চট্টগ্রাম বুধবার, ০৬ জুলাই, ২০২২

সর্বশেষ:

২১ মে, ২০২২ | ১২:০৪ অপরাহ্ণ

সাতকানিয়া সংবাদদাতা 

চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী সংঘাতের শঙ্কা স্থানীয়দের

১৫ জুন সাতকানিয়া উপজেলায় একটি মাত্র ইউনিয়ন এওচিয়াতে অনুষ্ঠিত হবে ইউপি নির্বাচন। নির্বাচনকে ঘিরে চেয়ারম্যান পদে তিনজন, সংরক্ষিত মহিলা পদে ১২ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৬০ জনসহ ৭৫ জনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করেছে উপজেলা নির্বাচন কমিশন। চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনকে ঘিরে এবার ইউনিয়নে রয়েছে চরম উত্তেজনা। আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আবু ছালেহ সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসীন কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি গোলাম হোসেনের ভাই যাকে ২০০১ সালের ৮ এপ্রিল বোরকা পরা দুর্বৃত্তরা গুলি করে হত্যা করে। এছাড়া এওচিয়ার বর্তমান চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক এবারও চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীক না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পদেও আছেন। বর্তমান চেয়ারম্যান হিসাবে এলাকায় শক্ত অবস্থানে আছে। সাবেক চেয়ারম্যান আহমদুল হক চৌধুরীর ভাই মাহমুদুল হক চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। স্থানীয় কয়েকজন ভোটার জানান, তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থীই যার যার জনপ্রিয়তায় শক্ত অবস্থানে আছেন। ফলে কোন প্রার্থী যদি নির্বাচন থেকে সরে না দাঁড়ায় তাহলে ভয়াবহ সংঘাত ঘটতে পারে। জনগণের নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে শক্ত অবস্থানে থাকতে হবে। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবু ছালেহ বলেন, আমি চাই, আমার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা নির্বাচনী আচরণবিধি মানার মাধ্যমে সহাবস্থান বজায় রেখে নির্বাচন করুক। তারা কোন সহিংসতা ঘটিয়ে জনগণের মধ্যে ভয়ভীতির সঞ্চার না ঘটিয়ে, বরং জনগণ যেন নির্ভয়ে ভোটকেন্দ্রে এসে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে ভোট দিতে পারে সেভাবে নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করবে, এটাই আমার প্রত্যাশা। অন্যদিকে, নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক বলেন, ‘আমি জনগণের প্রার্থী। জনগণ চেয়েছে বলে আমি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি। বর্তমান নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী আমার বাড়ির আশেপাশ গিয়ে শোডাউন দিচ্ছে এবং আমাকে বিভিন্নভাবে থ্রেট করার চেষ্টা করছে। জনগণকে সাথে নিয়ে আমি শেষ পর্যন্ত মাঠে লড়ে যাব। এদিকে অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহমুদুল হক চৌধুরী বলেন, আমি আগেও চেয়ারম্যান ছিলাম এলাকার আমার যতেষ্ট জনপ্রিয়তা রয়েছে। আমি এলাকায় উন্নয়ন করেছি বিগত সময়ে। তাই জনগন আমাকে ভোট দিয়ে বিজয় করবে ইনশাআল্লাহ্। সাতকানিয়া থানার ওসি তারেক মুহাম্মদ আব্দুল হান্নান বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে কোন ধরনের সংঘাত না হওয়ার জন্য ইতিমধ্যে আমাদের পুলিশের টিম নিয়মিত এওচিয়ায় টহলে থাকে এবং গোয়েন্দা নজরদারি আছে। ভোট গ্রহণ শান্তিপূর্ণভাবে শেষ করতে আমরা সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।
সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু তালেব মণ্ডল বলেন, ভোটারদের নিরাপত্তা এবং নির্বাচন পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর অবস্থানে থাকবে। আমরা আশাকরি সুন্দরভাবে সাতকানিয়া এওচিয়া ইউপি নির্বাচন সমাপ্ত করতে পারবো।

পূর্বকোণ/এস 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট