চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

২৭ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১২:১০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, কর্ণফুলী

৪০ ঘণ্টা পর বাবার লাশ দাফন

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এম্বুলেন্সে বাবার লাশ রেখে পেনশনের টাকা ভাগ-বাঁটোয়ারা নিয়ে ঝগড়া-বিবাদে জড়িয়ে লাশ দাফন করছিলেন না সন্তানরা। পেনশনের টাকা সমবণ্টনে প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে ৪০ ঘণ্টা পর বাবার লাশ দাফন করেন সন্তানরা।

 

সোমবার সকাল ১০টার দিকে বড় উঠান ইউনিয়নে মরহুম মনির আহমদের নিজ বাড়িতে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এর পর পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয় সকাল ১১টার দিকে।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করে কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মামুনুর রশিদ বলেন, আজ (সোমবার) সকালে উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরী, কর্ণফুলী থানার ওসি দুলাল মাহমুদ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ আমরা মরহুম মনির আহমদের পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলি। অবসরের টাকা সমবণ্টনের আশ্বাস দিলে মনির আহমদের ছেলেরা বাবার লাশ দাফন করতে সম্মত হয়। সোমবার সকাল ১০টার দিকে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এর পর পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

 

উল্লেখ্য, কর্ণফুলী উপজেলার বড়উঠান ইউনিয়নের বাসিন্দা মনির আহমদ (৬৫) চাকরি করতেন একটি তেল কোম্পানিতে। তিনি গত বছর অবসরে যান। তার স্ত্রী, তিন মেয়ে ও দুই ছেলে আছে। অবসরের টাকা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুই ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে বিরোধ চলছিল। স্ত্রী পক্ষ নেন ছেলেদের পক্ষে। ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মনির আহমদ শনিবার মারা যাওয়ার পর এ নিয়ে রবিবার সকালে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ মান্যগণ্য ব্যক্তিদেও নিয়ে সামাজিক বৈঠকও হয়েছে।

 

কিন্তু বৈঠকে কোন সুরাহা না হওয়ায় রবিবার মৃত মনির আহমদের লাশ দাফন করা হয়নি। মারা যাওয়ার পর শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত এম্বুলেন্সে এনে লাশ রেখে দেন বাড়ির পাশের সড়কে। ছেলেদের দাবি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কৌশলে ৩০ লাখ টাকা ব্যাংক থেকে সরিয়ে নেন মেয়েরা। বিষয়টি পরবর্তীতে থানা পুলিশ পর্যন্ত গড়ায়। সন্তানদের এমন কীর্তিতে হতবাক হয়ে গেছেন স্থানীয়রা। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট