চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

২৯ নভেম্বর, ২০২২ | ৮:১১ অপরাহ্ণ

চকরিয়া-পেকুয়া সংবাদদাতা

বসতঘর পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা

দিন দুপুরে মালামালসহ বসতঘর পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) চকরিয়া উপজেলা জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে শাহানা আক্তার বাদী হয়ে নালিশী মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় ৭ জনকে অভিযুক্ত দেখানো হয়েছে।

গত ২৪ নভেম্বর উপজেলা সাহারবিল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সাহারঘোনা এলাকায় অগ্নিসংযোগের ঘটনার ৫দিন পর আইনের আশ্রয় নিয়েছে শাহানা আক্তার। বিজ্ঞ বিচারক নালিশী মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তপূর্বক আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

 

মামলার বাদী শাহানা আক্তার জানান, উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সাহারঘোনা এলাকায় তার ছেলে সাদেকুল ইসলাম সুজনের ৯ শতক জমিতে সেমিপাকা বাড়ি রয়েছে। বাড়ির বাউন্ডারি ওয়াল রয়েছে। বাড়ির চারপাশে বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালাও রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে পুত্রকে নিয়ে বসবাস করতাম ওই বাড়িতে। কিন্তু বর্তমানে পুত্র সাকেদুল ইসলাম সুজনের চাকরীর সুবাদে আমরা চট্টগ্রাম শহরে বসবাস করছি। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে বসতভিটে জবর দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় দখলবাজ চক্র।

বাদী আরও বলেন, গত ২৪ নভেম্বর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একই এলাকার মৃত আবদুল জলিলের পুত্র শহীদুল ইসলাম সোহেল ও সাইফুল ইসলাম সোহাগের নেতৃত্বে ওই বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেন। এসময় স্থানীয় এলাকাবাসী ও চকরিয়া ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে। এরইমধ্যে আগুনে বসতঘরের মূল্যবান মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

 

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, সাহারবিলে বসতঘর অগ্নিসংযোগের ঘটনার মামলার এখনো কোন কপি পাইনি। আদালতের কাগজপত্র পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

পূর্বকোণ/জাহেদ/রাজীব

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট