চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪

সর্বশেষ:

নগরীর ১৯ স্থানে শান্তি সমাবেশ করবে আওয়ামীলীগ

১৯ স্থানে অবস্থান করে উন্নয়ন ও শান্তি সমাবেশ করবেন নেতা-কর্মীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

৮ নভেম্বর, ২০২৩ | ১:০৮ অপরাহ্ণ

বিএনপি-জামায়াতের অবরোধ ও আন্দোলন মোকাবিলায় আরও শক্ত অবস্থানে যাচ্ছে নগর আওয়ামী লীগ। উন্নয়ন ও শান্তি সমাবেশের স্থান বাড়িয়ে এখন ১৯টি করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভোটের প্রস্তুতিও নিচ্ছে সরকারি দল আওয়ামী লীগ।

 

নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম-৮ আসনের সংসদ সদস্য নোমান আল মাহমুদ পূর্বকোণকে বলেন, বিএনপি-জামায়াতের অগ্নিসন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে মানুষের জানমালের নিরাপত্তায় রাজপথে সজাগ রয়েছে নেতা-কর্মীরা। নগরের ১৫ স্থানে অবস্থান কর্মসূচির আকার আরও বড় করে এখন ১৯টি করা হচ্ছে। একই সঙ্গে অবস্থান কর্মসূচি পালনের দায়িত্বও বণ্টন করে দেওয়া হয়েছে। নৈরাজ্য ও সহিংসতা মোকাবিলা ছাড়াও ভোটের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান তিনি।

 

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে রাজনীতি। নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে বিএনপি। গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় দলটির মহাসমাবেশে সহিংস ঘটনার পর নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা ও গ্রেপ্তারের চাপে পড়েছে দলটি। হরতাল ও অবরোধ কর্মসূচি দিয়ে আন্দোলন জিইয়ে রাখছে। একই সঙ্গে জামায়াতে ইসলামও অবরোধ ঘোষণা দেয়। বিএনপি-জামায়াতের অবরোধ ও আন্দোলন মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে নেমেছে নগর আওয়ামী লীগ। নগরীতে ১৯ স্থানে অবস্থানে থাকবে আওয়ামী লীগ। স্থানগুলো হলো, কাঠগড় মোড়, সল্টগোলা ক্রসিং, নিমতলা মোড়, বাদামতলী, নয়াবাজার, এ কে খান মোড়, সিটি গেট, ওয়াসা-ইস্পাহানী মোড়, মুরাদপুর, বহদ্দারহাট, কামাল বাজার, কাপ্তাই রাস্তা মোড়, অক্সিজেন মোড়, আমান বাজার, মতি টাওয়ার, বাকলিয়া এক্সেস রোড, নতুন ব্রিজ, আন্দরকিল্লা, দারুল ফজল মার্কেট ও দেওয়ানহাট মোড়। ওয়ার্ডভিত্তিক নেতাদের সমন্বয় করার জন্য দায়িত্ব বণ্টন করা হয়। 

 

আজ বুধবার বিকেলে নগরের কাজীর দেউড়ি এলাকার একটি কমিউনিটি সেন্টারে নগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা ডাকা হয়েছে। এতে নতুন কর্মসূচি ও ভোটের বার্তা দেওয়া হবে বলে জানান নেতা-কর্মীরা।

 

নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন পূর্বকোণকে বলেন, ‘আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও-পোড়াও কর্মকাণ্ডে মানুষের পাশে থাকবে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। মানুষ আর হরতাল-অবরোধ চায় না। তাই নেতা-কর্মীদের নির্বাচনের প্রস্তুতির বার্তা দেওয়া হয়েছে এবং নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের সামাজিকভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

 

পূর্বকোণ/আরডি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট