চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস আজ

মানসিক রোগী বাড়লেও বাড়ছে না চিকিৎসাসেবা

ইমাম হোসাইন রাজু 

১০ অক্টোবর, ২০২৩ | ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ

বাঁশখালীর বাসিন্দা রাহেলা বেগম। মধ্য বয়সী এ নারী বিষন্নতার পাশাপাশি ভুলে যাওয়ার রোগে ভুগছেন দীর্ঘদিন। গ্রামের বাসিন্দা রাহেলা এ রোগের চিকিৎসার জন্য ছুটে যান উপজেলা হাসপাতালে। কিন্তু হাসপাতালটিতে মানসিক স্বাস্থ্য চিকিৎসার কোন ব্যবস্থা নেই। নেই এ রোগের চিকিৎসা প্রদানের কোন চিকিৎসকও। বাধ্য হয়েই রাহেলা ছুটে আসেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের মনোরোগ বিদ্যা বিভাগে।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুধু বাঁশখালীতেই নয়, চট্টগ্রামের কোন উপজেলাতেই নেই মানসিক স্বাস্থ্য চিকিৎসার কোনো ব্যবস্থা। শুধু তাই নয়, পুরো চট্টগ্রাম বিভাগের মানসিক স্বাস্থ্য সেবার চিকিৎসার জন্য একমাত্র ভরসা রাখতে হয় চমেক হাসপাতালের মাত্র ৬০ শয্যার মনরোগ বিদ্যা বিভাগের উপর।

 

অন্যদিকে, কোভিড-১৯ মহামারির পর মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা বাড়লেও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ব্যবস্থার অভাবে এখনও অবহেলিত মানসিক স্বাস্থ্যসেবা। অথচ, রোগের তালিকায় ‘মানসিক বিষন্নতা’ বর্তমানে সামনের সারিতেই। কিন্তু রোগী বাড়লেও বাড়ছে না চিকিৎসার সহজলভ্যতা। গ্রামাঞ্চলে    মানসিক রোগের চিকিৎসায় নেই কোনো সুযোগ। নেই চিকিৎসকও। চট্টগ্রাম অঞ্চলে গড়ে উঠেনি বিশেষায়িত কোনো মানসিক       হাসপাতালও। এ রোগের চিকিৎসা সেবার জন্যও নেই পর্যাপ্ত চিকিৎসক। পুরো বিভাগে চিকিৎসক আছেন হাতেগোণা কয়েকজন। চিকিৎসা সহজলভ্য না হওয়ায় ও সচেতনতার অভাবে বেশিরভাগ মানুষ তাই ঝুঁকছেন অপচিকিৎসায়।

 

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী বলেন, ‘উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লক্সগুলোতে পৃথক কোন মানসিক স্বাস্থ্য বিভাগ নেই। এ বিষয়ের কোন চিকিৎসকও নেই। রোগী এলে মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসকরা সাধারণ রোগের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে থাকেন। পরবর্তীতে রোগীকে চমেক হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

 

চমেক হাসপাতালের মানসিক বিভাগে প্রতিদিন শুধুমাত্র বহিঃবিভাগে গড়ে দুই শতাধিক রোগী চিকিৎসা নিতে আসেন। রোগীভর্তি থাকে শয্যার প্রায় দ্বিগুণ। শীত মৌসুমে এ সংখ্যা আরও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। এতসংখ্যক রোগীর জন্য চিকিৎসক আছেন মাত্র হাতেগোণা কয়েকজন।

 

চমেক হাসপাতালের মানসিক স্বাস্থ্য বিভাগের রেজিস্ট্রার ডা. তারেক আবেদীন বলেন, ‘ডিজিটাল প্রযুক্তির এই যুগেও বেশিরভাগ মানুষের মধ্যে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে ভুল ধারণা রয়েছে। যে কারণে তারা বিজ্ঞানসম্মত চিকিৎসা না নিয়ে অপচিকিৎসার আশ্রয় নেন। অথচ চিকিৎসা বিজ্ঞানে অপচিকিৎসার কোনো অস্তিত্বই নেই। ওয়ার্ডে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর একটি বড় অংশ পাচ্ছি যারা অপচিকিৎসার শিকার। এমন অনেক রোগী পাওয়া যায় যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়েও ওয়ার্ডের শয্যায় বসে তাবিজ, পানিপড়ার মতো অপচিকিৎসা চালিয়ে যায়। বিষয়টি উদ্বেগের।’

 

দেশের মানসিক স্বাস্থ্যসেবার পরিস্থিতি নিয়ে জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থার উদ্যোগে পরিচালিত এক জরিপ মতে, দেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় তিন কোটি মানুষ কোনো না কোনো মানসিক সমস্যায় আছেন বা মানসিক রোগে আক্রান্ত। যাদের ৯২ শতাংশই চিকিৎসার বাইরে রয়েছে। দেশে এই বিষয়ে চিকিৎসকের সংখ্যা মাত্র তিন শতাধিক।

 

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস আজ : আজ  (১০ অক্টোবর) বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে দিবসটি। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘মানসিক স্বাস্থ্য একটি সর্বজনীন মানবাধিকার’। সারাদেশের মতো চট্টগ্রামেও সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার উদ্যোগে পালন করা হচ্ছে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা, র‌্যালিসহ নানা আয়োজন করা হয়েছে।

পূর্বকোণ/পিআর 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট