চট্টগ্রাম বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৩০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক

ফাইনালে ওপেনিং জুটির দিকে তাকিয়ে সাইফ

বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে শ্রীলংকায় ওয়ানডে সিরিজ, এরপর ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজ। নেই ওপেনারদের ব্যাটে ধারাবাহিকতা। তামিম ইকবাল তো ছুটিই নিয়েছেন। সৌম্য সরকার এই সিরিজে প্রথম ম্যাচে ওপেনিংয়ে ব্যাট করলেও করেছেন মোটে ৪ রান। পরের ম্যাচে খুলতে পারেননি রানের খাতা। তাতে বাদ পড়েছেন সিরিজ থেকে। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওপেনিংয়ে ব্যাট করানো হয়েছিল মুশফিকুর রহিমকেও। সৌম্যকে বাদ দিয়ে দলে নেয়া হয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তকে। ওপেনিংয়ে লিটনের সঙ্গে ভরসা খুঁজতে গিয়ে নিরাশ করলেন এই তরুণ ওপেনারও। গত দুই ম্যাচে করেছেন ১১ আর ৫ রান। লিটন দাসের অবস্থাও বেশ অধারাবাহিক। ঢাকা পর্বে সৌম্যর সঙ্গে দুই ম্যাচে ১৯ আর শূন্য’র পর চট্টগ্রাম পর্বের দুই ম্যাচে ৩৮ আর ৪ রান। ওপেনারদের এমন অবস্থায় চাপ পড়ে যাচ্ছে বাকি ব্যাটসম্যান আর বোলারদের ওপরও। চট্টগ্রাম পর্ব শেষ করে ফাইনাল ম্যাচের জন্য গতকাল সকালে ঢাকা এসে পৌঁছেছে বাংলাদেশ দল। আজ সোমবার নেমে পড়তে হবে অনুশীলনে। তার পরের দিনই ফাইনাল ম্যাচ। হযরত শাহাজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। এসময় তিনি মনে করিয়ে দেন, ওপেনারদের ভূমিকার কথা।

‘আশানুরূপ রান আসছে না ওপেনিং ব্যাটসম্যানদের থেকে। আশা করি এই সমস্যার সমাধান হবে দ্রুতই। ফাইনালে ওপেনাররা ভালো করবে আশা করছি। মিডল অর্ডারও আরও ভালো করবে।’ চলতি সিরিজে এখন পর্যন্ত চার ম্যাচে সাইফউদ্দিন ৭ উইকেট পেয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় রয়েছেন দুই নম্বরে। ব্যাট হাতে প্রয়োজনের সময় রানও করছেন। যে আফগানিস্তানকে হারানো যাচ্ছিল না সেই আফগানদেরও হারানো গেছে ফাইনালের আগে। সাইফউদ্দিন বলছেন, এই ম্যাচ আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে। ‘ওদের বিপক্ষে চট্টগ্রামে টেস্ট হেরেছি এবং ঢাকায় টি-টোয়েন্টিতে হেরেছি। আত্মবিশ্বাস ফিরে পাবার জন্য এই জয়টা দরকার ছিল। আমি মনে করি ম্যাচটি জেতায় আমাদের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে।’ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে নিজের ইকোনমি রেট নিয়ে স্বস্তিতে ছিলেন না বাংলাদেশের পেস অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তবে চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজে এই দুশ্চিন্তা কিছুটা কমেছে ডানহাতি এই পেসারের। সাইফউদ্দিন বলেন, ‘আমার ইকোনমি তেমন একটা ভালো ছিল না। আমি ম্যাচ খেলার আগে চিন্তা এসেছে যে আমার ইকোনমি ১২ এর মতো ছিল। চেষ্টা ছিল এই সিরিজে আমার ইকোনমি রেট আরেকটু নিচে আনার বা ভালো কোনো জায়গায় নেয়ার। আমার সামনে লম্বা ক্যারিয়ার। তারপরেও এই সময়ে চেষ্টা করেছি উইকেট নেয়ার পাশাপাশি আমার ইকোনমি আটের নিচে আনার। আলহামদুল্লিয়াহ মোটামুটি ভালো হয়েছে।’ লাল সবুজের পোশাকে ১৩টি টি-টোয়েন্টি খেলা সাইফউদ্দিনের বর্তমান ইকোনমি রেট ৮.৯৭। আটের নিচে না আসলেও কিছুটা স্বস্তিদায়ক পর্যায়ে এসেছে তা।

The Post Viewed By: 53 People

সম্পর্কিত পোস্ট