চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৮ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:০৭ পূর্বাহ্ন

হুমায়ুন কবির কিরণ

বাংলাদেশকে গুঁড়িয়ে সমতায় ভারত

পরিসংখ্যানতত্ত্বকে খুব বেশি গুরুত্ব দেন না রোহিত শর্মা। তারকাছে একটা বিষয়ই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পায়-ম্যাচ জয়! আর জিততে গিয়ে সেখানে যদি মাইলফলক হয়ে গেল, তো মন্দ কি? রাজকোটে টি- টোয়েন্টি ক্যারিারের ১০০তম ম্যাচে ব্যাট হাতে ভারত অধিনায়ক যা করলেন সেটাই কম কিসে। মাত্র ২৩ বলে করলেন ঝড়ো হাফসেঞ্চুরি। মাত্র ৪৩ বলে ডজন বাই-ারি ও ওভার বাউ-ারিতে ৮৫ রান করে রোহিত যখন আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের বলে সাজঘরের পথে, ভারত তখন সিরিজ সমতার খুব কাছে। পরে ২৭ বলে ৩১ রান করা শিখর ধাওয়ানের উইকেট হারিয়ে ২৬ বল হাতে রেখেই বাংলাদেশের ৬ উইকেটে করা ১৫৩ রানকে টপকে যায় স্বাগতিক ভারত। ৩ ম্যাট টি- টোয়েন্টি সিরিজের দুই ম্যাচ শেষে উভয় দল সমতায়। সঙ্গত কারণেই নাগপুরে ১০ তারিখের শেষ ম্যাচটি ‘ফাইনাল’-এ পরিনত হয়েছে। গতকাল টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে আরেকটি রেকর্ড জুটির সঙ্গী হলেন রোহিত শর্মা। আর্ন্তজাতিক টি- টোয়েন্টিতে সাতটি সেঞ্চুরি পার্টনারশিপে এখন তার নাম। শিখর ধাওয়ানের সঙ্গে জুটি বেঁধে গড়েছেন চারটি সেঞ্চুরির সখ্য। আর বিরাট কোহলির সঙ্গে জুটি বেঁধে গড়েছেন আরো তিনটি সেঞ্চুরির পার্টনারশিপ।

রাজকোটে গতকাল কিন্তু গল্পটা শুধু রোহিতের না হয়ে টইগারদেরও হতে পারতো। হলো না, ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বহীনতার সাথে বোলারদের নির্বিষ বোলিংয়ে। যেরকম উইকেট ছিল রাজকোটে, আরও ২০টা রান বেশি না হওয়াটা আফসোসেরই। তার উপর নিজেদের স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্যের বাইরে গিয়ে একের পর এক হাস্যকর ভুল করেছেন ভারতীয় ফিল্ডাররা, সাথে আম্পায়াররাও। টাইগাররা সেটার সুযোগ নিতে পারলেন কই? বরং মেতে উঠলেন উইকেট বিলিয়ে দেয়ার উৎসবে! লিটন দাস ও নাঈম শেখ ৭ ওভারেই উদ্বোধনী জুটিতেই তুলে ফেলেছিলেন ৬০ রান। সেখান থেকেই লিটন দাসের হাস্যকর রান-আউটে ম্যাচ থেকে বাংলাদেশের ছিটকে পড়ার শুরু।

যুজবেন্দ্র চাহালের বলে অযথা বেরিয়ে আসতে গিয়ে হন স্টাম্পড। কিন্তু টিভি রিপ্লেতে তৃতীয় আম্পায়ারের কাছে সিদ্ধান্ত যেতেই ঘটে বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তি। রিপ্লেতে দেখা যায় স্টাম্প পার হওয়ার আগেই বল ধরে স্টাম্পিং করেছেন উইকেটরক্ষক রিশভ পান্ত। পরে আউটের সিদ্ধান্ত পাল্টে উল্টো নো বল ডাকেন আম্পায়ার। ফ্রি-হিটসহ টানা দুই বলে চার মেরে জবাব দেন লিটন। ওয়াশিংটন সুন্দরের করা পরের ওভারে আবারও জীবন পান লিটন। সপ্তম ওভারের তৃতীয় বলে সুইপ করতে গিয়ে বল তুলে দেন লেগে। ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা গিয়েছিলেন, কিন্তু বল তার পিচ্ছিল হাত গলে পড়ে যায় মাটিতে। দু’বার জীবন পেয়েও অবশ্য কাজে লাগাতে পারেননি লিটন, নিজেরই ভুলে ছুঁড়ে আসেন উইকেট। চাহালের বল আঘাত হেনেছিল প্যাডে, লিটন তা দেখতে পাননি। না দেখে রান নিতে গিয়েই করেন ভুল, বল পেয়ে এবার তাকে পার পেতে দেননি রিশভ। উইকেট ভেঙে করেন রানআউট। ৪ চারে ২১ বলে ২৯ করে যান লিটন। ভাঙে ৬০ রানের উদ্বোধনী জুটি। নবাগত নাঈম শেখ ভালো খেলতে থাকলেও ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে স্লগ সুইপে ধরা পড়েন শ্রেয়াস আয়ারের হাতে। ৫ চারে ৩১ বলে ৩৬ করলেও বাংলাদেশ ইনিংসকে শক্ত অবস্থানে রেখে যেতে তার অবদান কম নয়। তিন নম্বরে নেমে বিধ্বংসী ব্যাটিং শুরু করেছিলেন সৌম্য সরকার। দ্রুত ঘুরছিল রানের চাকা। ঠিক তখনই ছন্দপতন। যুজবেন্দ্র চাহালকে ডাউন দ্য উইকেটে মারতে গিয়ে স্টাম্পড হয়ে যান এই হার্ডহিটার। ২০ বলে ৩০ রান করে সাজঘরেই ফিরতে হয় সৌম্যকে। বাংলাদেশও বিপদে পড়ে যায়। তবে সৌম্যর আউট নিয়ে মাঠে যা নাটক করলেন আম্পায়াররা, তা নজিরবিহীন! প্রযুক্তি বেষ্টিত হয়ে বসে থাকা থার্ড আম্পায়ারেরও যে এমন দৃষ্টিকটূ ভুল হতে পারে, তা আগে দেখেনি ক্রিকেটবিশ্ব। এই ঘটনা নিয়ে এখন সোশ্যাল সাইটে তোলপাড় চলছে। ইনিংসের ১৩তম ওভারের ঘটনা। যুজবেন্দ্র চাহালের শেষ বলটি ডাউন দ্য উইকেটে গিয়ে হাঁকাতে চেয়েছিলেন সৌম্য। টাইমিং মিস করায় বল চলে যায় উইকেটকিপার ঋষভ পান্তের হাতে। লিটন দাসের মতো সৌম্যর বেলাতেও দেখা যায় তার হাতটা স্ট্যাম্পের আগে। সন্দেহ দূর করতে ডাকা হয় তৃতীয় আম্পায়ারকে। রিপ্লে দেখার পর রাজকোটের সৌরাষ্ট্র স্টেডিয়ামের জায়ান্ট স্ক্রিনেও ভেসে উঠল ‘নট আউট’। বাংলাদেশের সমর্থকরা তখন হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন। ওই লেখা দেখে বাউন্ডারির কাছ থেকে সৌম্য আবারও মাঠে ফিরে আসছিলেন। কিন্তু ওই স্বস্তি ছিল কয়েক সেকেন্ডের। ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা তেড়ে যান ফিল্ড আম্পায়ারের দিকে। তখনই আবারও জায়ান্ট স্ক্রিনে ভেসে ওঠে নতুন লেখা ‘আউট’! তখন সেই স্ক্রিন দেখিয়ে সৌম্যকে আবারও প্যাভিলিয়নের দিকে পাঠিয়ে দেন আম্পায়ার। নজিরবিহীন এক ভুলের সাক্ষী হয়ে থাকে সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট এসোসিয়েশনের স্টেডিয়াম। বাংলাদেশ ইনিংসে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২১ বলে ৩০ রান করলে বাংলাদেশ থামে ১৫৩ তে। কিন্তু লেগী আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের জোড়া উইকেট ছাড়া অন্য কোন টাইগার বোলার সাফল্য না পাওয়ায় ৮ উইকেটের বড় হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় অতিথিদের।

The Post Viewed By: 46 People

সম্পর্কিত পোস্ট