চট্টগ্রাম রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪

ভালোবাসা দিবসের সঙ্গী হলো সুবিধাবঞ্চিতরাও

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১:১৯ অপরাহ্ণ

নাচ, গান, কবিতা আবৃত্তি ও নানা রঙে রঙিন নগরী। বসন্ত উৎসবের ছোঁয়ায় মুখর তরুণ-তরুণীরা। রং লেগেছে শিশু ও বয়স্কদের গায়েও। চিরায়ত বাংলা ও বাঙালির এ সর্বজনীন উৎসবকে ব্যতিক্রমী আয়োজনে রাঙিয়েছেন কয়েকজন উদ্যমী মানুষ। শিল্পকলা, শিরীষতলার বাইরে গিয়ে অনাথ ও পথশিশুদেরও দিনটি রঙিন করে দিয়েছেন। মুখে হাসি ফুটিয়েছেন।

 

 

আনন্দ-উৎসবের সঙ্গী হলো পাঁচ শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত শিশু : ‘বৈষম্যের সকল দ্বার রুদ্ধ হোক সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে বসন্ত বরণ ও বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। ৮নং শুলকবহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মোরশেদ আলম সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে আয়োজন করেছে ‘বসন্ত ভালোবাসা উৎসব’। সামাজিক সংগঠন বিজয় কেতনের সহযোগিতায় ২নম্বর গেট সামারা কনভেনশন সেন্টারে পাঁচ শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে দিনভর আনন্দ-উৎসবে কাটানো হয়। বিজয়কেতনের সভাপতি রিয়া দাশ চায়নার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মেহেরুন্নেসা জেসীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরী।

 

 

উপস্থিত ছিলেন ইকুইটি প্রপার্টিজের চেয়ারম্যান মাহফুজুল হক, এন মোহাম্মদ গ্রুপের চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল হক, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি দেবাশীষ নাথ দেবু, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আতিকুর রহমান, জিএমআইটি চেয়ারম্যান কামরুল কায়েস চৌধুরী, আলোকিত সমাজের সভাপতি কামরুল ইসলাম, বিল্ডকম লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক মঞ্জুরুল ইসলাম, বিজয়কেতন উপদেষ্টা এমএ হাশেম, ইসমত আরা বেগম, ফরিদা বেগম, লায়ন আর্জু খান প্রমুখ।

 

 

উপস্থিত ছিলেন বিজয়কেতনের উপদেষ্টা ফরিদা আক্তার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবরিনা ইসলাম মিশন, আনিকা তাসনিম, হালিমা বেগম, লায়লা আসলাম, জুলেখা আক্তার মুন্নি, শারমিন আক্তার, জান্নাতুল ফেরদৌস মিম, মোর্শেদা আক্তার, পলি আক্তার, নাহিদা ইয়াছমিন লাভলী, নুরে জান্নাত ইফতি, আমেনা আক্তার কলি প্রমুখ।

 

 

৮০ এতিম শিশুকে অন্যরকম দিন উপহার দিল স্মাইল বাংলাদেশ : নগরীর শেরশাহ বায়েজিদ ও সীতাকুণ্ডের তিনটি মাদ্রাসা ও হেফজখানার ৮০ এতিম শিশুদের নিয়ে দিনভর আনন্দ-উচ্ছ্বলতার আয়োজন করে স্মাইল বাংলাদেশ। এতিম শিশুদের জন্য ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, খেলাধুলা ও দুপুরে খাবার বিতরণ করেছে স্বেচ্ছাসেবী এই সংগঠনটি। ‘ভালোবাসা দিবস কাটুক এতিম শিশুদের ভালোবাসায়’ এই স্লোগানে সীতাকুণ্ড বাঁশবাড়িয়া সৈকতে নানা আয়োজন করেছে।

 

 

বায়েজিদ শেরশাহ এলাকার আলবয়ান হেফজ ও এতিমখানা, সীতাকুণ্ড ছলিমপুর এলাকার লোকমান হাকিমিয়া হেফজ ও এতিমখানা, বাঁশবাড়িয়া এলাকার মদিনাতুল উলুম হেফজ ও এতিমখানা থেকে ৮০ জন শিশুদের নিয়ে ছিলো দিনব্যাপী আয়োজন।

 

 

অনুষ্ঠানে উপস্থিতি ছিলেন বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের শওকত আলী জাহাঙ্গীর, সীতাকুণ্ড হেলথ এন্ড এডুকেশন ট্রাস্ট নির্বাহী পরিচালক লায়ন মো. গিয়াস উদ্দিন, সীতাকুণ্ড সমিতির ভাইস প্রেসিডেন্ট ইউসুফ শাহ, মেসার্স সরওয়ার এন্ড ব্রাদাস ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শাহজাহান, লায়ন্স ক্লাব অফ চিটাগং এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার লায়ন কামরুদ্দোজা সম্মিলিত সামাজিক পরিষদের সেক্রেটারি শরীফুল ইসলাম শরীফ, মানবাধিকারকর্মী জাহিদ তানসীর, স্মাইল বাংলাদেশের সভাপতি সাইফুল ইসলাম ইমরান।

 

 

সুবিধাবঞ্চিত ১০০ শিশু ও হতদরিদ্রের মাঝে খাবার বিতরণ : বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে নগরীতে ১০০ জন সুবিধাবঞ্চিতকে খাবার ও ফুল দিয়েছেন নারী উদ্যোক্তা লায়ন সানজিদা সুলতানা নিশি। তিনি বলেন, ভালোবাসা দিবসে সুবিধাবঞ্চিতদের মুখে হাসি ফোটাতে এই আয়োজন। চেষ্টা করেছি সুবিধাবঞ্চিত মানুষের ভালোবাসা ভাগ করে নিতে। তাই দিনটি অসহায়, হতদরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিতদের সঙ্গে কাটিয়েছি। ভালো কিছু করতে গেলে কোন সংগঠনের প্রয়োজন হয় না। একেকজন ব্যক্তি হয়ে উঠতে পারি একেকটি সংগঠন এবং নিজেকে উপস্থাপন করতে পারি একজন বাংলাদেশ হিসেবে। আমি সবসময় অসহায়দের পাশে থাকার চেষ্টা করব। এর আগেও ক্যাম্পেইন রেড, বাংলাদেশ ইয়ুথ লিডারশিপ সেন্টার (বিওয়াইএলসি), রোটারেক্ট ক্লাব ও লায়ন্স ক্লাবের হয়ে এমন মানবিক কাজ করেছেন সানজিদা সুলতানা নিশি।

 

পূর্বকোণ/এএইচ

 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট