চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

২৯ নভেম্বর, ২০২২ | ১:৪৫ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

নেইমার-তিতে’র চোখে ‘ক্যাসেমিরো বিশ্বসেরা মিডফিল্ডার’

সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে জয় নিয়ে ইতোমধ্যে শেষ ১৬-তে উঠে গেছে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। তবে গোল পেতে সেলেসাওদের অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে। দলের প্রধান তারকা নেইমার ও ডিফেন্ডার দানিলো অনুপস্থিত ইঞ্জুরির কারণে। প্লেমেকার নেইমার না থাকায় তার দায়িত্ব এসে পড়ে মিডফিল্ডারদের ওপর। সেই দায়িত্ব সামলানোর পর দলের জয়ে একমাত্র গোলটিও করেছেন ক্যাসেমিরো। ম্যাচশেষে তাই নেইমার ও কোচ তিতে’র কাছ থেকে তিনি ‘বিশ্বসেরা মিডফিল্ডার’র খেতাব পেয়েছেন।

কাতারের ৯৭৪ স্টেডিয়ামে সুইসদের বিপক্ষে একের পর এক আক্রমণ ব্যর্থ হয়ে যাচ্ছিল গোলমুখে এসে। কিছুতেই ভাঙা যাচ্ছিল না সুইজারল্যান্ডের রক্ষণ। সেই সঙ্গে ব্রাজিলের খেলাও যেন কিছুটা ছন্দ হারিয়েছিল। মাঝেমধ্যে তো শঙ্কাও পেয়ে বসছিল, সুইসরা না আবার গোল করে বসে! ফলে প্রথমার্ধ চলে যায় গোলশূন্য ড্রয়ে।

 

দ্বিতীয়ার্ধে ভিনিসিয়ুস জুনিয়ার আপাত চমৎকার একটি গোল করলেন। কিন্তু বাঁধ সাধল ভিএআর প্রযুক্তি, আগের ম্যাচে দুর্দান্ত দুটি গোল করে সমর্থকদের মন জয় করে নেওয়া রিচার্লিসনের একটা ছোট্ট ভুলে সেই গোলটিও বাতিল হয়ে যায়। এরপর ব্রাজিল ও ক্লাব ফুটবলের দল রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে মাঝমাঠের পরিক্ষীত সৈনিক ক্যাসেমিরো ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। ৮২ মিনিট ধরে প্রতিরোধ গড়ে তোলা সুইজারল্যান্ডের দেয়ালে ধস নামিয়ে একমাত্র গোলটি করেন তিনি।

ম্যাচ জয়ের পর উচ্ছ্বসিত ক্যাসেমিরো জানান, ‘গোল করার চেয়েও বড় কথা, আমার প্রধানতম লক্ষ্য হচ্ছে দলের কাজে আসা। দলকে সাহায্য করা। আমরা যখন জিতি, তখন দলের প্রতিটি সদস্যই জেতে। গোটা দল জেতে। আমরা যখন হারি, তখন সকলে মিলেই হারি।’

 

এরপর নেইমার তার টুইটার একাউন্টে পোস্ট করে লিখেন, ‘দীর্ঘ দিন ধরেই কাসেমিরো বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার।’

পরে সংবাদ সম্মেলনে এই টুইট প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে দলের বস তিতে জানান, ‘আমি সাধারণত অন্যের মতামতকে গুরুত্ব দিই। সাধারণত এসব ব্যাপারে আমি মন্তব্য করা থেকে দূরে থাকি। কিন্তু আজ করব। হ্যাঁ, নেইমারের এই মূল্যায়নের সঙ্গে আমি একমত।’

 

পূর্বকোণ/এএস/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট