চট্টগ্রাম বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯

৮ নভেম্বর, ২০১৯ | ১১:২৯ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

উত্তাল সমুদ্র, নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

চট্টগ্রাম বন্দর ও এর আশপাশের উপকূলীয় এলাকায় তিন নম্বর সতর্ক সংকেত বিরাজ করায় চট্টগ্রামসহ চার সমুদ্রবন্দরে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সৃষ্ট বৈরী আবহাওয়ার কারণে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এছাড়া বঙ্গোপসাগর উত্তাল থাকায় তীরে ভিড়ছে সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলার। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ ঘোষণা বলবৎ থাকবে।

জাহাজ চলাচল বন্ধ হওয়ার আগে যেসব পর্যটক সেন্টমার্টিন চলে গেছেন তারা এখনই ফিরতে পারবেন না বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাদেরকে সেখানকার হোটেলে অবস্থান করতে হবে। এছাড়া সন্দ্বীপগামী শত শত মানুষ ঘাটে এসেও ফিরে যাচ্ছেন। আটকেপড়া পর্যটকরা দ্বীপের ১০৬টি হোটেল-মোটেল ও কটেজে অবস্থান করবেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পর্যটকরা ফিরতে পারবেন বলে জানিয়েছে সেন্টমার্টিন পুলিশ। এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় পটুয়াখালীতেও নৌযান চলাচাল বন্ধ রয়েছে। কলাপাড়া উপজেলার আলীপুর মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আনসার মোল্লা জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলো তীরে ভিড়ছে। এছাড়াও সকাল থেকে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। থেমে থেমে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ বাংলাদেশ-ভারত উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে। ঘূর্ণিঝড়টি দেশের উত্তর-পশ্চিমদিকে এগিয়ে আসছে। এটি খুলনা, পটুয়াখালী ও বরিশালের আশপাশ এলাকায় শুক্রবার বিকাল নাগাদ আঘাত করতে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়, অগ্রসর ও ঘণীভূত হয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আকারে পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে। এটি বৃহস্পতিবার রাত নয়টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৭০৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। এটি আরো ঘনীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। প্রবল ঘূর্ণিঝড়টির অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে সমুদ্রবন্দরগুলো, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৯০ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১শ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এজন্য সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। আগামী পাঁচদিনের মধ্যে আবহওয়ার উন্নতি হতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহওয়া অফিস।

আজ এখন পর্যন্ত চট্টগ্রামের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৯.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্বনিন্ম তাপমাত্রা ২৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দুপুর পর্যন্ত বাতাসে জলবায়ুর আর্দ্রতা ৮২ শতাংশ হলেও বিকালে তা বেড়ে ৮৫ শতাংশ হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহওয়া অধিদপ্তর। চট্টগ্রামে আজ সূর্যাস্তের সময় ৫টা বেজে ১২ মিনিট।

 

 

 

 

 

পূর্বকোণ/এম

 

The Post Viewed By: 66 People

সম্পর্কিত পোস্ট