চট্টগ্রাম শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সর্বশেষ:

তিনদিন ব্যাপী স্বর্ণমেলা উদ্বোধন

অঘোষিত সোনা বৈধ করার সুযোগ স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৪ জুন, ২০১৯ | ২:০২ পূর্বাহ্ণ

স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের অঘোষিত ও মজুদকৃত স্বর্ণ, স্বর্ণালংকার, কাট ও পোলিশড ডায়মন্ড এবং রৌপ্যের ঘোষণা দিয়ে কর পরিশোধ করে বৈধ করার জন্য এটি একটি ভালো সুযোগ। বাংলাদেশে এ প্রথম কালো স্বর্ণালংকর সাদা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সুযোগ প্রদান করেন। তাই এ মেলায় কত ভরি স্বর্ণালংকারের কর প্রদান করছেন তার জন্য কোন প্রশ্ন করা হবে না। আমরা চাই ব্যবসায়ীদের অঘোষিত স্বর্ণালংকার, কাট ও পোলিশড ডায়মন্ড ও রৌপ্যেয়ের কর আদায়ের মধ্যে বৈধ করবেন। স্বর্ণমেলায় সিটি কর্পোরেশন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনসহ অতিথিরা একথা বলেন। গতকাল রবিবার সকাল এগারটায় নগরীর আগ্রাবাদ পেলিক্যান মেহজাবিন পিএইচপি ভবনে আয়কর বিভাগ আয়োজিত তিনদিনের স্বর্ণমেলা শুরু

হয়েছে। কর কমিশনার কর অঞ্চল-২ এর জি এম আবুল কালাম কায়কোবাদের সভাপতিত্বে মেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। বিশ্বেষ অতিথি ছিলেন কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা সদস্য (জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ঢাকা) কালিপদ হালদার, কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনার মোহাম্মদ এনামুল হক, দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম, চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির প্রেসিডেন্ট মিজ মনোয়ারা হাকিম আলী, চট্টগ্রাম কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি মো. জামাল উদ্দিন ও বাংলাদেশ জুয়েলারী সমিতির সভাপতি মৃণাল কান্তি ধর। বেলুন উড়িয়ে মেলায় উদ্বোধন ঘোষণা করে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। অনুষ্ঠানে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে অতিথিরা বলেন, বাংলাদেশে এ প্রথম কালো স্বর্ণ সাদা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের এ সুযোগ প্রদান করেন। যাতে স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা ভীতিহীন ভাবে তাদের ব্যবসা করতে পারে। তাই বাংলাদেশ স্বর্ণ ব্যবসায়ী সমিতির সকল সদস্যদের এ সুযোগ গ্রহণ করা উচিৎ এবং যারা এখনো স্বর্ণ ব্যবসায়ী সমিতির আওতায় আসেনি তাদের এ সমিতির আওতাধীন করা দরকার। মেলায় নিবন্ধিত স্বর্ণ ব্যবসায়ী সমিতির সদস্যদের অঘোষিত ও মজুদকৃত প্রতি ভরি স্বর্ণের কর প্রদার করতে হবে ১ হাজার টাকা, রৌপ্যের জন্য ৫০ টাকা, প্রতি ক্যারেট কাট ও পোলিশড ডায়মন্ডের জন্য ৬ হাজার টাকা কর পরিশোধ করতে হবে। আর এ সেবাটি আয়কর বিভাগ ব্যবসায়ীদের সম্পুন্ন বিনামূল্য প্রদান করবে আগামী তিনদিন। আগামীতে যেসকল গ্রাহক ২৫ হাজার টাকার উপরে কিংবা এক ভরির বেশি স্বর্ণ ক্রয় করবে সে ক্ষেত্রে তাদের এন আই ডি কার্ড নম্বর রাখা হবে। সময়ের সাথে বাংলাদেশ উন্নয়নের দিকে ধাবিত হচ্ছে। তাই সঠিক নিয়মে সম্পদের কর প্রদান করে দেশ উন্নয়নের পথ আরো তরান্বিত করতে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান। মেলার প্রথম দিনে স্বর্ণমেলার তথ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির আহ্বায়ক ও অতিরিক্ত কর কমিশনার মো. মাহমুদুর রহমান বলেন, ১১ জন স্বর্ণ, হীরা ও রৌপ্য ব্যবসায়ী ৮২৯ ভরি স্বর্ণ, ২ দশমিক ৫ ক্যারেট হীরা ও ১৭০ ভরি রৌপ্যের বিপরীতে আয়কর জমা পড়েছে ৮ লাখ ৫২ হাজার টাকা। এছাড়া ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে মেলায় রয়েছে স্বর্ণ ব্যবসায় জড়িত নতুন করদাতাদের ইটিআইএন’র প্রদান, চট্টগ্রামের প্রতিটি কর অঞ্চলের জন্য পৃথক বুথে ঘোষণা ফরম গ্রহণ, আয়কর পরিশোধের জন্য সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের বুথ ও পরামর্শ কেন্দ্র। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মেলা চলবে। নতুন করদাতাদের ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, পাসপোর্ট বা জাতীয় পরিচয় পত্রের ছায়াকপি সঙ্গে আনতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট