চট্টগ্রাম বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

৬ জানুয়ারি, ২০২৩ | ২:৪৭ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

বিপিএলের নবম আসর শুরু আজ

নাম, রং, লোগো আর মোড়কে বারবার বদলেছে বিপিএল। আগের আট আসরে পাঁচ দল, চার বিভাগ বা জেলার হয়ে জিতেছে শিরোপা। মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে আজ শুরু হতে যাওয়া নবম আসরে কার ঝুলিতে যাবে শিরোপা, তার লড়াই উপভোগে উস্মুখ ক্রিকেট ভক্তরা।

আজকের উদ্বোধনী দিনে বেলা ২.৩০টায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স-সিলেট স্ট্রাইকার্স ও সন্ধ্যা ৭.১৫টায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স-রংপুর রাইডার্স মুখোমুখি হবে। উদ্বোধনী দিনের ম্যাচ দুটিসহ সাত দলের টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগটি ক্রিকেট ভক্তরা সরাসরি দেখতে পাবেন জিটিভি, মাছরাঙা ও নাগরিক টিভির পর্দায়। ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত ঢাকায় চলবে প্রথম পর্বের খেলা।

 

এরপর বিপিএলের দলগুলো চলে আসবে চট্টগ্রামে। দু’দিনের বিরতি দিয়ে ১৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে চট্টগ্রাম পর্বের খেলা। চট্টগ্রাম পর্ব শেষ হবে ২০ জানুয়ারি। দু’দিনের জন্য আবারও ঢাকায় ফিরবে বিপিএল। ২৩ ও ২৪ জানুয়ারি খেলা শেষে ২৭ জানুয়ারি থেকে মাঠে গড়াবে সিলেট পর্বের খেলা। এই পর্বের খেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। এরপর বিপিএলের বাকি সব ম্যাচই ঢাকাতে হবে।

আইপিএলের ৪ বছর পর বিপিএলের আত্মপ্রকাশ। বিগ ব্যাশের প্রায় সমসাময়িক। পিএসএল এর চার বছর আগে। অনেক স্বপ্ন আর সম্ভাবনার গল্প নিয়ে ২০১২ সালে গড়ায় প্রথম আসর। যুগ পেরিয়ে গেলেও এ টুর্নামেন্টটি বিশ্বের অন্যতম অপরিকল্পিত আর জোড়াতালির টুর্নামেন্ট। প্রতি বছর বিপিএল হলে এবারের আসরটি হবার কথা ছিল ১২তম। তবে ফিক্সিংয়ের থাবায় ২০১৪ আর করোনার কারণে ২০ আর ২১ সালের আসর হারিয়ে যায়।

 

আগের আট আসরের সফলতম দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ৩ বারের চ্যাম্পিয়ন তারা। সর্বশেষ আসরেও কুমিল্লা সেরা। ঢাকাও সমান চ্যাম্পিয়ন। তবে দুটি ভিন্ন নামে। গ্ল্যাডিয়েটর্স দু’বার আর একবার ডায়ইমাইটস। এবার খেলছে ঢাকা ডমিনেটর্স নামে। একবার করে শিরোপা জিতেছে রংপুর রাইডার্স ও রাজশাহী রয়্যালস। নয় আসরে বারবার দলের নাম বদলেছে, কোনো নামই স্থায়ী হয়নি। সবচেয়ে বেশি ছয়বার নাম বদলেছে সিলেটের। রয়্যালস, সানরাইজার্স, থান্ডারস, সুপারস্টারস, সিক্সারস হয়ে এবার স্ট্রাইকার্স। ব্যতিক্রম কেবল কুমিল্লা। বিপিএলে দলীয় সর্বোচ্চ স্কোর রংপুর রাইডার্সের। ২০১৯ এ ২৩৯ রান তুলেছিলো তারা। আর সর্বনিম্ন ৪৪ রান করে খুলনা টাইগার্স। মজার ব্যপার হলো বিপিএলে দলীয় সর্বোচ্চ রানের প্রথম ছয়টি হয়েছে চট্টগ্রামে। আর সর্বনিম্ন ছয় মিরপুরে।

ব্যক্তিগত সাফল্যে এগিয়ে দেশের দুই শীর্ষ তারকা। সবচেয়ে বেশি রান তামিম ইকবালের। ৭৯ ম্যাচে করেছেন ২৬২৮ রান। আর বল হাতে রাজত্ব করেছেন সাকিব আল হাসান। ৮৭ ম্যাচে ১২২ উইকেট সুপার সাকিবের। সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করেছেন ক্রিস গেইল। ৫টি। বিপিএলের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডের সঙ্গে সবচেয়ে বেশি ১৪৩টি ছয় হাঁকিয়েছেন এ ইউনিভার্স বস। এখন পর্যন্ত ছয়টি হ্যাটট্রিক হয়েছে বিপিএলে। যার তিনটি বাংলাদেশি বোলারদের কীর্তি। তালিকায় আছেন আল আমিন হোসেন, আলিস ইসলাম ও সর্বশেষ আসরে মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী।

 

পূর্বকোণ/এএস

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট