চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

পূর্বকোণকে জাতীয় পত্রিকা হিসেবে দেখতে চাই

নিজস্ব প্রতিবেদক

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ৮:১৮ অপরাহ্ণ

দৈনিক পূর্বকোণকে জাতীয় পত্রিকা হিসেবে বের করার অনুরোধ জানিয়ে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ঢাকার বাইরে থাকলে সেটি আঞ্চলিক হয়ে যাবে, আবার ঢাকায় থাকলে সেটি জাতীয় হয়ে যাবে আমি এটার বিরুদ্ধে সবসময়। চট্টগ্রাম অঞ্চলের পাঠকপ্রিয়তা ধরে রেখেছে পূর্বকোণ। আমি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করবো সীমিত আকারে হলেও পূর্বকোণ ঢাকায় পাঠানোর জন্য। নিজেদের আঞ্চলিক পত্রিকা হিসেবে মনে করবেন না। গতকাল (শুক্রবার) দুপুরে দৈনিক পূর্বকোণের ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে পূর্বকোণ সেন্টারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ অনুরোধ জানান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ৩৭ বছর ধরে পূর্বকোণ পত্রিকা জনপ্রিয়তার সাথে প্রকাশিত হচ্ছে। পূর্বকোণের প্রকাশনায় কোনদিন ছেদ পড়েনি। আমরা যখন ছাত্রনেতা ছিলাম তখন পূর্বকোণের আবির্ভাব এবং শুরুতেই পূর্বকোণ ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। পাঠকপ্রিয়তা ধরে রেখে একটি পত্রিকা ৩৭ বছর প্রকাশিত হওয়া চাট্টিখানি কথা নয়। দৈনিক পূর্বকোণের প্রতিষ্ঠাতা মরহুম মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরীর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাই। অন্ততপক্ষে পাক্ষিক হলেও ছোটদের জন্য পৃথক পাতা বের করার অনুরোধ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ছোটবেলায় যখন কোন পত্রিকায় ছোটদের পাতায় আমার লেখা বা কবিতা ছাপা হত, সেটা যে আমাকে কি পরিমাণ আনন্দিত- উদ্বেলিত করতো এবং আমার কনফিডেন্স লেভেল কতটুকু বৃদ্ধি করতো তা ভাষায় প্রকাশ করার মত না। ছোটদের পাতায় লেখার সুযোগ আমার জীবন গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। সমাজ গঠনে পত্রিকার ভূমিকার কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সমাজের দর্পণ হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি দেশ ও সমাজ গঠনে এবং নতুন প্রজন্মকে তৈরি করতে পত্রিকা ভূমিকা রাখতে পারে। শুধুমাত্র সংবাদ পরিবেশন নয়, সংবাদ পরিবেশনের পাশাপাশি বিশ্লেষণধর্মী লেখা, ফিচার প্রকাশ করে সেই পত্রিকা দেশ ও সমাজ গঠনে ভূমিকা রাখতে পারে। পূর্বকোণ ৩৭ বছর ধরে সেটি চেষ্টা করেছে এবং ভবিষ্যতেও এই চেষ্টা আরো জোরদার করবে বলে আশা করি। গতকাল (শুক্রবার) সকাল ১০টায় পূর্বকোণ কর্তৃপক্ষ শ্রদ্ধার সাথে প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরী ও সাবেক সম্পাদক তসলিমউদ্দিন চৌধুরীকে স্মরণ করে ৩৮ বছরে প্রবেশের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান চট্টগ্রামের রাজনীতিক, প্রশাসনের কর্মকর্তা, সংস্কৃতিকর্মী, পাঠক- শুভানুধ্যায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মিলন অনুষ্ঠানে পরিণত হয়।

এরআগে সকালে দি পূর্বকোণ লিমিটেডের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন চৌধুরী ও দৈনিক পূর্বকোণ সম্পাদক ডা. ম রমিজউদ্দিন চৌধুরীকে নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন সংসদ সদস্য এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ টি এম পেয়ারুল ইসলাম, সিডিএ চেয়ারম্যান জহিরুল আলম দোভাষ, সিএমপি কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়, চসিকের সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, চিটাগাং চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম প্রমুখ।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী এমপি বলেন, শুরু থেকেই পূর্বকোণ চট্টগ্রামের সাথে দেশের মানুষের কথা বলে আসছে। উন্নয়নের পাশাপাশি দেশের সমস্যা তুলে ধরে সমাধানের পথ দেখাবে পূর্বকোণ।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, প্রিন্ট ভার্সনের পাশাপাশি যুগের সাথে তাল মিলিয়ে অনলাইনেও এগিয়ে গেছে পূর্বকোণ। অতীতের ন্যায় ভবিষ্যতেও পূর্বকোণ চট্টগ্রামের পাশাপাশি দেশের উন্নয়নের সাথে সমস্যার চিত্র তুলে ধরে সমাধানের পথ দেখাবে।

ওয়াসিকা আয়শা খান এমপি বলেন, সুষ্ঠু সাংবাদিকতায় পূর্বকোণ এগিয়ে যাবে। সুষ্ঠু সাংবাদিকতার প্রতীক হিসেবে পূর্বকোণের সুনাম রয়েছে। বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার সাথে পূর্বকোণও এগিয়ে যাবে। আমি স্কুল জীবন থেকেই পূর্বকোণ পড়তাম। সেই থেকে এখনো পূর্বকোণ চট্টগ্রাম তথা সারাদেশের মানুষের কথা তুলে ধরে আসছে।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, আইসিটি এক্টসহ যত কালো আইন আছে এগুলো বাতিল করে সাংবাদিকদের বলার, লেখার স্বাধীনতা দিতে হবে। অতীতের ন্যায় সত্য প্রকাশে পূর্বকোণ বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পূর্বকোণের সিটি এডিটর বীর মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী খান, রিপোর্টিং ইনচার্জ সাইফুল আলম, সহ সম্পাদক মোরশেদ আলম, হাসনাত মোর্শেদ, স্টাফ রিপোর্টার মোহাম্মদ আলী, পূর্বকোণ লিমিটেডের জিএম মোজাম্মেল জিলানী, হিসাব বিভাগের প্রধান মো. মারুফ, মানবসম্পদ কর্মকর্তা চন্দন শীল, সার্কুলেশন ম্যানেজার তাপস কুমার নন্দীসহ সংবাদিক-কর্মকর্তা এবং কর্মচারীগণ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন দৈনিক পূর্বকোণের ইউনিট প্রধান মিহরাজ উদ্দিন রায়হান।
দি পূর্বকোণ লিমিটেডের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন চৌধুরী ও দৈনিক পূর্বকোণ সম্পাদক ডা. ম রমিজ উদ্দিন চৌধুরী পত্রিকার প্রকাশনায় অতীতের মত ভবিষ্যতেও সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট