চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:১৫ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

শেখ কামাল ফুটবলের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন

প্রত্যেকটি দলই টুর্নামেন্টে ভাল করতে চায়

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট আজ থেকে মাঠে গড়াচ্ছে। চট্টগ্রামসহ সারা দেশের ফুটবল প্রিয় দর্শকরা মুখিয়ে রয়েছে ৫টি দেশের ৮টি দলের লড়াই দেখার জন্য। এ জন্য সকল ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এম এ আজিজ স্টেডিয়ামও সেজেছে নতুন সাজে। প্যাভেলিয়নের উপরে নতুনভাবে নির্মিত হয়েছে প্রায় ৬০ জনের আসন সমৃদ্ধ প্রেস বক্স।

মাঠকে আন্তজার্তিক মানে উন্নীত করা যার পর নাই চেষ্টা করা হয়েছে। ড্রেসিং রুমেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। পুরো গ্যালারি এবং বাইরে রং-ও করা হয়েছে। এমনই মাঠে শক্তিশালী দল নিয়ে লড়াই করতে এসেছে বি-লিগ চ্যাম্পিয়ন ঢাকার বসুন্ধরা কিংস, লাওসের তেরেঙ্গানা এফ সি ও ভারতের মোহনবাগান এথলেটিক ক্লাব ও লাওসের ইয়াং এলিফ্যান্টস এফসি এবং আজকের ম্যাচের দু-প্রতিদ্বন্ধী চট্টগ্রাম আবাহনী ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস। এখনো কারো খেলা দেখা না হলেও ফুটবলপ্রিয় দর্শকদের ধারণা টিসি স্পোর্টস, বসুন্ধরা কিংস, মোহনবাগান বা লাওসের তেরেঙ্গানা এফ সি দলের মধ্যে শিরোপা লড়াই সীমাবদ্ধ থাকবে। গতকাল এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের কনফারেন্স রুমে এ টুর্নামেন্ট উপলক্ষে প্রত্যেকটি দলের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে চট্টগ্রাম আবাহনী কোচ মারুফুল হক বলেছেন, আমাদের প্রথম লক্ষ্য সেমিফাইনাল খেলা। এরপর শিরোপা পুনরুদ্ধারের জন্য আমরা লড়াই করবো। ৩ সপ্তাহ ধরে দল অনুশীলণ করেছে, দলে রয়েছেন বেশ কয়েকজন জাতীয় ফুটবলার। বিদেশিও আছেন ৬ জনের মতো। আশা করছি আমরা বেশ ভাল একটা ফাইট দেবো। দলীয় অধিনায়ক যিনি বাংলাদেশ জাতীয় দলেরও অধিনায়ক জামাল ভুইয়া বলেছেন, আমাদের লক্ষ্য শিরোপা। আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ এগিয়ে যেতে চাই।

মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস দলের হেড কোচ আফিয়া মো. হামিদ বলেছেন, আবারো এসেছি এ টুর্নামেন্টে খেলতে আমাদের প্রধান লক্ষ্য শিরোপা ধরে রাখা। এটা আমাদের জন্য বেশ কঠিন হলেও আমরা সেভাবে প্রস্তুত হয়ে এসেছি। দলের ম্যানেজার মো. আবির চট্টগ্রামে এসে স্বাগতিকদের আথিয়েতায় আবারো মুগ্ধ হয়েছেন বলে উল্লেখ করে বলেন, আমরা পুরোপুরি তৈরি হয়েই এ টুর্নামেন্টে খেলতে এসেছি এবং শিরোপা জেতার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

বি-লিগ চ্যাম্পিয়ন ঢাকার বসুন্ধরা কিংস দলের অধিনায়ক ড্যানিয়েল কলিনড্রেস বলেছেন, এটা আমাদের জন্য প্রেস্টিজিয়াস একটি টুর্নামেন্ট। আমরা ভাল খেলতে চাই। দলের কোচ বলেছেন, গতবার বি-লিগ চ্যাম্পিয়ন দলের সাথে আরো কিছু নতুন খেলোয়াড় নিয়ে আমরা এখানে খেলতে এসেছি। একটা প্রেসার থাকবে। সেটা কাটানোর পাশাপাশি ভাল খেলার লক্ষ্য আমাদের রয়েছে। লাওসের ইয়াং এলিফ্যান্টস এফসি দলের কোচ মি. সরফরাজ বলেন, এ টুর্নামেন্টে বেশ কয়েকটি ভাল দল রয়েছে। আমরাও ভাল দল করার চেষ্টা করবো। এদিকে ৫জন স্পেনিশ এবং ১জন ত্রিনিদাদ টোবাগোসহ মোট ৬ জন বিদেশি নিয়ে শিরোপা লড়াইয়ে আসা মোহনবাগান দলের কোচ বিভু ভিজোনা বলেন প্রত্যেকটি দলের শিরোপা জয়ের ক্ষমতা রয়েছে। আমরা এর আগেও এ টুর্নামেন্ট একবার অংশ নিয়েছি। সেবার পুর্ণ শক্তির দল নিয়ে আসতে পারিনি। এবারে আগের চেয়ে অনেক ভাল দল নিয়ে এসেছি, আমরা ভাল খেলা উপহার দেয়ার চেষ্টা করবো। দলের অধিনায়ক ফ্রাঙ্ক গনজালেস বলেন, এটা আমাদের জন্য অনেক বড় একটা চ্যালেঞ্জ এবং আমরাও প্রতিটি ম্যাচে লড়াই করার চেষ্টা করবো।

এদিকে মাত্র ৪ বছর আগে জন্ম নেয়া লাওসের ইয়াং এলিফ্যান্টস এফসি দলের কোচ ভি সামভারাস বলেন, জাতীয় দলের ৪জন তারকা রয়েছে আমাদের দলে। প্রত্যেক খেলোয়াড়ের গড় বয়স ২১ বছর। তারুন্য নির্ভর আমাদের এ দলে কোন বিদেশি ফুটবলার নাই। টুর্নামেন্টের সব দলই বেশ ভালো এবং যে কোন দল এতে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে।

মালয়েশিয়ার তেরেঙ্গানু এফসি দলের কোচ নাফুজি জেন বলেন, আমরা এ টুর্নামেন্টে ভাল খেলতে এসেছি। আমরা লড়াই করতে চাই। দলের অধিনায়ক লি টাক বলেন, আমি এর আগেও এ টুর্নামেন্টে খেলেছি। চট্টগ্রামের এই টুর্নামেন্টটি বেশ আকর্ষণীয় বলে আমার কাছে মনে হয়েছে। আমরা শিরোপা লড়াইয়ে নিজেদের শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে দাড় করাতে চাই।

The Post Viewed By: 110 People

সম্পর্কিত পোস্ট