অনুমোদিত জনবল ৪৭ হাজার ৬৩৭। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নতুন দুটি অঞ্চলের জন্য আরও ১০ থেকে ১৫ হাজার জনবল নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে। বর্তমানে রেলের বিদ্যমান অবকাঠামোতেই বিভাগীয় কার্যালয় করা সম্ভব। কেবল কিছু অতিরিক্ত স্থাপনা প্রয়োজন হবে।

পূর্বকোণ/পিআর 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট