চট্টগ্রাম সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

১৮ মে, ২০১৯ | ৫:১৪ অপরাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

রহস্য উন্মোচন করলেন মোসাদ্দেক

এ যেন সেই মোসাদ্দেক হোসেন! ঘরোয়া ক্রিকেটে যার ব্যাট বহুবার তাঁর দলকে দেখিয়েছে চাপমুক্তির পথ। কঠিন মুহূর্তে দেখিয়েছে জয়ের দিগন্ত। কাভার ড্রাইভে রেমন রেইফারকে বাউন্ডারি মেরে জয়সূচক রানটা করেন মাহমুদউল্লাহ।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট উইন্ডিজকে গুঁড়িয়ে দিয়েছে টাইগাররা। গত শুক্রবার (১৭ মে) শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ২৪ ওভারে জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ২১০ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২২.৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ দল। টাইগারদের এই জয়ের পেছনে অনবদ্য অবদান রাখেন মোসাদ্দেক। ২৪ বলে ২ চার ও ৫ ছয়ে ৫২ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন তিনি। এরই ফলে ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠেছে তার হাতে।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচ শেষে মোসাদ্দেক বলেন, ‘আমাদের তখন ১৮ বলে ২৭ রান প্রয়োজন ছিল। আমরা ফাবিয়ানের ওই ওভারটা টার্গেট করেছিলাম। ওই ওভারটায় রান তুলে আমারা নিজেদের এগিয়ে রাখতে চেয়েছিলাম। আমার পরে সাইফ উদ্দিন, মিরাজ ও মাশরাফি ভাই ছিলেন। মাশরাফি ভাইও কিন্তু বিগ হিট খেলতে পারেন। তবে আমাদের লক্ষ্য ছিল ম্যাচ শেষ করে আসা। আসলে আমি মনে করি সবাই বুঝেছিল যে ওই ওভারেই আমরা আমাদের কাজ শেষ করেছি। ওই ওভারটাই ছিল টার্নিং পয়েন্ট।’

ম্যাচের ২২তম ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক জ্যাসন হোল্ডার বল তুলে দিলেন ফাবিয়ান অ্যালেনকে। মোসাদ্দেক টার্গেট করেন তাকে। ফাবিয়ানের সেই ওভারের প্রথম চার বলে তিন ছক্কা ও এক চার মেরে জয়টা হাতের নাগালে নিয়ে আসেন। পাশাপাশি ২৪ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন। অ্যালেনের ওই ওভারে মোট ২৫ রান তোলে সৈকত ও মাহমুদউল্লাহ।

আগামীতেও তিনি এভাবেই আগ্রাসী ব্যাটিং করতে চান, ‘আসলে ম্যাচের ওই পরিস্থিতিকে আমাকে এভাবেই আগ্রাসী ও ইতিবাচক ক্রিকেটটাই খেলতে হতো। আমি বলের মেরিট বুঝে সেটা খেলার চেষ্টা করেছি। আমি মনে করি ইংল্যান্ডে আমরা এর চেয়ে ভালো উইকেটে খেলব। লেট অর্ডারে নেমে আমি এভাবেই খেলার চেষ্টা করব। যেটা আমাদের জয়ের ক্ষেত্রে সহায়ক হবে।’

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 245 People

সম্পর্কিত পোস্ট