চট্টগ্রাম শনিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

২৩ মে, ২০১৯ | ১:৪৩ পূর্বাহ্ণ

মো. দেলোয়ার হোসেন, চন্দনাইশ

ভিড় সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত ফুরসত নেই কথা বলার

ঈদ শপিং : দোহাজারী

চন্দনাইশে জমে উঠেছে ঈদ বাজার। ঈদের কেনাকাটার জন্য শপিং মলগুলোতে ভিড় করতে শুরু করেছে ক্রেতারা। বেচাবিক্রি বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরাও।
ক্রেতাদের ভিড়ের কারণে বেশিক্ষণ কথা বলারও সুযোগ পাচ্ছেন না বিক্রেতারা। এর মধ্যেই পছন্দের কাপড় কিনছেন ক্রেতারা। পছন্দের কাপড়টি কেনার জন্য এখন অনেকেই মার্কেটে মার্কেটে ঘুরে বেড়াচ্ছে। প্রতিদিন সন্ধ্যার পর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মার্কেটগুলোতে লোকের সমাগম ঘটে। বিশেষ করে তারাবিহ নামাজ শেষ করে ক্রেতারা তাদের পছন্দসই কাপড়টি সংগ্রহ করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
দোকানি ও ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতি রমজানে সাধারণত এ সময় থেকেই ঈদের কেনাকাটা পুরোদমে শুরু হয়। এখন থেকে দিন যত যাবে, ভিড় তত বাড়তে থাকবে বলে জানান গনি সুপার মার্কেটের বিক্রেতা আবু তাহের। ক্রেতা রায়হানাতুল জান্নাত বলেন, এখন যতটুকু দামদর করে কাপড় কেনার সুযোগ থাকছে, পরে সে সুযোগও থাকবে না। শপিং মলগুলোতে জামদানি শাড়ি, বিভিন্ন ধরনের কাতান, বেনারসী, জুট কটন, তসর, সিল্কসহ বিভিন্ন ধরনের শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে তুলনামূলক কম দামে।
শাড়ি কিনতে আসা সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, একই শাড়ি একেক জায়গায় ভিন্ন ভিন্ন দামে বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। নতুন পোশাক কেনা অনেকের পক্ষে একদিনে সম্ভব হয় না। এজন্য একাধিক দিন মার্কেটে আসতে হয়।
বিভিন্ন শপিং মল ঘুরে দেখা যায়, মেয়েদের পোশাকের দোকানে ভিড় একটু বেশি। তাদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলেই বলে দিচ্ছেন, ব্যস্ততার কারণে কথা বলার মতো সময় তাদের নেই। তবে অনেক বিক্রেতার দাবি, ক্রেতাদের উপস্থিতি থাকলেও বেচাকেনা তুলনামূলকভাবে ভালো না। ছিদ্দিক বাছুরা শপিং সেন্টারের বিক্রেতা মো. ফারুক বলেন, গত বছরের চেয়ে এবার বেচাকেনা খারাপ। মার্কেটে মানুষ আসছে, কিন্তু বেচাকেনা কম।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 265 People

সম্পর্কিত পোস্ট