চট্টগ্রাম বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২৪ আগস্ট, ২০১৯ | ৬:৩৪ পিএম

স্পোর্টস ডেস্ক

তোরেসের বিদায়, ইনিয়েস্তার আবেগি চিঠি  

চিরদিনের জন্য ফুটবলকে বিদায় জানিয়ে অবসর নিলেন ফার্নান্দো তোরেস। জাতীয় দলের জার্সি এবং ইউরোপীয় ফুটবলকে আগেই বিদায় জানিয়েছেন স্পেনের বিশ্বকাপজয়ী এই তারকা।

গতকাল নিজের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের ইতি টেনেছেন ফার্নান্দো তোরেস। জাপানি ক্লাব সাগান তোসুর এই স্ট্রাইকার ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন ভিসেল কোবের বিপক্ষে। কাকতালীয়ভাবে, স্পেন জাতীয় দলের সাবেক সতীর্থ ইনিয়েস্তা আর ডেভিড ভিয়া খেলেন ভিসেল কোবের হয়ে। ফলে, তোরেসের শেষ ম্যাচটা হয়ে গেল ‘বুড়ো’ স্প্যানিশদের মিলনমেলা। বিদায়টা ঠিক সুখকর হয়নি তোরেসের জন্য, ৬-১ গোলে হারতে হয়েছে ইনিয়েস্তা দলের সঙ্গে। তাতে কী? এ ধরনের ম্যাচে ফলাফল যে গৌণ হয়ে যায়!

পেশাদার ফুটবলের শেষ ম্যাচটি খেলে ফেলেছেন তোরেস। কিন্তু বিদায়টা ভাল হয়নি ৩৫ বছর বয়সী স্ট্রাইকারের। হার দিয়ে বুট জোড়া চিরতরে তুলে রাখলেন তিনি। জাপান লিগে তার জাতীয় দলের সাবেক সতীর্থ আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা ও ডেভিড ভিয়ার ক্লাব ভিসেল কোবের বিপক্ষে ৬-১ ব্যবধানে হেরেছে তোরেসের সাগান তোসু।

অবসরের সময় আবেগাপ্লুত তোরেস বলেন, ‘শেষ ম্যাচ খেলার জন্য আমি একটি আইকনিক মুহূর্ত খুঁজছিলাম এবং আমি মনে করি এটাই নিখুঁত সময়।’

বিদায়ের দিনে তোরেসকে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন ইনিয়েস্তা। যেখানে লেখা, ‘এটা অসাধারণ এক ভ্রমণ। এটা আমাদের পৃথিবীর প্রতিটি কোণে নিয়ে গেছে।’

তোরেসের বিদায়ে ইনিয়েস্তার আবেগঘন কথা, ‘বিশ বছর আগে এই ফুটবলের কল্যাণেই আমরা এক হয়েছিলাম, আমরা তখন শিশু ছিলাম। তুমি আমার কাছে সারা জীবন ‘এল নিনো’ই (তোরেসের ডাকনাম) থাকবে। আমাদের কেউ আলাদা করতে পারবে না। আমরা যখন একে অন্যের সঙ্গে পরিচিত হলাম, দুজনের চোখেই ছিল স্বপ্নের মায়াঞ্জন। সে গোলটার কথা মনে পড়ছে, অনূর্ধ্ব-১৬ ইউরোতে যে গোলটা আমাদের হয়ে তুমি করেছিলে। গোল করার পর তুমি টিভির সামনে এসে আমাকে উৎসর্গ করেছিলে। আমি তখন চোটে পড়েছি, বাসায় বসে বসে মন খারাপ করে খেলা দেখছি। আমি কখনই তোমার ওই উপহার ভুলব না।’

চিঠিতে তোরেসের উদ্দেশ্যে লেখা, ‘এটা অসাধারণ এক ভ্রমণ। এটা আমাদের পৃথিবীর প্রতিটি কোণে নিয়ে গেছে।’

পূর্বকোণ/পলাশ

The Post Viewed By: 61 People

সম্পর্কিত পোস্ট