চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ

নাজিম মুহাম্মদ

এজাহারে তারিখ পাল্টে বিলম্বে মামলা নিল পুলিশ

বোয়ালখালী উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চুরির ঘটনায় থানায় দায়ের করা মামলায় বাদীর দেয়া তারিখ পরিবর্তন করেছে পুলিশ নিজেই। এজাহারে বাদীর দেওয়া অভিযোগের তারিখ পাল্টে মামলা নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মামলার বাদী ডা. রাকেশ দে। বাদীকে অবহিত না করে মামলার এজাহার পাল্টানোর বিষয়ে পুলিশ সুপার, সির্ভিল সার্জন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিত অভিযোগ দেবেন বলে জানান বাদী।

চট্টগ্রাম মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ফখরুদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘বাদীর দেওয়া এজাহারে পুলিশ হাত দিতে পারবেন না। এমনকি একটি চন্দ্রবিন্দুও নড়চড় করতে পারবেন না। তাছাড়াও ঘটনার তিনদিন পরে মামলা দায়েরের বিষয়টিও আইনগতভাবে সঠিক হয়নি। এতে আসামি গ্রেপ্তার হলেও দেরিতে মামলার দায়েরের কারণে সুবিধা নেবে অপরাধীরা।’

মামলার বাদী ডা. রাকেশ বলেন, গত ২১ সেপ্টেম্বর রাতের যে কোন সময় উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে চুরির ঘটনা ঘটে। ২২ সেপ্টেম্বর সকালে গিয়ে বিষয়টি আমরা জানতে পারি। চোরের দল উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের দুটি সিলিং ফ্যান, তিনটি লাইট, একটি বাচ্চাদের ওজন মাপার মেশিন নিয়ে গেছে। এসবের মূল্য ১৫ হাজার টাকা। মামলার বাদী ডা. রাকেশ বোয়ালখালীর শাকপুরা ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার।

গত ২২ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় তিনি ও তাঁর এক সহকর্মী মামলা করতে যান বোয়ালখালী থানায়। চার ঘণ্টা থানায় বসিয়ে রেখে বিকেল তিনটার দিকে পরিদর্শক (ওসি) আবদুর রাজ্জাক থানায় আসেন। তাঁর কক্ষে গিয়ে মামলা করার বিষয়টি জানালে চুরির ঘটনা শুনে বেশ হাস্যরস করেন ওসি। তিনি বলেন, সামান্য জিনিস চুরি হয়েছে তা নিয়ে আবার মামলা করতে হয়!

২২ সেপ্টেম্বর বোয়ালখালী থানার ওসি মামলাটি লিপিবদ্ধ করেননি। গতকাল থানার একজন উপ-পরিদর্শক (এসআই) উপ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চুরির ঘটনা তদন্ত করতে গেলে ডা. রাশেক দেখতে পান তাঁর দায়ের করা মামলার স্বাক্ষরের নিচে ২২ সেপ্টেম্বরকে ২৫ সেপ্টেম্বর লিখে মামলাটি দায়ের করেছে পুলিশ। জানতে চাইলে উক্ত এসআই সংখ্যাটি হাত দিয়ে চেপে ধরেন। কোন সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেননি।

ডা. রাকেশ বলেন, আমার স্বাক্ষরের নিচে দেয়া তারিখ পরিবর্তন করেছে পুলিশ। ঘটনার তিনদিন পর মামলাটি লিপিবব্ধ করেছে। যথাসময়ে মামলা না নিয়ে নিজেদের দোষ ঢাকতে এ অনিয়ম করেছেন বলে দাবি করেছেন তিনি। বিষয়টি পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে অবহিত করব।

জানতে চাইলে বোয়ালখালী থানার ওসি আবদুর রাজ্জাক বলেন, আমি থানায় ছিলাম না, বাইরে ছিলাম তাই আসতে দেরি হয়েছে। আইনকানুন সম্পর্কে ডাক্তাররা কিছুই বুঝেন না উল্লেখ করে ওসি রাজ্জাক বলেন, মামলাতো নিয়েছি। বাদীকে না জানিয়ে এজাহারের তারিখ পরিবর্তন করা প্রসঙ্গে ওসি রাজ্জাক সন্তোষজনক কোন জবাব দেননি।

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট