চট্টগ্রাম শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

৭ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

সিরিজ জয়ের হাতছানি

মিরপুরে সফরকারী ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত জয়ের পর আজ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। সাতবছর পর আবারও ভারতের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের হাতছানি। লিটন-সাকিবরা আজ রোহিত- কোহলিদের বিপক্ষে সেই চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুপুর ১২টায় শুরু হওয়া ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে টি-স্পোর্টস ও গাজী টেলিভিশন।

 

সর্বশেষ ২০১৫ সালে ঘরের মাঠে ভারতের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজটি ২-১ ব্যবধানে জিতেছিল বাংলাদেশ। যা ছিল ভারতের বিপক্ষে ক্রিকেটের যেকোন ফরম্যাটে একমাত্র সিরিজ জয় টাইগারদের। আবারও তার পুনরাবৃত্তি করতে চায় টাইগাররা। প্রথম ম্যাচে মহাকাব্যিক জয়ের পর ভারতের মনোবল ভেঙে যাওয়ায় ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ এখন টাইগারদের।

 

বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলেন, প্রথম ম্যাচে রোমাঞ্চকর এক উইকেটের জয় আত্মবিশ্বাসী খেলোয়াড়রা এখন জয় ছাড়া অন্য কিছুই ভাবছে না। এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে চায় তারা। প্রধান কোচ বলেন, তবে নিজেদের সেরা পারফরমেন্সই প্রদর্শন করতে হবে ক্রিকেটারদের। কারণ প্রথম ম্যাচের মতো আবারও কঠিন পরিস্থিতির মুখে পড়লে প্রতিদিনই সেটি থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে না।

 

ডামিঙ্গো বলেন, ‘এই ফরম্যাটে আমাদের আত্মবিশ্বাস আছে। নিজ মাঠে আমাদের রেকর্ড খুব ভালো। বিশ্বের বড় দলগুলির মধ্যে ভারতের বিপক্ষে খেলাটা সবসময়ই বাড়তি উন্মাদনা কাজ করে। তবে অন্য দিকে এটিও ঠিক যে, শক্তিশালী হয়ে ঘুড়ে দাঁড়াবে ভারত। আমাদের প্রথম ম্যাচের চেয়ে ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। বিশেষ করে ব্যাটিংয়ে। আবারও ব্যাটিংয়ে আমাদের খারাপ করলে চলবে না।’

 

আজ প্রথম ওয়ানডে জয়ের কম্বিনেশনই ধরে রাখবে বাংলাদেশ। যদিও ওই ম্যাচে ব্যাটারদের ব্যর্থতা ফুটে উঠেছে। অন্য দিকে প্রথম ম্যাচে মাঠের লড়াইয়ে ক্লান্ত দেখিয়েছে ভারতকে। সিরিজে টিকে থাকার জন্য একাদশে একটি বা দু’টি পরিবর্তন আনতে পারে তারা। শাহবাজের পরিবর্তে অক্ষর প্যাটেলকে খেলাতে পারে ভারত।

 

দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে গতকাল ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান বলেন, ‘এটা নতুন শুরু। আমরা ম্যাচটির দিকে তাকিয়ে আছি। অনেক ইতিবাচক আছি এ ব্যাপারে। ভালো ক্রিকেট খেলতে মুখিয়ে আছি আমরা।’ এখন পর্যন্ত ওয়ানডেতে বাংলাদেশ ও ভারত ৩৭বার মুখোমুখি হয়েছে। এরমধ্যে বাংলাদেশ জিতেছে ছয়টিতে। ভারতের জয় ৩০টিতে। একটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

 

পূর্বকোণ/আর

 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট