চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

শাহাদাতে কারবালা মাহফিলের ৮ম দিনে বক্তারা

কোন দেশের শাসক পানির অধিকার থেকে জনগণকে বঞ্চিত রাখতে পারে না

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:২২ পূর্বাহ্ণ

জমিয়তুল ফালাহ মসজিদে ১০ দিনব্যাপী ৩৪তম আন্তর্জাতিক শাহাদাতে কারবালা মাহফিলের ৮ম দিনে গতকাল রবিবার দেশি-বিদেশি ইসলামী স্কলার ও আলোচকরা বলেছেন, সেদিন কারবালা প্রান্তরে হোসাইনি কাফেলার তাঁবুতে ক্ষুধায়-তৃষ্ণায় শিশু-নারীরা ছটফট করছিল। ফোরাত নদীর পানি কুকুর-বিড়ালসহ সকল প্রাণীর জন্য উন্মুক্ত ছিল, অথচ নবী পরিবারের জন্য ফোরাত নদী থেকে পানি পর্যন্ত আনতে দেয়নি ইয়াজিদি পাষ-রা। পানীয় ও খাদ্যের জোগান বন্ধ করে দিয়ে ক্ষুধায়-তৃষ্ণায় নারী-শিশুদের প্রাণ কেড়ে নেয়ার জঘন্য নির্মমতা ও স্পর্ধা দেখিয়েছিল ইয়াজিদি গোষ্ঠী। বক্তারা বলেন, নদী-সমুদ্রের পানির সত্যিকার মালিকানা আল্লাহ পাকের। দুনিয়ার কোন দেশের শাসক পানির অধিকার থেকে জনগণকে বঞ্চিত রাখতে পারে না। পানির কষ্টে ভোগা বিশ্বের পঞ্চাশ কোটি মানুষকে বাঁচাতে সকল দেশের মানুষের জন্য পানির সহজপ্রাপ্যতা নিশ্চিত করতে হবে। পানির ন্যায্য অধিকার থেকে কাউকে বঞ্চিত করা যাবে না। এটাই শাহাদাতে কারবালার দর্শন ও শিক্ষা। জমিয়তুল ফালাহ শাহাদাতে কারবালা মাহফিল

পরিচালনা পর্ষদের আয়োজনে গতকাল সভাপতিত্ব করেন পর্ষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও চেয়ারম্যান আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদি প্রেতাত্মারা নবী পরিবারের নিষ্পাপ-নিরপরাধ সদস্যদের ওপর যে জঘন্য নির্মমতা চালিয়েছে, ইতিহাসে এর দ্বিতীয় দৃষ্টান্ত খুঁজে পাওয়া যাবে না। মাহফিলে বিদেশি আলোচক ছিলেন লেবানন গ্লোবাল ইউনিভার্সিটির প্রফেসর শাঈখ শাহ সূফী আল্লামা সৈয়্যদ জামাল শাক্কার আল-হোসাইনী। মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে শাহাদাতে কারবালা মাহফিল পরিচালনা পর্ষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও চেয়ারম্যান এবং পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান আলহাজ সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। কারবালা ট্র্যাজেডি নিয়ে মিডিয়ার ভূমিকা বিষয়ে আলোচানা করেন ঢাকা কাদেরীয়া তৈয়্যবিয়া কামিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আল্লামা আবুল কাশেম মুহাম্মদ ফজলুল হক। কারবালা প্রেক্ষাপটে ইয়াজিদিদের দুরভিসন্ধি, ব্যক্তিগত না ধারাবাহিকতার প্রতিশ্রুতি এ বিষয়ে আলোচনা করেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার প্রভাষক আল্লামা মুহাম্মদ আনিসুজ্জামান আলকাদেরী।

ড. আল্লামা মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ ও অধ্যাপক মাওলানা জিয়াউল হক রিজভির সঞ্চালনায় অতিথি ছিলেন শুলকবহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ মোহাম্মদ মোরশেদ আলম, ব্যবসায়ী মুহাম্মদ আলমগীর পারভেজ, আহলা দরবারের সৈয়দ ইমদাদুল ইসলাম। এছাড়াও মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন আনজুমান ট্রাস্টের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ মহসিন ও গাউছিয়া কমিটির চেয়ারম্যান পেয়ার মোহাম্মদ কমিশনার। মাহফিলে আলেমেদ্বীন আবু সুফিয়ান আবেদী আলকাদেরীসহ জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদরাসা এবং বিভিন্ন মাদরাসার আলেমবৃন্দ, গাউসিয়া কমিটির সর্বস্তরের কর্মকর্তা এবং শাহাদাতে কারবালা মাহফিল পরিচালনা পর্ষদের কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। কুরআন তেলাওয়াত করেন কারী শাইখ আহমাদ বিন ইউসুফ আল আজহারী। হামদ ও নাতে রাসূল (দ) পরিবেশন করেন শায়ের তৈয়্যব মুহাম্মদ তাহসিন। জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের নিচতলায় প্রতিদিনের মাহফিলে মহিলাদের জন্য পর্দা সহকারে বক্তব্য শোনার ব্যবস্থা রয়েছে। মাহফিল সরাসরি সম্প্রচার হচ্ছেঃ ংঁভরঃাড়হষরহব, িি.িংযধযধফধঃ-ব-শধৎনধষধ.পড়স

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট