চট্টগ্রাম রবিবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২১

২১ মে, ২০১৯ | ২:১৩ পূর্বাহ্ণ

মো. দেলোয়ার হোসেন, চন্দনাইশ

শঙ্খ নদীতে অবৈধ বালি উত্তোলন

কোটি কোটি টাকার ব্লক ধ্বংসের পথে দোহাজারী এলাকায়

সরকার শঙ্খ নদীর ভাঙন প্রতিরোধে প্রায় ২৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়। ইতিমধ্যে দোহাজারী চাগাচর এলাকাসহ শঙ্খ নদীর উভয়পাড়ে ব্লক স্থাপন করা হয়। সম্প্রতি ১টি প্রভাবশালী মহল দোহাজারী ব্রিজের পশ্চিম পাশে শঙ্খ নদী থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের কারণে ভাঙন প্রতিরোধে বসানো ব্লক নদীতে ভেঙে পড়তে শুরু করেছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, দোহাজারী ব্রিজের পশ্চিম পাশে শঙ্খ নদী থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে ১টি প্রভাবশালী মহল প্রকাশ্যে বালি উত্তোলন করে যাচ্ছে। এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ নজরুল ইসলাম চৌধুরীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রায় ২৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে শঙ্খ নদীর ভাঙন প্রতিরোধে বসানো ব্লক চাগাচর এলাকায় নদীতে পড়তে শুরু করেছে। একইভাবে সাতকানিয়ার কালিয়াইশ ইউনিয়নের উত্তর কালিয়াইশ অংশে বসানো ব্লকে ফাটল ধরেছে। এসব দৃশ্য দেখার যেন কেউ নেই। স্থানীয়দের অভিযোগ, ক্ষমতাসীন দলের রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থেকে কতিপয় ব্যক্তি প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার বালু উত্তোলন করে নিয়ে যাচ্ছে। এ বালি উত্তোলন বন্ধ না হলে সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে বসানো ব্লক ভেস্তে যাবে। স্থানীয়রা জানান, দোহাজারী-কক্সবাজার রেললাইন সম্প্রসারণের কাজ চালাতে এ বালি উত্তোলন করে রেলওয়ের ঠিকাদারের নিকট মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে সরবরাহ করা হচ্ছে। এতে শঙ্খ নদীতে জেগে উঠা চর কেটে নদীর পাশে আরেকটি খালের দৃশ্য খালি চোখে দেখা যাচ্ছে। এ কারণে নদীর গতিপথ পরিবর্তন হওয়ার পাশাপাশি শঙ্খের ভাঙন প্রতিরোধে বসানো ব্লক প্রকল্প ভেঙে যাচ্ছে।
এলাকাবাসী ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিতভাবে শঙ্খ নদী থেকে মাটি সরবরাহ বন্ধের জন্য অভিযোগ করেছেন বলে জানা যায়। এ প্রভাবশালী মহলটি সরকারদলীয় রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থেকে শঙ্খ নদীর অভ্যন্তরে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে দোহাজারী সদর, উত্তর কালিয়াইশ, বাজালিয়া, ধর্মপুর, নলুয়া, আমিলাইশসহ বেশকিছু এলাকা থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করে যাচ্ছে।
স্থানীয়রা এ অবৈধ বালি উত্তোলন বন্ধে কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ নজরুল ইসলাম চৌধুরীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 309 People

সম্পর্কিত পোস্ট