চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৩৩ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

বঙ্গবন্ধুর নামে উৎসর্গ হবে আসন্ন আসর

বিপিএলে থাকছে না কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ, বিপিএলের কাঠামো। আগামী আসর থেকে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের হাতে আর থাকছে না ঘরোয়া ক্রিকেটের টি-টোয়েন্টির এই টুর্নামেন্ট। গতকাল মিরপুরে বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান জানিয়েছেন এসব। মূলত ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে মতৈক্যে পৌঁছুতে পারেনি বিসিবি। নতুন কাঠামো নিয়ে উঠেছে বেশ কিছু প্রশ্ন।

ফ্র্যাঞ্চাজিরা বাদ কেন?: ডিসেম্বরে বিপিএল শুরুর আগে থেকেই ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে দফায় দফায় মিটিং করেছিল টুর্নামেন্টের গভর্নিং কাউন্সিল। সেখানে নিজেদের বিভিন্ন দাবি-দাওয়া তুলেছিল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি। বিসিবি সভাপতি বলছেন, তাদের এসব দাবি মেনে নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না, বিপিএলের মূল মডেলের সঙ্গে সেগুলো সাংঘর্ষিক বলে, ‘আমরা কোনো ভাবেই ‘এডজাস্ট’ করাতে পারছি না। আবার কিছু কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজি বলেছে, এক বছরে দুটা বিপিএল না হোক। খেলবো না যে তা না, এক বছরে দুই বিপিএল তারা চায় না। বেশি লোড পড়ে যায়। সবকিছু চিন্তা করে (সিদ্ধান্ত নিয়েছি) এবারের বিপিএল আমরা বিসিবি নিজের অর্থায়নে করব। রেভেনিউ শেয়ার’ (লভ্যাংশ ভাগাভাগি) করা সম্ভব নয়। আমাদের ৮০ কোটি টাকা দিক, আমরা ৪০ কোটি দিয়ে দেব। হয়ে গেল! (আগে) ৮ কোটি টাকা করে নিত। আমরা ৭ কোটি ছেড়েই দিয়েছি। মাত্র এক কোটি নিচ্ছি। আবার কী চায়? একটা জিনিস মনে রাখবেন, আমরা কী চাই। আমরা চাই যারা বিপিএলে আসবে তারা বিপিএলে খেলার উন্নয়ন, খেলোয়াড়ের উন্নয়নের জন্য আসবে। ব্যবসা করার জন্য নয়। এখানে সেই সুযোগ নেই। আমরা এখন যেটা দেখছি, তাতে ওদের দাবি দেওয়া কোনোভাবেই মানা সম্ভব নয়। এবার চালিয়ে দেখি কী সমস্যা, কেন তারা লোকসানের কথা বলছে। এগুলো তো বুঝতে হবে। আমাদের হিসেবে তো এগুলো হওয়ার কথা না। (বিপিএলের ভবিষ্যত) অন্ধকার কেন? আমরা চালাব। বিসিবি চালাতে পারবে না? শোনেন, (ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির) লোকসানই যদি হয় তাহলে ৮০ লাখ টাকার ক্রিকেটারকে ৪ কোটি টাকা দিয়ে কেউ নিত না। এই যে এগুলো করছে বেআইনিভাবে। কতো দাম দিয়ে নিচ্ছে তা আপনারা জানেনও না। খোঁজ নিয়ে দেখেন। লোকসান হলে তো কেউ এতো টাকা দেয় না। নিশ্চিত অনেক লাভ করে, আরও লাভ করতে চায়।
ফ্র্যাঞ্চাইজিরা না চাইলেও কেন বিপিএল? : মূলত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী পালনেই এবারের বিপিএল চালিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিবি, ‘আমরা কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজিতে যাচ্ছি না। এবং সব এর পিছনে সবথেকে বড় কারণ, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী আছে আগামী বছর। আমরা ক্রিকেট দিয়ে এই উৎসব শুরু করতে যাচ্ছি। আমরা চাচ্ছি এবারের বিপিএল বঙ্গবন্ধুর নামে উৎসর্গ করে, বঙ্গবন্ধু নামে করব।’

দলগুলি থাকবে কার অধীনে?: ক্রিকেটারদের থাকা-খাওয়া থেকে শুরু করে সবকিছু বহন করবে বিসিবি, ‘এবার কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি না থাকলেও প্রত্যেকটা যা দল ছিল সেটা ঠিক থাকবে। শুধু ম্যানেজমেন্ট বিপিএল করবে, ক্রিকেটারদের টাকা-পয়সা, থাকা-খাওয়া, গাড়ি সব বিসিবি থেকে ব্যবস্থা করা হবে। দলগুলোর মালিকানা সব বিসিবির থাকবে।”
কে কোন দলে খেলবেন? : ক্রিকেটাররা কে কোন দলে খেলবেন, সেটা বাছাইয়ের জন্য ড্রাফট হবে বিপিএলের নিয়মেই, ‘যা নিয়ম আছে সেই অনুযায়ী চলবে। ড্রাফটে অকশন করে যার যার মতো করে দল তৈরি করবে। বিদ্যমান যা আছে তাই হবে। এবারের মতোই তো আয়োজন হচ্ছে তাই সব ঠিক থাকবে।

ভবিষ্যতেও কি চালাবে বিসিবিই : এ কাঠামোতে এবারের আসরের কথা চালানোর কথা বলেছেন তিনি। ভবিষ্যতে ফ্র্যাঞ্চাইজি আসতে চাইলেও নিয়ম মেনে আসতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি, ‘বিসিবি এটা চালাবে কিনা তা নিশ্চিত নয়। যদি প্রয়োজন হয় করবে। আমরা একটা ‘বুক’ তৈরি করে দেব আউটলেটের। যাদের আসতে মন চায় আসবে। যাদের মন না চায় আসবে না। কিন্তু এসে কোনো নিয়ম কানুন ভঙ্গ করতে পারবে না।’

The Post Viewed By: 185 People

সম্পর্কিত পোস্ট