চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪

সর্বশেষ:

সেমিনারে জেলা প্রশাসক

চট্টগ্রামকে স্মার্ট জেলা করতে সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা চাই

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ মে, ২০২৩ | ৩:৩০ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান বলেছেন, ২০৪১ সালে বাংলাদেশ হবে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’। স্মার্ট বাংলাদেশে প্রযুক্তি জানার কোনো বিকল্প নেই। বৃহস্পতিবার (গতকাল) চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়ামে অনুষ্ঠিত স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে আশু করণীয় শীর্ষক সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। সেমিনারটি আয়োজন করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়। জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান বলেন, চট্টগ্রামের মানুষের কাছে আমার একমাত্র চাওয়া চট্টগ্রামকে আমরা কিভাবে স্মার্ট করবো, সে বিষয়টি। আমি আনন্দিত হয়েছি যে- স্থপতি আশিক ইমরান একটি অপ্রিয় সত্য কথা বলেছেন। যে শহরটি আনস্মার্ট। কেউ কথাটি সাহস করে বলেন না। উনি সাহস করে বলেছেন। আমি যখন চবিতে পড়তাম তখন এই শহরে কোডাক কোম্পানি ছিল, বড় বড় প্রিন্টের দোকান ছিল। একটি ছবি প্রিন্ট করতে ৮-১২ টাকা নিত। এখন এগুলো চোখে পড়ে না। সব ব্যবসা শেষ করে দিয়েছে মোবাইল। কোডাকের মতো কোম্পানিও একেবারে শেষ হয়ে গেছে। আপনাকে এখন পড়তেও হবে না। আপনি একটি অ্যাপস নামাবেন দেখবেন সেটি আপনাকে পত্রিকা-বই পড়ে দিচ্ছে। প্রযুক্তির বিষয়গুলি যদি আমরা করতে না পারি তাহলে আমাদের দেশে অনেকে জবলেস হয়ে যাবে। এজন্য এখন থেকেই আমাদের স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য প্রস্তুত হতে হবে। আলোচকের বক্তব্যে বাস্থই চট্টগ্রাম চ্যাপ্টারের চেয়ারম্যান স্থপতি আশিক ইমরান বলেছেন, স্মার্ট বাংলাদেশ করতে হলে স্মার্ট সিটি দরকার। এই শহরে বহু মানুষ বসবাস করছেন। এটি শহরের জন্য চাপ। স্মার্ট সিটিতে পর্যাপ্ত খেলার মাঠ, জলাশয়, পুকুর, সবুজ পাহাড় থাকা দরকার। শহরটি সাইক্লিস্টবান্ধব, পথচারী বান্ধব হওয়া দরকার। এই প্রেক্ষাপটে চট্টগ্রাম এখন আনস্মার্ট শহর। এই শহরের গতিবেগ ঘণ্টায় ৬ থেকে ৭ কিলোমিটার। এখন চট্টগ্রাম একটি হিটেট সিটিতে পরিণত হয়েছে। এই শহরকে স্মার্ট সিটিতে পরিণত করতে হলে সিডিএ, চসিক, ওয়াসা, পিডিবিকে একছাদের নিতে আসতে হবে। স্মার্ট বাংলাদেশ করতে হলে সবাইকে স্মার্ট সিস্টেমে আসতে হবে।

সেমিনারে পেপার উপস্থাপন করেন চবির কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রেজাউল করিম। মুখ্য আলোচক ছিলেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম। আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাব্বির ইকবাল, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের জিএম মোহাম্মদ আশরাফুল আমিন।

পূর্বকোণ/এ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট