চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯

১৬ নভেম্বর, ২০১৯ | ১:৩৮ পূর্বাহ্ন

স্পোর্টস ডেস্ক

পারফরম্যান্সের প্রত্যাশায় রাসেল ডোমিঙ্গো

বিরাট কোহলির টেস্টে সেঞ্চুরি ২৬টি। ইন্দোরে বাংলাদেশের একাদশে যারা খেলছেন সবার সেঞ্চুরি মিলিয়ে সংখ্যাটা ২১। ভারতের তুলনায় একেবারে অনভিজ্ঞ বাংলাদেশ দল। ইন্দোর টেস্ট নিয়ে মুশফিকের টেস্ট সংখ্যা ৬৯। মাহমুদউল্লাহর ৪৮, ইমরুলের ৩৯ ও মুমিনুলের ৩৮। সিনিয়র বলতে আছেন এ চারজনই। যাদের উপর দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং। ইন্দোরে প্রথম ইনিংসে চারজনই ফ্লপ। মুশফিক ও মুমিনুল সেট হয়ে রানের আশা দেখালেও হতাশা নিয়ে আউট হয়ে ফেরেন সাজঘরে। ইমরুল ও মাহমুদউল্লাহ আউট হয়েছেন বাজে শটে। টেস্টের নাটাই এখন ভারতের হাতে।

বাংলাদেশের ১৫০ এর জবাবে ভারত তুলেছে ৪৯৩ রান। লিড এরই মধ্যে হয়েছে ৩৪৩। ইনিংস পরাজয় চোখ রাঙানি দিচ্ছে। এখান থেকে ম্যাচ বের করা কঠিন তা মানছেন বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। তবে আশা ছাড়ছেন না প্রোটিয়া কোচ। দ্বিতীয় ইনিংসে ছেলেদের থেকে ‘আউট অব দ্য বক্স’ পারফরম্যান্সের প্রত্যাশায় বাংলাদেশের কোচ। গতকাল শুক্রবার দিনের খেলা শেষে ডোমিঙ্গো এসেছিলেন সংবাদ সম্মেলনে। সদা হাস্যোজ্জ্বল মুখটায় ছিল মলিন। হতাশার দিন শেষে ডোঙ্গিমো বলেছেন, ‘আমরা কঠিন সময় কাটিয়েছি আজ (গতকাল)। পুরো ক্রেডিট ভারতের। তারা দুদিনই আমাদের উপর দাপট দেখিয়েছে। তিনদিন এখনও ম্যাচ বাকি। কঠিন পরিস্থিতি বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে এখান থেকে আমি ব্যাটসম্যানদের জন্য বড় সুযোগ দেখছি। কেউ কেউ এখান থেকে আউট অব দ্য বক্স পারফরম্যান্স করতে পারে তাহলেই কিছু সম্ভব।’ প্রথম ইনিংসের ব্যাটিং ব্যর্থতা ডুবিয়েছে দলকে। পেসার আবু জায়েদ রাহী বাদে কেউই ভালো কিছু করতে পারেনি। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যাটিংয়ের উপর নির্ভর করছে ম্যাচের ভাগ্য। ব্যাটসম্যানদের থেকে বড় কিছুর আশায় রয়েছেন ডোমিঙ্গো, ‘আমাদের ছেলেদের ব্যাটিং গড় ২০ বা ৩০ এর মতো। আমাদের এমন কয়েকজনকে লাগবে যারা ১০০, ১৫০ বা ২০০ করতে পারবে, যেটা আগারওয়াল করে দেখিয়েছেন। এজন্য বলছি, দ্বিতীয় ইনিংস ব্যাটসম্যানদের জন্য অনেক বড় সুযোগ।’

বাংলাদেশ যে কাঠামোতে টেস্ট খেলছে, তাতে ফল পাওয়ার কোন সম্ভাবনা দেখছেন না বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে সাফল্য আনতে কাঠামোগত বদলের প্রয়োজনীয়তা দেখছেন কোচ। টেস্ট দলে নতুন প্রাণ সঞ্চার করতে চান তিনি একইসঙ্গে পুরনো কাউকে কাউকে বাদ দেওয়ারও ইঙ্গিত তার কথায়। কোচের কণ্ঠে আরও নতুন খেলোয়াড় নিয়ে আসার আভাস। আবার একইসঙ্গে অভিজ্ঞ কিছু খেলোয়াড়ের অবদান স্বীকার করে তাদের বিদায় দেওয়ার ইঙ্গিত কোচের কণ্ঠে, ‘কোন সন্দেহ নেই দলের কাঠামো বদলাতে হবে, না হলে ফল আসবে না। আমি নির্বাচকদের সঙ্গে বসব এবং এই নিয়ে পরিকল্পনা করব। আমাদের কিছু খেলোয়াড় বের করতে হবে যাদের নিয়ে এগোনো যায়। যদি কিছু নতুন খেলোয়াড় নিয়েও আমাদের সংগ্রাম করতে হয় তাহলে এখানকার চেয়ে খারাপ কিছু হবে না। আমাদের দলে কিছু দুর্দান্ত খেলোয়াড় আছে এবং তাদের সম্মান করতে হবে। তাদের পাররম্যান্সের মূল্য দিতে হবে। কিন্তু দলের স্বার্থে আমাদের কিছু সিদ্ধান্ত নিতেই হবে।’

The Post Viewed By: 69 People

সম্পর্কিত পোস্ট