চট্টগ্রাম বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

ভেজাল খাবারের সাথে কোন ধরনের আপোষ নয় : বিভাগীয় কমিশনার

আঞ্চলিক টাস্কফোর্স ও বিভাগীয় আইন-শৃংখলা কমিটির সভা

১৮ জুন, ২০১৯ | ২:২০ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. মো. আবদুল মান্নান বলেন, রমজান আসলে বাজার মনিটরিং কার্যক্রম ও ভেজালের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হয় বলে অনেকে মন্তব্য করেন। গত রমজান মাস শুরুর আগে থেকে সবখানে যেভাবে ভেজাল খাবার বিরোধী অভিযান চলমান ছিল ঠিক সেভাবে ১২ মাস অভিযান অব্যাহত থাকবে। মধু মাসে বাজারে ফরমালিন ও অন্যান্য কেমিক্যালযুক্ত ফল বিক্রি করলে ও রেহাই নেই। যেখানে ভেজাল সেখানে আইন-শৃংখলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে নিয়ে ও মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করবে জেলা প্রশাসন। এজন্য ডিসি’দের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ভেজালের সাথে কোন ধরনের আপোষ নয়। এছাড়া বিচারক সংকটসহ বিভিন্ন কারনে আদালতে বিচারাধীন মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তি
হচ্ছেনা। ফলে মামলার জট বাধছে। মামলার বাদি-বিবাদি অনেকে তাদের মামলার অগ্রগতি বিষয়েও অবগত নন। মামলা মাথায় নিয়ে মানুষকে যাতে কবরে যেতে না হয় সে বিষয়টি বিবেচনায় রেখে আদালতের বিচারক, পিপি ও সংশ্লিষ্টদেরকে আরো দায়িত্ববান হতে হবে। কাউকে হয়রানি বা বিনা দোষে দোষী সাব্যস্ত না করে আদালতে বিচারাধীন মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে।
গতকাল ১৭ জুন সোমবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে পৃথকভাবে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম আঞ্চলিক টাস্কফোর্স সভা, বিভাগীয় আইন-শৃংখলা কমিটির সভা, আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ সমন্বয়ের লক্ষ্যে গঠিত বিভাগীয় কমিটির সভা, এসডিজি বাস্তবায়ন ও সমন্বয় সম্পর্কিত বিভাগীয় কমিটির সভা, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী সংক্রান্ত সভা, জেলা প্রশাসকগণের সাথে সমন্বয় সভা এবং বিভাগীয় রাজস্ব সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার অফিস পৃথক সভাগুলোর আয়োজন করেন। বিগত সভার সিদ্ধান্ত ও অগ্রগতি তুলে ধরেন বিভাগীয় কমিশনার অফিসের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ এনামুল হাসান ও মো. মোজাম্মেল হক।
চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মো.মাহাবুবর রহমান বলেন, নগরীর আইন-শৃংখলা স্বাভাবিক রয়েছে। মাদক রোধে পুলিশের পক্ষ থেকে থাকবে জিরো টলারেন্স। অস্ত্র উদ্ধার, চোরাচালানরোধ, জঙ্গি-সন্ত্রাসী ও চিহ্নিত অপরাধীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পৃথক সভাগুলোতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিভাগীয় স্থানীয় সরকার পরিচালক দীপক চক্রবর্তী, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামী, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ আবুল ফয়েজ, বিজিবি’র চট্টগ্রাম রিজিয়নের কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. আমিরুল ইসলাম সিকদার, ডিজিএফআই’র চট্টগ্রাম শাখার কর্মকর্তা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ এমদাদ উল্লাহ ভূইয়াঁ, সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী মো. সামসুদ্দোহা, কাস্টমস কমিশনার এম ফখরুল আলম, ভ্যাট কমিশনার মোহাম্মদ এনামুল হক, কাস্টমস,এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনার মো. মাহাবুবুজ্জামান, র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক কর্নেল মোহাম্মদ মাহাবুবুল আলম, বিজিবি বান্দরবানের সেক্টর কমান্ডার মো. জহিরুল হক, কোস্টগার্ড পূর্বজোনের অধিনায়ক কমান্ডার রেদওয়ান, চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের কমান্ডার সার্জেন্ট লে. আমিনুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন (চট্টগ্রাম), তন্ময় দাস ( নোয়াখালী), মো. মাজেদুর রহমান খান (চাঁদপুর), আবুল ফজল মীর (কুমিল্লা), মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম (বান্দরবান), অঞ্জন চন্দ্র পাল (লক্ষ্মীপুর), মো. কামাল হোসেন (কক্সবাজার), মো. শহিদুল ইসলাম (খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা), মো. ওয়াহিদুজ্জামান ( ফেনী), এনএসআই’র অতিরিক্ত পরিচালক মো. তোফাজ্জল হোসেন, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর চট্টগ্রাম রেঞ্জের পরিচালক মো. সাইফুজ্জামান, চট্টগ্রাম অঞ্চলের বন সংরক্ষক ড. মো. জগলুল হোসেন, রেলওয়ে জেলা পুলিশ সুপার নওরোজ হাসান তালুকদার, চট্টগ্রাম জেলা পিপি এডভোকেট একেএম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, চোরাচালান নিরোধ ট্রাইবুন্যালের স্পেশাল পিপি এডভোকেট হরিপদ চক্রবর্তী, মহানগর পিপি এডভোকেট ফখরুদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম চেম্বারের ভাইস প্রেসিডেন্ট সৈয়দ জামাল আহমদ, সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, বৃহত্তর চট্টগ্রাম পণ্য পরিবহন মালিক ফেডারেশনের সভাপতি আলহাজ আবদুল মান্নান, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক অঞ্জনা ভট্টাচার্য্য প্রমুখ । পৃথক সভাগুলোতে বিভাগের বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে কর্মরত কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। -বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট