চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

৫ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ

মো. দেলোয়ার হোসেন, চন্দনাইশ

জামিজুরী দেয়ানজিখীলের যুদ্ধে ২ মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন

উপজেলার হাশিমপুর ও দোহাজারী জামিজুরী দেয়ানজিখীল এলাকায় পাকহানাদার বাহিনীর সাথে সম্মুখ যুদ্ধে ২ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণে বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রকৌশলী মোহাম্মদ ইসলাম এ তথ্য জানান। যুদ্ধকালীন সময় তিনি সেকশন কমান্ডার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বলেন, এপ্রিল মাসের প্রথম দিকে তাঁদের ৩০ জনের একটি দল চন্দনাইশের ধোপাছড়ির পাহাড়ি অঞ্চল পাড়ি দিয়ে টানা ৯ দিন পায়ে হেঁটে ভারতের আসামে পৌঁছেন।

 

এরপর তাদের ভারতের দেমাগ্রী আর্মি ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রায় দেড় মাস গেরিলা ট্রেনিংয়ের পর তাদের যুদ্ধের জন্য দেশের উদ্দেশ্যে আগরতলা হয়ে হরিণা ক্যাম্পে পাঠিয়ে দেয়া হয়। সেখানে শহীদ আবু তাহের খান খসরুকে গ্রুপ কমান্ডার এবং জাফর আলী হিরুকে ডেপুটি কমান্ডার করে ১নং সেক্টরের অধীনে ৩৩ জনের একটি গ্রুপ গঠন করা হয়। এ গ্রুপকে ১১ জন করে ৩টি সেকশনে ভাগ করে একটি সেকশনের কমান্ডার হিসাবে তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়।

 

সকল প্রস্তুতি শেষে তাদের যুদ্ধের প্রয়োজনীয় অস্ত্রশস্ত্র সরবরাহ করা হয় এবং পরে ফেনী নদী পার হয়ে ফটিকছড়িতে প্রবেশ করে তারা মাইজভাণ্ডার শরীফের দেলা মিয়ার খামারে অবস্থান নেন। সে সময় ঈদুল ফিতরের জামায়াতের সময় অস্ত্রশস্ত্রসহ ৩ জন রাজাকারকে আটক করে তাদের কাছ থেকে অস্ত্র কেড়ে নিয়ে রাঙ্গুনিয়ার রামপুরহাট চলে আসেন।

 

খবর পেয়ে পাকবাহিনীর সদস্যরা পাহাড়তলী ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ক্যাম্প থেকে তাদের উপর অতর্কিত গুলিবর্ষণ শুরু করে। তারা তখন সাঁতার কেটে কর্ণফুলী নদী পার হয়ে বোয়ালখালী প্রবেশ করে সেনবাড়িতে অবস্থান নেন। এরপর পটিয়া উপজেলা হয়ে ডিসেম্বরের ৭ তারিখে চন্দনাইশের বরকল হয়ে হাশিমপুর ও জামিজুরী এলাকার মধ্যবর্তী দেয়ানজিখীল নামক পাহাড়ি অঞ্চলে অবস্থান নেন।

 

ইতিমধ্যে দেয়ানজিখীল এলাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের অবস্থানের খবর স্থানীয় রাজাকারদের মাধ্যমে পেয়ে দোহাজারীতে অবস্থানকারী পাকবাহিনী পরদিন (৮ ডিসেম্বর) মাগরিবের পরপরই তাদের উপর অতর্কিত হামলা শুরু করে। তখন পাকবাহিনীর সাথে প্রায় ৩ ঘণ্টাব্যাপী সম্মুখযুদ্ধে ২ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন।

 

প্রতিশোধ নিতে আবারো পাকবাহিনীর সাথে তীব্র প্রতিরোধ গড়ে তুলেন তারা। তীব্র প্রতিরোধের মুখে রাতের বেলা পাকবাহিনীর সদস্যরা পিছু হটতে বাধ্য হয়।

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট