চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

নতুন স্থায়ী সেতু নির্মাণের দাবি স্থানীয়দের

হাটহাজারীতে স্টিল ব্রিজের পাটাতন ভেঙে দুর্ভোগ

খোরশেদ আলম শিমুল, হাটহাজারী

৩১ মে, ২০২৩ | ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

উপজেলার উত্তর মাদার্শা মাহলুমা বাজারের স্টিল ব্রিজটির পাটাতন ভেঙে যাওয়ায় প্রায়সময় স্কুল-মাদ্রাসার কোমলমতি শিক্ষার্থীরা আহত হচ্ছে। যান চলাচলেও সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। যেকোন মুহূর্তে ভাঙা পাটাতনে চাকা পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করা হচ্ছে। দুর্ঘটনা রোধে দ্রুত স্থায়ী সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, মাহলুমা বাজার এলাকায় ১৯৮৮-৮৯ সালের দিকে স্টিলের ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। ব্রিজটি দিয়ে মেখল, গড়দুয়ারা, ফতেপুর ও উত্তর মাদার্শা এই ৪ ইউনিয়নের কয়েক হাজার লোক প্রতিদিন উপজেলা সদরসহ চট্টগ্রাম শহরে আসা-যাওয়া করে থাকে। ইতিমধ্যে অক্সিজেন-হাটহাজারী সড়কের ফতেপুর মদনহাট থেকে গড়দুয়ারা লোহারপুল এলাকায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা সার্ভিস দেওয়া হয়েছে। সার্ভিসটি চালু হওয়ায় সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবী, বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজ-স্কুল ও মাদরাসার শিক্ষার্থীরা দ্রুতসময়ের মধ্যে চলাচল করছে।

ব্রিজটির পাটাতন ভেঙে গর্ত ও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যাওয়ায় ব্রিজটি দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। এতে করে সড়কটি দিয়ে চলাচলকারীরা দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। জানা যায়, ব্রিজটির উভয় পাশে মাহলুমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ মেখল উচ্চ বিদ্যালয়, মুজাদ্দিদে মিল্লাত তাহফিজুল কোরআন হেফজখানা, নুরানী মাদরাসা, মহিলা মাদরাসা, মাহলুমা কোচিং সেন্টার ও ইসলামী গণপাঠাগার রয়েছে। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন ঝুঁকিপূর্ণ স্টিল ব্রিজ দিয়ে আসা-যাওয়া করে। এতে করে প্রতিদিন শিক্ষার্থীরা অসচেতন অবস্থায় ব্রিজের ভাঙা স্থানে পা আটকে আহত হচ্ছে। কয়েকদিন আগে হাফেজ পড়ুয়া ইরফানুল হাকিম নামে এক শিক্ষার্থী মাদ্রাসায় যাওয়ার সময় ব্রিজের ভাঙা স্থানে পা আটকে গুরুতর আহত হয়। স্থানীয় তারেক নজরুল সওদাগর জানান, নতুন সেতু না হলে আমাদের চলাচল স্বাভাবিক হবে না। এখানে নতুন করে পাকা সেতু নির্মাণ করে দেওয়া হউক।

ঝুঁকিপূর্ণ এ পুরাতন স্টিল ব্রিজকে জোড়াতালি দিয়ে কোনরকমে যোগাযোগ ব্যবস্থা রক্ষা করা হচ্ছে। আর কতদিন এভাবে চলবো! বারবার পাটাতন ভেঙে যাওয়ার ঘটনায় আমাদের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে। যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। সড়কটি দিয়ে চলাচলকারী স্থানীয় ট্যাক্সি ড্রাইভার বেলাল উদ্দীন জানান, এ ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করে। গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজটির পাটাতন ভেঙে গিয়ে তাতে ফাটল দেখা দিয়েছে। তারপরও এ ব্রিজ দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। তবে যাত্রী দুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত সময়ের মধ্যে নতুন সেতু করে দেওয়ার দাবি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি। হাটহাজারী উপজেলা প্রকৌশলী জয়শ্রী দে জানান, ব্রিজটির ব্যাপারে আমরা অবগত আছি। নতুন ব্রিজের জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট