চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

ঈদে বাড়ি ফেরা নিয়ে শংকায় সন্দ্বীপ ও হাতিয়ার বাসিন্দারা

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৬ জুন, ২০২৩ | ১২:০৫ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম থেকে নৌরুটে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা শুরু হওয়ার কথা ছিল আজ। কিন্তু বৈরি আবহওয়ার কারণে চট্টগ্রাম-হাতিয়া রুটে আজকের জাহাজ সার্ভিস বাতিল করেছে বিআইডব্লিউটিসি। অন্যদিকে একই কারণে কুমিরা থেকে সন্দ্বীপ গুপ্তছড়া ঘাটে চলাচলরত এমভি আইভি রহমানও বন্ধ রয়েছে। ফলে এবার ঈদে বাড়ি ফেরা নিয়ে শংকায় রয়েছেন সন্দ্বীপ ও হাতিয়ার বাসিন্দারা। তবে বৈরি আবহাওয়ার মধ্যেও সন্দ্বীপের যাত্রীদের জন্য আজ দিনের যে কোন সময় ডাবল ট্রিপের পরিবর্তে একটি ট্রিপে যাত্রী আনা-নেওয়া করবে এমভি আইভি রহমান।

 

সক্রিয় মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা তৈরি অব্যাহত থাকায় উপকূলীয় এলাকা ও সমুদ্রবন্দরে ঝড়ো হাওয়ার শংকা রয়েছে। আর এ জন্য আবহওয়া অধিদপ্তর চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে। যার কারণে বন্ধ রাখা হয়েছে বিআইডব্লিউটিসি’র সকল জাহাজ চলাচল। অথচ আজ থেকে ঈদ উপলক্ষে স্পেশাল সার্ভিসে এমভি তাজউদ্দিন চট্টগ্রাম-হাতিয়া রুটে চলাচলের কথা ছিল।

 

বিআইডব্লিউটিসি চট্টগ্রাম অঞ্চলের ডিজিএম (কর্মাশিয়াল) গোপাল চন্দ্র মজুমদার পূর্বকোণকে বলেন, ‘বৈরি আবহওয়ার কারণে বাতিল করা হয়েছে চট্টগ্রাম-হাতিয়া রুটে চলাচলকারী এমভি তাজউদ্দিনের যাত্রা। সতর্ক সংকেত নামলে মঙ্গলবার (কাল) থেকে ঈদের পর একসপ্তাহ পর্যন্ত এ রুটে দিনে একবার আসা-যাওয়া করবে তাজউদ্দিন।’

 

চট্টগ্রামের মাঝিরঘাটে বসবাসরত হাতিয়ার বাসিন্দা আকতার মিয়া বলেন, ‘নিরাপত্তার বিষয়টি চিন্তা করে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বিআইডব্লিউটিসির জাহাজে করে সদরঘাট থেকে হাতিয়ার নলচিরা ঘাট রুটেই আসা-যাওয়া করি। কিন্ত এবার জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছি। এখন ঈদে বাড়ি যেতে হলে অতিরিক্ত টাকা ব্যয় করে বাসযোগে নোয়াখালীর চেয়ারম্যান ঘাটে গিয়ে ট্রলার দিয়ে সাগর পাড়ি দিতে হবে।’

 

এদিকে কুমিরা ঘাট থেকে সন্দ্বীপে চলাচলরত বিআইডব্লিউটিসি’র জাহাজ এমভি আইভি রহমান বন্ধ ছিল গতকাল। বৈরি আবওয়ার কারণে বন্ধ ছিল স্পিডবোট চলাচলও। ফলে অধিকাংশ যাত্রীকে ফেরত যেতে হয়েছে। এর মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে পণ্যবাহী সি ট্রাক ও ট্রলারে করে কিছু যাত্রী সন্দ্বীপ পাড়ি দিয়েছেন। আজও সমুদ্র উত্তাল থাকলে বিপদে পড়তে হবে এ রুটে চলাচলকারী যাত্রীদের। তবে যাত্রীদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখে বিআইডব্লিউটিসি ঝুঁকির মধ্যেও আজ এ রুটে জাহাজের একটি ট্রিপ চলাচলের ঘোষণা দিয়েছে। সাগরের কিছুটা শান্ত থাকলে দিনের যে কোন সময় সন্দ্বীপের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে এমভি আইভি রহমান।

 

এ বিষয়ে গোপাল চন্দ্র মজুমদার বলেন, ‘সন্দ্বীপের সংসদ সদস্য মাহমুফুর রহমান মিতা এবং স্থানীয় যাত্রীদের অনুরোধে সাগর শান্ত থাকা সাপেক্ষে এই রুটে একটি ট্রিপে জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে।’

 

তবে একটি ট্রিপে সন্তুষ্ট নন নগরীতে বসবাসরত সন্দ্বীপের বাসিন্দারা। তারা বলেন, প্রতিদিন ডাবল ট্রিপে যাত্রী আনা নেওয়া করে এমভি তাজউদ্দিন। ঈদ উপলক্ষে যাত্রী বেড়েছে বহুগুণ। একটি মাত্র ট্রিপে এত যাত্রী পরিবহন সম্ভব নয়।

 

হালিশহর এলাকায় বসবাসরত সন্দ্বীপের বাসিন্দা আজাদ আমির উদ্দিন বলেন, গতকাল বাড়ি ফেরার কথা ছিল। কিন্তু জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় নগরীতে আটকা পড়েছি। সোমবারও ফেরার সম্ভাবনা দেখছি না। একটি মাত্র ট্রিপে যাত্রী থাকবে কয়েকগুণ। ভিড়ের মধ্যে এভাবে জাহাজে উঠা সম্ভব নয়। আবহওয়া পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার অপেক্ষায় আছি। আর তা না হলে ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি ফিরতে হবে। তবে যারা পরিবার পরিজন নিয়ে যাবেন, তাদের অপেক্ষা করা ছাড়া কোন উপায় নেই। সমুদ্র সংকেত না নামলে ঈদে হয়তো তাদের বাড়ি ফেরা হবে না।’

 

বিআইডব্লিউটিসি চট্টগ্রাম অঞ্চলের ব্যবস্থাপক (কমার্শিয়াল) আবদুর নুর তুষার বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষে সোমবার (আজ) থেকে আগামী ৮ জুলাই পর্যন্ত চট্টগ্রাম-হাতিয়া রুটে যাত্রীদের জন্য অতিরিক্ত ট্রিপের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু বৈরি আবহওয়ার মধ্যে সোমবারের সার্ভিস বাতিল করা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ঈদের পর পর্যন্ত অতিরিক্ত ট্রিপে যাত্রী পরিবহন করা হবে।’

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট