চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সাংবাদিকদের দিকে তেড়ে যাওয়ার বিষয়ে লিখিত ব্যাখ্যা দিলেন এমপি মোস্তাফিজুর

অনলাইন ডেস্ক

১ ডিসেম্বর, ২০২৩ | ১০:২৯ অপরাহ্ণ

আচরণবিধি বিষয়ে প্রশ্ন শুনে সাংবাদিকদের দিকে তেড়ে যাওয়ার ঘটনায় নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটির কারণ দর্শাও নোটিসের লিখিত জবাব দিয়েছেন বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী।

 

তার পক্ষে বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) বিকেলে ওই লিখিত জবাব নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আবু সালেম মোহাম্মদ নোমানের কাছে জমা দেন।

 

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক আবদুল গফুর বলেন, ‘বাঁশখালী থেকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর পক্ষে আমরা গতকালকে রিটার্নিং অফিসার বরাবরে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। জমা দিয়ে যাওয়ার সময়ে কিছু বিষয়ে এখানে অভিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

 

‘অভিযোগ সম্পর্কে আমরা জ্ঞাত হয়ে উনার পক্ষ থেকে এসে লিখিত জবাব দিয়েছি। ওখানে প্রশ্ন যা ছিল সেই প্রশ্নের আলোকে আমরা জবাব দিয়েছি। এটা যেহেতু নির্বাচন কমিশনের বিষয়, তাই এ মুহূর্তে আমরা কিছু বলতে চাই না। যথাযথ কর্তৃপক্ষ যেটা সিদ্ধান্ত নেয়, সেটাই আমরা ধার্য হিসেবে নেব।’

 

কারণ দর্শাও নোটিসের জবাব দিতে মোস্তাফিজুরের দুই আইনজীবীসহ ৫ জন বিকালে চট্টগ্রামের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আবু সালেম মোহাম্মদ নোমানের আদালতে হাজির হন।

 

তাদের মধ্যে ছিলেন আইনজীবী আ ন ম শাহাদাত আলম, বাঁশখালী পৌরসভা মেয়র অ্যাডভোকেট তোফায়েল বিন হোসেন ও বৈলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন।

 

বৃহস্পতিবার দুপুরে মনোনয়ন ফরম জমা দিতে এসে ‘আচরণ বিধি ভঙের’ বিষয়ে প্রশ্ন করা মাত্র সাংবাদিকের দিকে তেড়ে যান নৌকার প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী। আর তার অনুসারীরা চড়াও হন সাংবাদিকদের উপর।

 

মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া শেষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বের হন তারা। এসময় ইনডিপেনডেন্ট টিভির সাংবাদিক রাকিব উদ্দিন প্রশ্ন করেন, ‘আপনি কি আচরণবিধি লঙ্ঘন করে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন?’

 

প্রশ্ন শুনে সঙ্গে সঙ্গে রেগে যান মোস্তাফিজুর রহমান, গালি দিয়ে ওই সাংবাদিককে হাত দিয়ে ধাক্কা দেন এবং হুমকি দিতে থাকেন। তার সঙ্গে থাকা নেতাকর্মীরা এসময় অন্য সাংবাদিকদের ওপর চড়াও হন।

 

এরপর সাংবাদিকরা নিচে নেমে সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুরের গাড়ি থামিয়ে তার সাথে কথা বলার চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি গাড়ি চালিয়ে চলে যান। তার অনুসারীরা সাংবাদিকদের ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেন। তারপর স্লেগান দিয়ে গাড়ির চারপাশে অবস্থান নিয়ে সেটিকে আদালত ভবন এলাকা পার করিয়ে দেন।

 

সাংবাদিকরা তাৎক্ষণিকভাবে জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামানের কাছে গিয়ে ঘটনার প্রতিবাদ জানান।

 

পরে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে চট্টগ্রাম আদালত ভবন এলাকায় এ ঘটনার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ সমাবেশ করেন সাংবাদিকরা।

 

বৃহস্পতিবার বিকেলে ওই ঘটনায় সাংবাদিকরা লিখিত অভিযোগ দিলে চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনের নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আবু সালেম মোহাম্মদ নোমান সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমানকে তলব করেন।

 

এদিকে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) এক যৌথ বিবৃতিতে মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর মনোনয়ন বাতিল করতে আওয়ামী লীগের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সূত্র: বিডিনিউজ

 

পূর্বকোণ/জেইউ/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট