চট্টগ্রাম সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

একাধিক ভর্তি আবেদন অনুসন্ধানের নির্দেশ

ইমরান বিন ছবুর

৩০ নভেম্বর, ২০২৩ | ৬:৩৫ অপরাহ্ণ

নীতিমালা না মেনে গত বছরের মত এবছরও স্কুলে ভর্তির জন্য ভিন্ন জন্মনিবন্ধনে একাধিক আবেদন করেছে অনেকেই।

একজন শিক্ষার্থী সরকারি স্কুলে ভর্তির জন্য অনলাইনে একটি আবেদনের মাধ্যমে পাঁচটি বিদ্যালয় পছন্দক্রমে দিতে পারবে, ভর্তি নীতিমালায় এমন নির্দেশনা থাকলেও কোন কোন অভিভাবক শিক্ষার্থীর নাম পরিবর্তন করে ভিন্ন ভিন্ন জন্মনিবন্ধনের মাধ্যমে একাধিক আবেদন করেছেন। এসব শিক্ষার্থীর কেউ কেউ একাধিক স্কুলে ভর্তির জন্য লটারিতেও মনোনীত হয়েছে।

তবে মিথ্যা তথ্য ও ভিন্ন ভিন্ন নামের জন্মনিবন্ধন দিয়ে সরকারি-বেসরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য লটারিতে সুযোগ পাওয়া শিক্ষার্থীদের তালিকা করতে শুরু করেছে বিদ্যালয়গুলো। শিক্ষার্থীদের ভর্তি কার্যক্রম শুরুর আগে একজন শিক্ষার্থী একাধিক আবেদন করেছে কিনা তা যাচাই-বাছাই করা হবে। একাধিক আবেদনের প্রমাণ পেলে ওইসব আবেদন বা ভর্তি বাতিল করা হবে বলে জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

চট্টগ্রাম নগরীর ১০ সরকারি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ২০২৩ শিক্ষাবর্ষে মিথ্যা তথ্য ও ভিন্ন ভিন্ন নামের জন্মনিবন্ধনের মাধ্যমে ভর্তির সুযোগ পাওয়া প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করা হয়। ভর্তি বাতিল হওয়া শিক্ষার্থীরা একাধিক জন্মনিবন্ধন ব্যবহার করে দুই বা তিন ধাপে আবেদন করেছে। তবে ভর্তি নীতিমালা অনুযায়ী, একজন শিক্ষার্থী সরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য অনলাইনের আবেদনে ৫টি বিদ্যালয় পছন্দক্রমে দিতে পারবে।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ২০২৩ শিক্ষাবর্ষে লটারিতে একাধিক আবেদন করে চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুলে ভর্তির সুযোগ পাওয়া ১৭ শিক্ষার্থীর আবেদন বাতিল করা হয়। ভর্তি বাতিল হওয়া এসব শিক্ষার্থীরা প্রথমে ভর্তি হয়ে যায়। পরবর্তীতে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে তাদের ভর্তি বাতিল করা হয়।

তিনি আরও বলেন, ভর্তি নীতিমালার নির্দেশনায় রয়েছে, সরকারি বিদ্যালয়ে  ভর্তির জন্য একজন শিক্ষার্থী একটি আবেদনের মাধ্যমে ৫টি বিদ্যালয়ে আবেদন করতে পারবেন। কিছু অভিভাবক অতি চালাকি করে শিক্ষার্থীর একাধিক জন্মনিবন্ধন ব্যবহার করে অনলাইনে একাধিক আবেদন করেছেন। ইতোমধ্যে আমাদের বিদ্যালয়ে নোটিশ টাঙিয়ে দিয়েছি, কোন শিক্ষার্থীর একাধিক আবেদন পাওয়া গেলে তাদের আবেদন বাতিল হবে।

ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহেদা আক্তার বলেন, মিথ্যা তথ্য এবং একাধিক আবেদন করে গত বছর ভর্তির সুযোগ পাওয়া কয়েকজন শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করা হয়েছে। এবারও আমাদের নির্দেশনা রয়েছে, মিথ্যা তথ্য কিংবা একাধিক আবেদন করে কোন শিক্ষার্থী ভর্তি হলে তাদের ভর্তি বাতিল করা হবে।

জানতে চাইলে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. সাদিউর রহিম জাদিদ বলেন, লটারিতে ভর্তির জন্য মনোনীত হওয়া শিক্ষার্থীরা একাধিক আবেদন করেছে কিনা তা যাচাই-বাছাই করতে আমাদের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে সব বিদ্যালয়ের প্রধানদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কোন শিক্ষার্থী যদি একাধিক আবেদন করে ভর্তির সুযোগ পায়, তাহলে ওই আবেদন বাতিল করা হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কোন আবেদনকারী তথ্য পরিবর্তন করে একাধিকবার আবেদন করে থাকলে ডিজিটাল লটারিতে তার ভর্তি নির্বাচন বাতিল বলে গণ্য হবে। মিথ্যা তথ্য প্রদান করে কোন শিক্ষার্থী লটারিতে নির্বাচিত হয়ে থাকলে যাচাই-বাছাই করে ওই শিক্ষার্থীকে ভর্তি না করানোর নির্দেশ দিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের উপপরিচালক (মাধ্যমিক) এবং ঢাকা মহানগরী সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভর্তি কমিটির সদস্য সচিব মো. আজিজ উদ্দিন।

পূর্বকোণ/আরডি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট