চট্টগ্রাম শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

১৬ জানুয়ারি, ২০২৩ | ৬:৫২ অপরাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, বোয়ালখালী

বারি-৪ ও বারি-২সহ দেশীয় উন্নতজাতের শিম চাষ

বোয়ালখালীর পথের ধারে শিমের সমাহার

পথের ধারে সবুজ পাতার মাঝে লতায় লতায় মাথা উঁচিয়ে রয়েছে সাদা-বেগুনী রঙের শিম ফুল। শিমও রয়েছে থোকায় থোকায়। অনেকে ঘরের আঙিনায়ও করেছেন শিমের চাষ।

পরিবারের চাহিদা মেটাতে পথের ধারে শিমের চাষ করেছেন বোয়ালখালী উপজেলার চরখিজিরপুর গ্রামের গৃহবধূ রহিমা বেগম। খুব বেশি নয়, ২৫টি মাদায় রোপণ করেছিলেন শিমের বীজ।

 

এরপর শিমের লতা জড়ানোর জন্য বাঁশের কঞ্চি দিয়ে ছাউনি দেন। এইটুকুই। এখন এসব লতায় ফুল আর শিমের ফলন আসতে শুরু করেছে। রহিমা বেগম বলেন, পরিবারের জন্য এসব শিম লাগিয়েছি। পরিপুষ্ট হলেই কচি শিম সংগ্রহ করে রান্না করব। শীতের প্রায় দিনই তরকারিতে শিম খাওয়া হয়। কিছু শিম রেখে দেওয়া হয় গাছে। গাছ শুকিয়ে গেলে তখন শুকনো শিমের বিচি সংরক্ষণ করে রাখা হবে। কৃষক চিনু দাশ বলেন, ‘বাড়িতে নিজস্ব জায়গা নেই। তাই পথের ধারে শিম লাগিয়েছি। শিম ভালো হয়েছে। বাজারে তো অনেক দাম। অল্প অল্প সংগ্রহ করে নিজেরাই ঘরে খাচ্ছি। এর মধ্যে কিছুটা আত্মীয়-স্বজনের কাছেও পাঠাই।’

অনেকে বাজারে বিক্রির জন্য শিম চাষ করেছেন। সকাল বেলা শিম সংগ্রহ করে বিকেলেই তা বিক্রি করছেন বাজারে। তরতাজা শিম বাজারে এখন প্রতি কেজি ৪০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কৃষক আবদুল গফুর বলেন, শাকপুরা-ননাইয়ার মার ঘাট সড়কের প্রায় ৪শ মিটার এলাকা জুড়ে শিম লাগিয়েছি। বাজারে ভালো দাম পাচ্ছি। এবার ভালো ফলন আসায় লাভবান হয়েছেন বলে জানান তিনি। শিমের কাঁচা বিচিও বিক্রি হয় বাজারে। শিমের কাঁচা বিচি স্থানীয়দের কাছে ‘খাইস্যা’ নামে পরিচিত।

 

কাঁচা শিমের বিচির শাঁস রোদে শুকিয়ে সংরক্ষণ করা যায়। কাঁচা শিমের বিচি বাজারে কেজিপ্রতি ১০০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। জানা গেছে, উপজেলার প্রায় প্রতিটি গ্রামীণ সড়কের ধারে, বাড়ির আঙিনায় শিমের চাষ হয়েছে। এ বছর ভালো ফলনও পাচ্ছেন চাষীরা। বাজারে দাম ভালো থাকায় লাভবান হচ্ছেন শিম বিক্রি করে। উপজেলার পশ্চিম গোমদণ্ডীর চরখিজিরপুর, চরখিদিরপুর, পশ্চিম শাকপুরা, টেক্সঘর, সারোয়াতলী, শ্রীপুর-খরণদ্বীপ, জৈষ্ঠ্যপুরা, পোপাদিয়া, আমুচিয়া ও কড়লডেঙ্গায় ব্যাপক হারে শিমের চাষ হয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আতিক উল্লাহ বলেন, ‘শিম শীতকালীন সবজি হিসেবে জনপ্রিয়। কম খরচে ও স্বল্প পরিশ্রমে শিমের চাষ করা যায়। শিমের বিচি সংরক্ষণ করে সারাবছর রাখা যায়। শিম এবং বিচিতে অনেক পুষ্টিগুণ রয়েছে।’ বোয়ালখালী উপজেলায় এবার বারি-৪ ও বারি-২সহ দেশীয় উন্নত জাতের শিম চাষ হয়েছে বলে জানান কৃষিবিদ আতিক উল্লাহ। 

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট